মহেশখালীতে দু’টি প্রশিক্ষণ বিমান বিধ্বস্ত, ৪ পাইলট অক্ষত


মহেশখালি প্রতিনিধি:

কক্সবাজারের মহেশখালীতে নৈশ্য মহড়ারত বিমান বাহিনীর ২টি যুদ্ধ বিমান বিধ্বস্থ হয়েছে। বুধবার সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার দিকে মহেশখালীর পুটিবিলার পালপাড়া এবং ছোট মহেশখালীর মাইজ পাহাড় এই দুর্ঘটনা ঘটে।
এতে বিমানে থাকা ৪ পাইলট ও ক্রোকের মধ্যে ৩জনকে অক্ষত অবস্থায় উদ্ধার করা হলেও রাজিব নামে এক পাইলটকে মুমূর্ষ অবস্থায় উদ্ধার করে দমকল বাহিনীর কর্মীরা।

তারা প্যারাসুট যোগে নিরাপদে অবতরন করেছে বলে জানা গেছে। উদ্ধারকৃত পাইলটরা হচ্ছে, ক্যাপ্টেন শরীফ। স্কোয়ার্ডন লিডার মনির, উইং কমান্ডার আজিম ও উইং কমান্ডার রাজিব বলে জানা গেছে।

মহেশখালী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. আবুল কালাম ও থানার ওসি প্রদীপ কুমার দাশ জানান, আহত ৩জন পাইলটকে বিমান বাহিনীর হেলিকপ্টারে করে চট্টগ্রামে নিয়ে যাওয়া হয়। আরেক জনকে দেরীতে পাওয়ায় তাকে নদী পথে কক্সবাজার হয়ে তাকেও হেলিকপ্টারে চট্টগ্রামে নিয়ে যাওয়া হয়।

সরজমিনে গিয়ে দেখা যায়, প্রথম বিমানটি পড়ে মহেশখালী পৌর এলাকার পুটিবিলা পাল পাড়া ও এয়ার মোহাম্মদ পাড়ার মধ্যবর্তী একটি পুকুর পাড়ে ওই গ্রামের নজু মিয়ার পুত্র আব্দুর ছাত্তারের বাড়ির রান্না ঘরের উপর। এতে ওই বাড়ির ভিতরে থাকা এক শিশুসহ ৪জন আহত হয়েছে। আহতরা হচ্ছে ফয়সল (২২), খদিজা (৩৫), আঁখি (১০) ও আব্দুর ছাত্তার (৩০)।

ঘটনাস্থলের বাসিন্দা মহেশখালী উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান মোহাম্মদ জহির জানান, ঘটনার সময় তিনি ঘটনাস্থলের পাশে ছিলেন। এসময় আকাশে একটি বিমানে আগুন লাগা অবস্থায় তার গ্রামের উপর দিয়ে দুই তিনটি চক্কর দিয়ে হঠাৎ বিকট শব্দে পড়ে যায়। এতে আগুন ধরে গেলে গ্রামের লোকজন পালাতে থাকে। ওই বিমানটি আকাশেই ভেঙ্গে গিয়ে এর পাইলটের একটি আসন ঘটনাস্থল থেকে আধা কি.মি দক্ষিণে দাসি মাঝির পাড়ায় পড়ে যায়।

ঘটনার সাথে সাথে মহেশখালী থানা পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিস  গিয়ে আগুন নেভান। অপর বিমানটি পড়ে মহেশখালী পৌরসভার সংলগ্ন ছোট মহেশখালী ইউনিয়নের মাইজ পাড়া গ্রামে। দুটি বিমান দুর্ঘটনার দুরত্ব প্রায় সাড়ে ৩ কি.মি. হবে। ঘটনাস্থল দু’টিতে হাজার হাজার উৎসুক জনতা ভিড় জমানোর কারণে পুলিশ ও আইন শৃঙ্খলা বাহিনীকে হিমশিম খেতে হয়।

image_pdfimage_print

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *