ভারতকে ১১২ রানেই থামিয়ে দিলো বাংলাদেশ


পার্বত্য নিউজ ডেস্ক:

কুয়ালালামপুরে অনুষ্ঠিত এবারের এশিয়া কাপের ফাইনালে উঠে চমক দেখিয়েছে বাংলাদেশের মেয়েরা। এই ফাইনাল খেলার স্বপ্ন নিয়েই দেশ ছেড়েছিল সালমা বাহিনী। কিন্তু রোববারে ভারতের বিপক্ষে অনুষ্ঠিত এই ফাইনাল ম্যচে জিতেই দেশে ফিরতে চায় বাংলাদেশ নারী ক্রিকেট দল।

ট্রফি জয়ের লক্ষ্যে খেলতে নেমে ইনিংসের ৪র্থ ওভারের প্রথম বলেই দলীয় মাত্র ১২ রানে ১ম উইকেট (রান আউট) হারিয়ে বিপর্যয়ের সুত্রপাত হয় ভারতীয় মেয়েদের। এরপর ৭ম ওভারে খাদিজাতুল কোবরার আঘাতে ২৬ রানে ২য় এবং পরের ওভারে জাহানারা আলমের পেসে দলীয় ২৮ রানে ৩য় উইকেট হারায় ভারতের প্রমীলারা।

৯ম ওভারে দলীয় ৩২ রানের মাথায় জাহানারার বোলিংয়ে অসুস্থ হয়ে অলরাউণ্ডার অনুজা পাতিল মাঠ ছেড়ে গেলে দারুণ চাপে পড়ে ভারত। এরপর সালমা খাতুন ও রুমানা আহমেদের ঘুর্ণির কবলে পড়ে দলীয় ৬২, ৭২ এবং ৭৪ রানে আরও ৩টি উইকেট হারায় কাউর বাহিনী। রুমানা একই ওভারে ২টি উইকেট তুলে নেন।

এদিকে টাইগ্রেসদের বোলিং তোপের মুখে যখন একে একে সবাই সাজঘরে ফিরছেন, তখন অন্য প্রান্তে থেকে তা তাকিয়ে তাকিয়ে না দেখে বরং নিজের কাজটাই করে গেছেন দলনায়ক হারমানপ্রীত কাউর। খাদিজাতুল কোবরার ছোবল খাওয়ার আগে ইনিংসের শেষ পর্যন্ত ৪২টি বল খেলে ৭টি বাউণ্ডারির সাহায্যে ইনিংস সর্বোচ্চ ৫৬ রান করেন এই অলরাউণ্ডার। তার এই অনবদ্য ইনিংসের ৯ উইকেট হারিয়ে কল্যাণেই ১১২ রানের পুঁজি পায় ভারত।

অন্যদের মধ্যে মাত্র তিনজন দুই অঙ্কের কোটা পার হতে পারেন। ওপেনার মিতালি রাজ ও ভেদা কৃষ্ণমুর্তি ১১ করে এবং ঝুলন গোস্বামী করেন ১০ রান।

টাইগ্রেস বোলারদের মধ্যে খাদিজা ও রুমানা যথাক্রমে ২৩ ও ২২ রানের বিনিময়ে ২টি করে এবং অধিনায়ক সালমা ও জাহানারা ১টি করে উইকেট লাভ করেন।

এর আগে টস নামক ভাগ্য পরীক্ষায় জিতে আগে ফিল্ডিং করার সিদ্ধান্ত নেয় সালমা বাহিনী। এখন দেখার বিষয়, টাইগ্রেসরা শেষ পর্যন্ত টস জয়টা ম্যাচ জয়ে পরিণত করতে পারেন কিনা।

শেষ খবর পর্যন্ত, জয়ের জন্য ব্যাট করতে নেমেছে বাংলাদেশ। ৫ ওভার শেষে তাদের সংগ্রহ বিনা উইকেটে ২৩ রান।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *