বাড়িতে ঢুকে কিশোরীকে জোরপূর্বক ধর্ষণ: এলাকায় মিশ্র প্রতিক্রিয়া


উখিয়া প্রতিনিধি:

বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে কিশোরীকে জোরপূর্বক ধর্ষণের অভিযোগে উখিয়া উপজেলার রত্নাপালং ইউনিয়নের ভালুকিয়াপালং গ্রামের সোনা আলীর পুত্র মো. রফিক আলম (২৮) নামক এক যুবকের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেছে ধর্ষিতা যুবতী। এদিকে কিশোরী ধর্ষণের ঘটনায় মিশ্র প্রতিক্রিয়াসহ লম্পট রফিকে গ্রেফতারের দাবি জানিয়েছেন গ্রামবাসী।

দায়েরকৃত মামলার এজাহার সূত্রে জানা যায়, নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার ঘুমধুম ইউনিয়নের ৯নং ওয়ার্ডের ভালুকিয়াপাড়ার মৃত জালাল আহম্মদের কন্যা রেশমি আক্তার (১৫) গত ১৫ সেপ্টেম্বর সকালে ধর্ষণের শিকার হয়। ওই সময় মা গোলতাজ বেগম গরু চড়ানোর জন্য পাশ্ববর্তী পাহাড়ে যায়। তার অনুপস্থিতির সুযোগে লম্পট রফিক আলম বাড়িতে ঢুকে একা পেয়ে কিশোরী রেশমিকে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে।

এসময় বাধা দেওয়ার চেষ্টা করলেও লম্পট রফিকের হাত থেকে রক্ষা পায়নি কিশোরী। ঘটনাটি জানাজানি হলে এলাকায় ধর্ষণের বিরুদ্ধে স্থানীয় গ্রামবাসী ফুসে উঠে। এ ব্যাপারে ধর্ষিতা কিশোরী বাদী হয়ে লম্পট রফিকের বিরুদ্ধে বান্দরবান নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল আদালতে মামলা দায়ের করেন। যার নং- ৪১/২০১৭ইং ।

এদিকে অসহায় দরিদ্র ঘরে জন্ম নেওয়া পিতৃহীন কিশোরী রেশমিকে ধর্ষণের ঘটনায় মামলা করায় স্থানীয় প্রভাবশালী মহল ধর্ষক রফিকের পক্ষ হয়ে মামলা তুলে নেওয়ার জন্য হুমকি দিচ্ছে। শুধু তাই নয় আসামী ধর্ষক রফিক গ্রেফতার এড়াতে বিদেশে পালিয়ে যাওয়ারও পরিকল্পনা নিয়েছেন বলে জানিয়েছেন স্থানীয় গ্রামবাসীরা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *