বান্দরবানে মার্মাদের বৌদ্ধ স্নান 


নিজস্ব প্রতিনিধি, বান্দরবান:

পার্বত্য জেলা বান্দরবানে মারমা নৃগোষ্ঠীর অন্যতম বৃহৎ সামাজিক উৎসব সাংগ্রাই। এই উৎসবের দ্বিতীয় দিনে প্রতিবছর আয়োজন করা হয় বুদ্ধ স্নান। এই ধারাবাহিকতায় বুদ্ধ মূর্তি স্নান করেছে বুদ্ধ ধর্মাবলম্বীরা। পুরনো সব গ্লানি আর পাপ থেকে মুক্তি পাওয়ার উদ্দেশ্যে পবিত্র পানি দিয়ে বুদ্ধ মূর্তি স্নান করে থাকেন বুদ্ধ ধর্মানুসারীরা।

রবিবার (১৪ এপ্রিল) বিকেলে বান্দরবান শহরের উজানীপাড়াস্থ সাঙ্গু নদীর তীরে এই আয়োজন করা হয়।

এর আগে বুদ্ধ ভিক্ষুরা মাথায় বৌদ্ধ মূর্তি নিয়ে শোভাযাত্রা সহকারে নদীর তীরে বুদ্ধ স্নানের উদ্দেশ্যে সমবেত হয়। এতে ধর্মদেশনা প্রদান করেন বান্দরবান রাজগুরু বুদ্ধ বিহারের প্রধান ভিক্ষু উ প ঞা জোত থের (উছাহ্লা ভান্তে)।

বুদ্ধ স্নান অনুষ্ঠানে পার্বত্যমন্ত্রী বীর বাহাদুর উশৈসিং এমপি উপস্থিত ছিলেন।

এসময় আরও উপস্থিত ছিলেন জেলা প্রশাসক মো. দাউদুল ইসলাম, পুলিশ সুপার জাকির হোসেন মজুমদার, ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠীর সাংস্কৃতিক ইনস্টিটিউটের পরিচালক মং নু চিং, সদর উপজেলা পরিষদের নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান একেএম জাহাঙ্গীর, পৌর মেয়র মোহাম্মদ ইসলাম বেবী, জেলা পরিষদ সদস্য লক্ষিপদ দাশ, মোজাম্মেল হক বাহাদুর, সিং ইয়ং ম্রারে, ফিলিপ ত্রিপুরা, ম্রাসা খিয়াংসহ গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ।

ধর্মীগুরু দ্বারা ধর্মদেশনা ও প্রার্থনার পর প্রধান অতিথিসহ শত শত বুদ্ধ ধর্মানুসারীরা চন্দন পানি দিয়ে বুদ্ধমূর্তি ধৌত করেন।

আগামীকাল সোমবার (১৫ এপ্রিল) উৎসব আয়োজন পরিষদের উদ্যাগে রাজার মাঠে মৈত্রী পানি বর্ষণ উৎসব হবে। একই সাথে চলবে ক্রীড়া প্রতিযোগিতা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। এছাড়াও জেলার প্রতিটি পাড়ায় পাড়ায় জলকেলীতে মেতে উঠবে মারমা জনগোষ্ঠির নারী-পুরুষ।

প্রসঙ্গত, বান্দরবানে ১৮২৬ সাল থেকে এই ধর্মীয় অনুষ্ঠান করে আসছে মারমারা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *