মংক্যচিং মারমা’কে মুক্তি ও অপহরণকারীদের গ্রেফতারে ২৪ ঘন্টার আল্টিমেটাম


মহালছড়ি প্রতিনিধি:

২৪ ঘন্টার মধ্যে অপহরণকারীদের গ্রেফতার পূর্বক অপহৃত মংক্যচিং কার্বারীকে মুক্তি দেওয়া না হলে পার্বত্য চট্টগ্রামের সকল মারমা সম্প্রদায় ঐক্যবদ্ধ হয়ে কঠোর আন্দোলনের কর্মসূচি গ্রহণ করা হবে বলে হুশিয়ারি দিয়েছে ।

খাগড়াছড়ির মহালছড়িতে মংক্যচিং কার্বারীকে অপহরণের প্রতিবাদে সিঙ্গিনালা ও মাইসছড়ি এলাকাবাসীর ব্যানারে মারমা সম্প্রদায়ের নারী পুরুষের অংশগ্রহণের মধ্য দিয়ে  বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সমাবেশ করা হয়েছে।

বুধবার(১০ অক্টোবর) সকাল ১০টায় বিক্ষোভ মিছিলটি মহালছড়ি কলেজ সংলগ্ন ২৪ মাইল নামক চৌমূহনী থেকে শুরু হয়ে উপজেলা পরিষদ প্রাঙ্গণে এসে এক সমাবেশে মিলিত হয়।

বিক্ষোভ মিছিলে বক্তব্য রাখেন উগ্যজাই মারমা, ক্যথৈইচিং মারমা. মংশি মারমা প্রমুখ।

সমাবেশে বক্তারা পাহাড়ের পূর্ণ স্বায়ত্তশাসনের দাবিতে আন্দোলনকারী  আঞ্চলিক সংগঠন ইউনাইটেড পিপলস ডেমোক্রেটি ফ্রন্ট ( ইউপিডিএফ)’র প্রতি  হুঁশিয়ারী উচ্চারণ করে বলেন, রাজনীতির নামে হত্যা, অপহরণ, গুম করে এবং সাধারণ জনগণকে ভয়-ভীতি দেখিয়ে সন্ত্রাসী কার্যকলাপ কখনই মেনে নেয়া হবেনা। দীর্ঘদিন যাবত থেকে পাহাড়ে রাজনীতির নামে চাঁদাবাজি, হত্যা, ভয়-ভীতি প্রদর্শন ও গুমসহ নানা অপকর্ম করে সাধারণ জনগণকে জিম্মি করে রাখা হয়েছে। জনগণ এ অত্যাচার আর সহ্য করবেনা। কঠোর হস্তে দমন করার অঙ্গীকার ব্যক্ত করেন বক্তারা।

উল্লেখ্য, গত ২৭ আগস্ট মহালছড়ি উপজেলার মাইসছড়ি ইউনিয়নের বুলিপাড়া গ্রামের কার্বারী মংক্যচিং মারমাকে কয়েকজন সশস্ত্র অস্ত্রধারী সন্ত্রাসী বাড়ি থেকে তুলে নিয়ে যায়। ঘটনার পর থেকে অনেক খোঁজাখুঁজির পরও কোন হদিস মেলেনি। অপহৃত ব্যক্তির আত্মীয় স্বজনেরা পাহাড়ের পূর্ণ স্বায়ত্তশাসনের দাবিতে আন্দোলনকারী আঞ্চলিক সংগঠন ইউনাইটেড পিপলস ডেমোক্রেটি ফ্রন্ট (ইউপিডিএফ)কে সরাসরি দায়ী করেছে। এ অভিযোগের বিষয়ে জানতে মোবাইলে ইউপিডিএফ’র নেতৃস্থানীয় কাউকে পাওয়া যায়নি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *