বান্দরবানে বৌদ্ধ ভিক্ষু খুন


নিজস্ব প্রতিবেদক, বান্দরবান:

বান্দরবান জেলা সদরে বৌদ্ধ ভিক্ষুকে কুপিয়ে হত্যা করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার(২৬এপ্রিল) ভোররাতে উ নাইন্দিয়া (৮০) নামের এক বৌদ্ধ ভিক্ষুকে ধারালো দা দিয়ে কুপিয়ে হত্যার অভিযোগ উঠেছে আরেক বৌদ্ধ ভিক্ষুর বিরুদ্ধে।

বান্দরবান সদর উপজেলার বাকীছড়া মাঝেরপাড়া বৌদ্ধ বিহারে এ ঘটনা ঘটে। পুলিশ লাশ উদ্ধার করে মর্গে পাঠিয়েছে।

কে বা কারা কী উদ্দেশ্যে এই হত্যাকাণ্ড ঘটিয়েছে সে বিষয়ে এখনও নিশ্চিত কোনো তথ্য পাওয়া যায়নি। তবে বৃহস্পতিবার ভোর ৫টার দিকে সাবিদা (ম্রায় থোই) নামের এক শ্রমনকে কেয়াং (বৌদ্ধ বিহার) থেকে দৌড়ে বের হয়ে যেতে দেখেছে গ্রামবাসী। এখনও তিনি পলাতক।

পাড়ার কার্বারি (পাড়া প্রধান) পাই হ্রী মং ধারণা করছেন, সাবিদা শ্রমনই এ হত্যাকাণ্ড  ঘটাতে পারেন। তিনি জানান, একই গ্রামের বাসিন্দা দুই বছর আগে শ্রমনব্রত গ্রহণ করে বিহারে অবস্থান করছেন। সাবিদা মানসিক ভারসাম্যহীনতায় ভুগছিলেন বলে তিনি জানান।

স্থানীয়রা জানায়, প্রতিদিনকার মতো পাড়ার দায়করা ভিক্ষুদের ‘ছোয়াইং’ (খাবার) দিতে গিয়ে বৌদ্ধ বিহারের রান্নাঘরে লাশ দেখতে পান। পরে বিষয়টি বান্দরবান সদর থানাকে অবহিত করা হয়।

কুহালং ইউপি চেয়ারম্যান চানু প্রু বলেন, আজ সকালে দুই ভান্তের মধ্যে কথা কাটাকাটি হয়। ধারনা করা হচ্ছে সাবিদা শ্রমনই বিহারের পাশে রান্নাঘরে দা দিয়ে বৌদ্ধ ভিক্ষুকে মাথায় কোপ দেন। এতে ঘটনাস্থলেই তার মৃত্যু হয়।

বাকীছড়া মাঝেরপাড়া বৌদ্ধ বিহার প্রধান (বিহারাধ্যক্ষ) পাইদিতা ভিক্ষু বলেন, ধর্মীয় কারণে তিনি বুধবার পার্শ্ববর্তী রাজবিলা কেয়াংয়ে ছিলেন। হত্যাকাণ্ডের খবর শুনে তিনি ছুটে এসেছেন।

বিহারাধ্যক্ষ জানান, বৌদ্ধ বিহারে অনেক মূল্যবান মালামাল এবং নগদ অর্থ থাকলেও এই ঘটনায় কোনো কিছু খোয়া যায়নি।

বান্দরবান সদর থানার ওসি মো. গোলাম সরোয়ার বলেন, হত্যাকাণ্ডের বিষয়ে থানায় মামলা হয়েছে। ময়নাতদন্তের জন্যে লাশ বান্দরবান সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *