‘বৈসাবি’কে স্বাগত জানিয়ে মানিকছড়িতে বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা


মানিকছড়ি প্রতিনিধি:

বাংলা নববর্ষ মানে আনন্দের জোয়ার। দেশব্যাপী নানা আয়োজনে দিবস পালন করা হলেও পাহাড়জুড়ে এ আনন্দের মাত্রায় পাহাড়ি-বাঙ্গালী একাকার। বিশেষ করে মংরাজ আবাসস্থল মহামুনি চত্বরে প্রতি বছরের ন্যায় এবারও শনিবার(১৪ এপ্রিল) জমবে মেলার ১৩৫তম আসর। আর এ আয়োজন উপভোগ করতে তিন পার্বত্য জেলা এবং চট্টগ্রাম থেকে হাজারও নর-নারী, শিশু-কিশোর, তরুণ-তরুণীরা জমায়েত হবে পাহাড়ি-বাঙ্গালীর মিলনস্থল।

ইতোমধ্যে মেলার সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছেন আয়োজন কমিটি। ১৩ এপ্রিল বিকালে পুরাতন বছরকে বিদায় ও পহেলা  বৈশাখকে স্বাগত জানিয়ে বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা বের করেছে মারমা উন্নয়ন সংসদ। উপজেলার গচ্ছাবিলস্থ চৌধুরী পাড়া, মযূরখীল ধর্মঘর, তিনটহরী চৌধুরী পাড়া, বড়বিল, রাজপাড়া, মহামুনি পাড়া , বাটনাতলী থেকে দলে দলে মারমা শিশু-কিশোর, তরুণ-তরুণী, বৃদ্ধ-বনিতারা“সাংগ্রাই (বৈসাবি)কে বিদায় ও বরণ করতে শোভাযাত্রায় সমবেত হয়। ১ কিলোমিটার দীর্ঘ শোভাযাত্রায় হাজারো পাহাড়ি-বাঙ্গালীর উপস্থিতিতে আনন্দের মাত্রা বাড়িয়ে দিয়েছে পাহাড়ে।

চারিদিক থেকে আসা শোভাযাত্রাটি বেলা সাড়ে ৪টায়  আমতলায় এসে মূলস্রোতধারায় মিলিত হয়। পরে সেটি   উপজেলা পরিষদ ঘুরে মহামুনি বৌদ্ধ মেলাস্থল হেডম্যান কার্যালয় মাঠে গিয়ে শেষ হয়।  ওই শোভাযাত্রায় প্রধান অতিথি ছিলেন, উপজেলা চেয়ারম্যান ম্রাগ্য মারমা, বিশেষ অতিথি ছিলেন, ইউএনও মো. আহ্সান উদ্দীন মুরাদ, অফিসার ইনচার্জ মুহাম্মদ রশীদ, উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মো. জয়নাল আবেদীন, ইউপি চেয়ারম্যান মো. শফিকুর রহমান ফারুক,  যুবলীগ নেতা মো. সামাউন ফরাজী সামু, মো. জাহাঙ্গীর আলম, মারমা সংসদ নেতা মংশেপ্রু মারমা, কার্বারী এসোসিয়েশনের সভাপতি উদ্রাচাই কার্বারীসহ হাজারও শিশু-কিশোর, তরুণ-তরুণীরা নানা সাজে সজ্জিত হয়ে শোভাযাত্রায় অংশ নেয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *