বাঘাইছড়ির পৌর নির্বাচনে কে হচ্ছেন বিএনপি প্রার্থি


%e0%a6%ac%e0%a6%be%e0%a6%98%e0%a6%be%e0%a6%87%e0%a6%9b%e0%a7%9c%e0%a6%bf-%e0%a6%a8%e0%a6%bf%e0%a6%b0%e0%a7%8d%e0%a6%ac%e0%a6%be%e0%a6%9a%e0%a6%a8

বাঘাইছড়ি প্রতিনিধি:
গত ২২ নভেম্বর ২০১৬ বাঘাইছড়ি পৌরসভার নির্বাচিত পরিষদের মেয়াদ শেষ হয়েছে। নিয়ম অনুযায়ী তিন মাসের মধ্যে তফশিল ঘোষণা করবে নির্বাচন কমিশন। এরই মধ্যে শুরু হয়েছে নির্বাচনী দৌড় ঝাপ, লবিং, তদবির এবং ভোটারদের মন জয়ের নানান চেষ্টা।

মাঠ পর্যায়ে খোজ নিয়ে জানা যায়, বাঘাইছড়ি পৌর নির্বাচনে বিএনপি থেকে টিকিট পেতে চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন তিন নেতা, এদের মধ্যে দুজনই যার যার অবস্থান থেকে আশাবাদী।

 বাঘাইছড়ি নির্বাচনে দলীয় মনোনয়ন পেতে আগ্রহী বিএনপি নেতা সেলিম উদ্দীন বাহার পার্বত্যনিউজকে জানান, আমি দীর্ঘদিন যাবৎ দলের সাথে জড়িত। ১৯৯০ সালে ছাত্রদলের সভাপতি থেকে রাজনীতির হাতে খড়ি। ২০০৩ সালে শ্রমিক দল, বাঘাইছড়ি উপজেলা শাখার সভাপতি ও জেলা শাখার যুগ্ন সম্পাদক এবং ২০০৯ সালে বাঘাইছড়ি উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক ও রাঙ্গামাটি জেলা বিএনপির সহআইন বিষয়ক সম্পাদক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছি।

দলের স্বার্থে বেশ কয়েকবার জেল জুলুমের শিকার হয়েছি। এলাকার গরীব, দুঃখী, মেহনতী ও বাস্তহারা মানুষের জন্য নিজ উদ্যেগে বাসস্থানসহ পূনর্বাসনের ব্যবস্থা করেছি। সুখে দুঃখে মানুষের পাশে ছিলাম, আছি এবং ভবিষ্যতেও থাকবো ইনশাআল্লাহ। সে কারণে আমি দলীয় মনোনয়ন পাওয়ার আশা করছি। তবে দল যাকে দেবে তার পক্ষেই কাজ করবো।

অপর বিএনপি নেতা বাঘাইছড়ি উপজেলা বিএনপির সভাপতি জনাব ওমর আলীও  দলীয় নমিনেশন প্রত্যাশী বলে জানা যায়। তার বিরুদ্ধে অভিযোগ রয়েছে, তিনি ১৯৯৬ সালে স্বার্থের লোভে আওয়ামীলীগে যোগদান করে সুবিধা বুঝে আবার বিএনপিতে এসে সভাপতি হয়ে যায়।

পার্বত্যনিউজ প্রতিবেদকের আলাপ প্রসঙ্গে মো. ওমর আলী বলেন আমি দীর্ঘদিন দলের সাথে আছি। জিয়ার আদর্শকে লালন করে বাঘাইছড়ি পৌর যুবদলের সভাপতি ,ইউনিয়ন বিএনপির সহ-সভাপতি এবং বর্তমানে বাঘাইছড়ি উপজেলা বিএনপি’র সভাপতির দায়িত্ব পালন করছি। তাই আশাবাদি দল আমাকে সুযোগ দিবে।

তিনি আরো বলেন, আমার জন্মলগ্ন থেকে আমি এলাকার মানুষের পাশে আছি।আমাদের সাংগঠনিক অবস্হাও ভালো। বাঘাইছড়িকে বিএনপির শক্ত ঘাঁটি বলা চলে। আমি জনগনের সেবা করতে চাই তাই দল তাকে নমিনেশন দিলে তিনি বিজয়ের ব্যাপারে শতভাগ আশাবাদি। তিনি আরও বলেন, তবে দল তাকে নমিনেশন না দিলে সর্বোচ্চ ফোরামের নির্দেশ মতে দলের প্রার্থীকে জেতানোর জন্যে কাজ করে যাবেন।

অপর দিকে বর্তমান মেয়র আলমগীর কবিরও পুণরায় নির্বাচন করতে বিএনপির নমিনেশন নেয়ার জন্য লবিং করছেন বলে স্থানীয়ভাবে গুঞ্জন আছে। তিনি একসময় বাঙালী ছাত্র পরিষদ নেতা ছিলেন। বিএনপিতে যোগ দিয়েছেন শোনা গেলেও স্থানীয়ভাবে বিএনপির কর্মকান্ডের সাথে খুব একটা সম্পৃক্ত নন। এছাড়াও বর্তমান মেয়র হিসাবে তার বিরুদ্ধে নানা অনিয়মের অভিযোগ রয়েছে। তার সাথে কথা বলতে তার ব্যক্তিগত মোবাইলে যোগাযোগ করতে চাইলে মোবাইল বন্ধ পাওয়াতে মতামত নেয়া সম্ভব হয়নি।

image_pdfimage_print

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *