ব্যাংককে ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠীর পক্ষে প্রতিনিধিত্ব করবেন রোয়াংছড়ির উসাইম্যা মারমা


u-saing-maya-marma1-copy

রোয়াংছড়ি প্রতিনিধি :

বান্দরবান পার্বত্য জেলার রোয়াংছড়ি উপজেলার কৃতী সন্তান উসাইম্যা মারমা থাইল্যান্ডের ব্যাংককে অনুষ্ঠিতব্য আন্তর্জাতিক কর্মশালায় ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠীর পক্ষে প্রতিনিধিত্ব করবেন।কর্মশালাটি ১০ জানুয়ারি শুরু হয়ে শেষ হবে ২১ জানুয়ারি।

জানা যায়, রোয়াংছড়ি সদর ইউনিয়নে পাহাড়ের পাদদেশের নতুন পাড়ায় উসাইম্যা মারমার জন্ম। বর্তমানে চট্টগ্রাম এশিয়ান ইউনির্ভাসিটি ফর উইমেন বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্থনীতি বিভাগের শেষ বর্ষের ছাত্রী। তার বাবা অংসাজাই মারমা (আচিং) রোয়াংছড়ি উপজেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিপ্তরের একজন সহকারি উদ্ভিদ সংরক্ষণ কর্মকর্তা। মা ম্যাম্যাচিং মারমা (আচিংমা) রোয়াংছড়ি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে পরিবার পরিকল্পনা বিভাগের স্বাস্থ্য সহকারী হিসেবে কর্মরত আছেন। এশিয়ান প্যাসিফিক ইয়ুথ এক্সচেঞ্জ প্রোগ্রামের ডাক পেয়ে সাসটেইনেবল ডেভেলপমেন্ট গোল্ড (এসডিজি)’র ওপর দক্ষতা অর্জনের লক্ষ্যে থ্যাল্যান্ডের ব্যাংককে যাচ্ছেন তিনি। ১০ দিনব্যাপী কর্মশালায় তিনি ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠীর পক্ষে প্রতিনিধিত্ব করবেন উসাইম্যা মারমা।

জানা গেছে, ২১টি দেশের জনগোষ্ঠীর প্রতিনিধিরা এ কর্মশালায় অংশগ্রহণ  করতে যাচ্ছেন। আমেরিকা, বাংলাদেশ, ব্রাজিল, হংকং, কম্বোডিয়, চীন, ইন্দোনেশিয়া, কোরিয়া, ভারত, মঙ্গোলিয়া, নেপাল, মায়ানমার, পেরু, পাপুয়ানিউ গিনি, রুমানিয়া, সিঙ্গাপুর, তাইওয়ান, ফিলিপাইন, তাঞ্জানিয়া, থাইল্যান্ড ও ভিয়েতনামের সহ ২৫০ জন প্রতিনিধিরা যোগ দেবেন এ কর্মশালয়।

উসাইম্যা মারমা জানান, ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠীর একজন সদস্য হয়ে আন্তর্জাতিক এ কর্মশালায় প্রতিনিধিত্ব করতে পেরে আমি ভীষণ আনন্দিত। পারিবারিক সূত্রে জানা যায়,  ১০ থেকে ২১ জানুয়ারি পর্যন্ত ব্যাংককের কর্মশালায় এসডিজি অর্জনের ১৭টি টেকসই উন্নয়নের মধ্যে দিয়ে শিক্ষার গুণগতমানের ওপর দক্ষতা অর্জন করে ২২ জানুয়ারি দেশের ফিরবেন উসাইম্যা।

image_pdfimage_print

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *