বাইশারীর বিভিন্ন স্থানে পাহাড় কাটার ধুম


pahar-kata-copy

নাইক্ষ্যংছড়ি প্রতিনিধি :
বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার বাইশারীর বিভিন্ন স্থানে পাহাড় কাটার ধুম চললেও প্রশাসনের পক্ষ থেকে কোনো পদক্ষেপ নেওয়া হচ্ছে না। ইউনিয়নের বিভিন্ন স্থানে অবাধে পাহাড় কাটার ফলে প্রকৃতির খুটি পাহাড়গুলো এখন বিলীন হওয়ার পথে।

এদিকে অবাধে পাহাড় কাটার কারণে পাহাড় ও টিলা ধ্বসে মৃত্যুর ঝুঁকি দিন দিন বাড়ছে। পরিবেশের ভারসাম্য হারিয়ে মানুষের জীবনযাত্রা বিপন্ন হয়ে পড়ছে। পাহাড় কাটার ফলে একদিকে যেমন পরিবেশের ক্ষতি হচ্ছে, তেমনি এলাকার প্রাকৃতিক জীব বৈচিত্র্য, পশুপাখি হারিয়ে যাচ্ছে। পাহাড় কেটে জঙ্গল উজাড় করে ফেলায় এখন আর আগের মতো পশুপাখি দেখা যায় না। গত কয়েক বছরে পুরো নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলায় কয়েকশ’ পাহাড় কেটে সমান করা হয়েছে বলে প্রত্যক্ষদর্শীদের অভিযোগ।

সরেজমিনে ঘুরে দেখা যায়, উপজেলার বাইশারী ইউনিয়নের মধ্যম বাইশারী, ধাবনখালীপাড়া, পূর্ব বাইশারী, দক্ষিণ বাইশারী, লম্বাবিল, উত্তর বাইশারী, আলিমিয়াপাড়া, আলীক্ষ্যং ও কাগজিখোলার গ্রামগুলোতে চলছে পাহাড় কাটার উৎসব।

স্থানীয়দের অভিযোগ এলাকার কিছু প্রভাবশালী মহল ব্যাক্তি স্বার্থে সরকারী খাস ও ভোগ দখলীয় ভূমির পাহাড় কেটে সমান করছে আবার অনেক খতিয়ানভুক্ত পাহাড় থেকেও মাটি কেটে বিক্রি করা হচ্ছে। কিন্তু স্থানীয় প্রশাসন এ ব্যাপারে তেমন কোনো পদক্ষেপ গ্রহণ করছেন না।

জানা গেছে, ইউনিয়নের ৮নং ওয়ার্ডের পেটালআলী পাড়ায় জনৈক শামসুল আলম বিশালাকৃতির পাহাড় কেটে বিলীন করছেন। এছাড়াও মধ্যম বাইশারীতে হাজেরা খাতুন, ধাবনখালী পাড়ায় কবির কোং, লম্বাবিলে আবদুল জব্বার, উত্তর বাইশারীতে ইউনুছসহ অসংখ্য ব্যাক্তি পাহাড় কেটে ভূমি সমতল করার কাজে লিপ্ত রয়েছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *