বান্দরবানে তিনপা সাইতারে ঝর্ণার পানিতে ২ পর্যটক নিখোঁজ


নিজস্ব প্রতিবেদক, বান্দরবান:
বান্দরবানের রুমায় তিনপা সাইতারে ঝর্ণায় বেড়াতে গিয়ে ২ পর্যটক নিখোঁজ হয়েছে। সোমবার বিকালে ঝর্ণায় নামলে স্রোতের টানে তারা নিখোঁজ হন।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানায়, রোয়াংছড়ি উপজেলার ভিতর দিয়ে একজন গাইডকে নিয়ে পাইন্দু ইউনিয়নের দর্শণীয় স্থান তিনপা সাইতারে ঝর্ণায় বেড়াতে যান ৭ জনের একটি পর্যটক দল। ঝর্ণায় ছবি তুলতে পা পিছলে গিয়ে এসময় স্রোতের টানে ভেসে যায় ২ জন পর্যটক।

তারা হলেন চট্টগ্রামের ফটোগ্রাফার শহিদুল ইসলাম(২৭) ও আইটি বিশেষজ্ঞ মোহাম্মদ হোজগাতুন গণি(৩৬)।

নিখোঁজের পর সফরসঙ্গী ও শুক্রামনি পাড়াবাসীদের নিয়ে ঝর্ণায় অনেক খোজাখুজির পর তাদের সন্ধান পায়নি। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলের দিকে রওনা দিয়েছেন পুলিশ ও আইনশৃঙ্খখলা বাহিনী।

প্রশাসন সূত্রে জানা যায়, মঙ্গলবার সকালে ফায়ার সার্ভিসের ডুবরী দল ঘটনাস্থলের উদ্দেশ্য রওনা দিবে। স্থানীয়দের সহায়তায় অভিযান পরিচালনা করবে।

জানা গেছে গতকাল রোববার বিকালে সাতজনের একটি পর্যটক দল রোয়াংছড়ি উপজেলা সদরে সেনা ক্যাম্পে জানিয়ে পর্যটন স্থান তিনাপ সাইতার’ উদ্দেশ্যে রওয়ানা দেন। পথে রনিন পাড়ায় রাত কেটে পরদিন সোমবার(০৪-০৯-২০১৭) দুপুরে পর্যটন স্পট ”তিনাপ সাইতারে” পৌঁছান।সেখানে সময় কাটান তারা।

বিকেল তিনটার দিকে সাতার কাটতে গিয়ে শ্রোতের তোড়ে ভেসে যায় দুইজন।তাদের অনেক খোঁজাখুজি করে না পেয়ে গাইডসহ বাকী ছয়জন পার্শ্ববতী শুক্রমনি পাড়ায় অবস্থান করছে এখন।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার(ইউএনও) মুহাম্মদ শরিফুল ইসলাম পার্বত্যনিউজকে জানান কাল নিখোঁজ দুইজনকে উদ্ধার করতে কাল(০৫-০৯-২০১৭) ভোরে চট্টগ্রাম থেকে ডুবরিসহ ফায়ার সার্ভিসের একটি টিম আসবেন।

পর্যটক চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র নূর হোসেন বলেন, রুমা উপজেলা সদর থেকে আমরা ৭ জন থিনাপ ঝর্ণা দেখতে যায়। বিকালে ঝর্ণার পানিতে নামার পর ২ জনের পা পিছলে স্রোতের পানিতে ভেসে গিয়ে নিখোঁজ রয়েছেন।

রুমা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা শরীফুল ইসলাম জানান, দুর্গমাঞ্চল ও রাত হওয়ায় নিখোঁজ দু-পর্যটকের উদ্ধার অভিযান চালানো যাচ্ছেনা। সকালে ঘটনাস্থল’সহ আশপাশে অভিযান চালানো হবে।


আপডেইট

শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত জানা গেছে, পর্যটক ২ জন শেষ পর্যন্ত গতরাতেই উদ্ধার করা হয়েছে বলে আমাদের স্থানীয় প্রতিবেদক টেলিফোনে নিশ্চিত করেছেন।

image_pdfimage_print

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *