বিলাইছড়িতে মন্দির ভাংচুরের ঘটনায় আটক-৭


নিজস্ব প্রতিনিধি:

রাঙামাটির বিলাইছড়ি উপজেলার ফারুয়া ইউনিয়নে বৌদ্ধ মন্দির ভাংচুরের ঘটনায় ছয়জনের বিরুদ্ধে বিলাইছড়ি থানায় মামলা দায়ের হলেও পূজারিদের উপর গুলি বর্ষণের ঘটনায় এখনও কোন মামলা হয়নি।

বুধবার (২১মার্চ) রাতে মন্দির ভাংচুরের অভিযোগ এনে থানায় মামলা দায়ের করে মন্দির পরিচালনা কমিটি।

এদিকে চলতি বছরের ২০মার্চ (মঙ্গলবার) একদল সন্ত্রাসী ওই মন্দিরে হামলা চালালে এলাকাবাসী হামলাকারীর একজনকে হাতেনাতে আটক করেছে। এ নিয়ে সর্বশেষ সাতজনকে আটক করা হয়েছে।

আটকৃতরা হলো- ওই উপজেলার ফারুয়া ইউনিয়নের গুইয়াংছড়ি এলাকার অঙ্গলী মালা তঞ্চঙ্গ্যার ছেলে সুখীলাল তঞ্চঙ্গ্যা (১৮), বাতল্যা তঞ্চাঙ্গ্যার ছেলে অঙ্গলী মালা তঞ্চঙ্গ্যা (৪৫), উপাত চন্দ্র তঞ্চঙ্গ্যার ছেলে মঙ্গ্যা তঞ্চঙ্গ্যা (২৮), ওই ইউনিয়নের তক্তানালা গ্রামের বানু তঞ্চাঙ্গ্যার ছেলে শাকিল তঞ্চাঙ্গ্যা (২৫), দাশ কুমার তঞ্চঙ্গ্যার ছেলে অনিল কুমার তঞ্চঙ্গ্যা (৩২), পরিমল চাকমার ছেলে অমর চাকমা (২৪), এবং বেরিমল তঞ্চঙ্গ্যার ছেলে চুরাত তঞ্চাঙ্গ্যা (২৭)। স্থানীয় ও সরকারি একটি গোয়েন্দা শাখা সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

তবে বিলাইছড়ি থানা সূত্র জানায় আটকের সংখ্যা ছয়। তাদের ২২মার্চ দুপুরে আদালতে জবানবন্দি দিতে রাঙামাটিতে পাঠানো হয়েছে বলে জানান। এ ঘটনার বিষয়ে জানার জন্য বুধবার রাত থেকে বিলাইছড়ি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নাছির উদ্দীনকে একাধিকবার ফোন দেয়ার পরও তিনি ফোন রিসিভ করেননি।

এ ব্যাপারে বিলাইছড়ি থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) মো. মনির জানান, আটককৃত ছয়জনকে সহকারী পরিদর্শক (এএসআই) সাইফুলের নেতৃত্বে বৃহস্পতিবার ২২মার্চ দুপুরের মধ্যে রাঙামাটিতে পাঠানো হচ্ছে। আদালতে তাদের জবানবন্দি নেওয়া হবে।

আটককৃতরা কোন রাজনৈতিক দলের সাথে সংশ্লিষ্ট কিনা এমন প্রশ্নে তিনি জানান, তদন্ত করে দেখা হচ্ছে তারা কোন রাজনৈতিক দলের সাথে জড়িত কিনা।

আহতদের পরিবারের কেউ মামলা করেছে এমন প্রশ্নে তিনি বলেন, এ ঘটনায় আহতদের পক্ষ থেকে মামলা দায়ের করা হয়নি তবে বৌদ্ধ মন্দির কমিটির পক্ষ থেকে মন্দির ভাংচুরের অভিযোগ এনে থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। আটক ছয় নাকি সাত এ ব্যাপারে তিনি বলেন, পুলিশ ছয়জনকে আটক করেছে। গ্রেফতার হয়েছে সাত এমন প্রশ্নের জবাব তিনি এড়িয়ে যান।

উল্লেখ্য, বুধবার (২১মার্চ) দুপুর আড়াইটার দিকে ভিক্ষু ও শ্রবণসহ ১০জনের একটি পূজারী দল নৌকাযোগে উপজেলার ফারুয়া ইউনিয়নে বৌদ্ধ ভিক্ষু ডা, দীপংকর মাহাথির ভান্তের সাথে দেখা করার যাত্রা করে। এসময় পূজারীদের বহনকারী নৌকাটি ওই ইউনিয়নের উলুছড়িস্থ মাসকুমড়া নামক এলাকায় পৌঁছলে বুধবার (২১মার্চ) দুপুর আড়াইটার দিকে ভিক্ষু ও শ্রবণসহ ১০জনের একটি পূজারী দল নৌকাযোগে উপজেলার ফারুয়া ইউনিয়নে বৌ্দ্ধ ভিক্ষুক ডা. দীপংকর মাহাথির ভান্তের সাথে দেখা করার যাত্রা করে।

এসময় পূজারীদের বহনকারী নৌকাটি ওই ইউনিয়নের উলুছড়িস্থ মাসকুমড়া নামক এলাকায় পৌঁছলে পাহাড়ে ওঁৎ পেতে থাকা সশস্ত্র সন্ত্রাসীরা পূজারীদের লক্ষ করে ১০-১২ রাউন্ড গুলি ছুড়লে নৌকায় অবস্থান করা এক শিশু সুনীল তঞ্চঙ্গ্যা (০৯) এবং সুন্দর বাবু চাকমা (২১) নামের এক যুবক গুলিবিদ্ধ হয়। বর্তমানে আহতরা উপজেলা স্বাস্থ্যকমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন রয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *