“৮২ হাজার উপজাতি পরিবারকে পুনর্বাসন করে পার্বত্যাঞ্চলকে জুম্মল্যান্ড বানানোর ষড়যন্ত্র করছে”


নিজস্ব প্রতিবেদক, রাঙ্গামাটি:

৮২ হাজার উপজাতি পরিবারকে পুনর্বাসন করে পার্বত্যাঞ্চলকে বাংলাদেশ থেকে আলাদা করতে জুম্মল্যান্ড বানানোর ষড়যন্ত্র করছে। শরণার্থী বিষয়ক টাস্কফোর্স কর্তৃক ৮২ হাজার ভারতীয় ও মিয়ানমার নাগরিকদের পার্বত্যাঞ্চলে পুনর্বাসন ষড়যন্ত্র বন্ধের দাবীতে রাঙ্গামাটিতে অনুষ্ঠিত মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশে একথা বলেন স্থানীয় বাঙালী সংগঠনের নেতাকর্মীরা।

বুধবার (১০অক্টোবর) সকালে রাঙ্গামাটি জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের সামনে নির্যাতিত পার্বত্যবাসীর ব্যানারে মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।

ঘন্টাব্যাপী মানববন্ধনে স্থানীয় বাঙালী নারী-পুরুষরা বিভিন্ন ব্যানার ফেস্টুন নিয়ে অংশগ্রহণ করেন।
এ সময় মানববন্ধনে পার্বত্য নাগরিক পরিষদ রাঙ্গামাটি জেলা শাখার সভাপতি বেগম নূর জাহানের সভাপতিত্বে এতে বক্তব্য রাখেন, যুব ফ্রন্টের কেন্দ্রীয় উপদেষ্টা কাজী মো. জালোয়া, পার্বত্য শ্রমিক পরিষদ রাঙ্গামাটি জেলার সভাপতি মো. রাসেল ইসলাম, যুব ফ্রন্ট রাঙ্গামাটি পার্বত্য জেলা সভাপতি মো. আব্দুল মান্নান, বৃহত্তর পার্বত্য অধিকার ফোরাম কেন্দ্রীয় সভাপতি মো. মাইন উদ্দিন মহিন প্রমুখ।

বক্তারা অভিযোগ করে বলেন, পুনর্বাসন প্রক্রিয়ায় কোনো বাঙাালী পরিবারকে রাখা হয়নি। অথচ ৩৫ বছর ধরে গুচ্ছগ্রামে ৩৮ হাজার বাঙালি পরিবার বন্দিজীবন যাপন করছে। তাদের পূণর্বাসনের কোন উদ্যোগ কারো চোখে পরেনি।

বক্তারা আরও বলেন, পার্বত্যাঞ্চলে এখনো হাজার হাজার বাঙালী পরিবার আছে যাদের একটু মাথাগুজার ঠাই নেই। পাহাড় ধ্বসে ঘর-বাড়ি বিধ্বস্ত বাঙালী পরিবারগুলো এখনো খোলা আকাশের নিচে বসবাস করছে। তাদেরও পুনর্বাসন করার কনো প্রদক্ষেপ গ্রহণ করেনি সংশ্লিষ্টরা।

কিন্তু ভারত প্রত্যাগত শরণার্থী যারা আসলে বাংলাদেশের নাগরিক নয়, যারা কিনা ভারত ও মিয়ানমারের নাগরিক। তাদের কেন পার্বত্যাঞ্চলে পুনর্বাসন করা হবে?

অবিলম্বে শরণার্থী বিষয়ক টাস্কফোর্স কর্তৃক ৮২ হাজার ভারতীয় ও মিয়ানমার নাগরিকদের পার্বত্যাঞ্চলে পুনর্বাসন ষড়যন্ত্র বন্ধ না করলে অবস্থান ধর্মঘট কর্মসূচি পালনসহ আরো কঠোর কর্মসূচীর ঘোষণা করবে পার্বত্যবাসী।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *