বাইশারীতে ‘চাক’ সম্প্রদায়ের সাথে পুলিশ প্রশাসনের জরুরী সভা


img_5566-copy

বাইশারী প্রতিনিধি:

বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার বাইশারীতে চাক সম্প্রদায়ের ২০৮ পরিবারের সাথে সাম্প্রতিক মিয়ানমার সহিংসতা, বৌদ্ধ বিহারগুলোর নিরাপত্তা কমিটি গঠন, পাড়া, মহল্লায় পাহারা ও সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড প্রতিরোধে পুলিশ প্রশাসনের জরুরী বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়েছে।

মঙ্গলবার বিকাল ৪টার সময় চাক হেডম্যান পাড়া বৌদ্ধ বিহার প্রাঙ্গনে এই জরুরী সভার আয়োজন করা হয়। বাঁকখালী মৌজা হেডম্যান উ চা হ্লা চাকের পরিচালনায় সভাপতিত্ব করেন, বাইশারী ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ আলম কোম্পানী। উক্ত জরুরী বৈঠকে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাইশারী পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ উপ-পরিদর্শক আবু মুসা।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে উপস্থিত চাক সম্প্রদায়ের শত শত নারী পুরুষের মাঝে তিনি বলেন, পার্শ্ববর্তী রাষ্ট্র মিয়ানমারে ঘটে যাওয়া ঘটনা নিয়ে কোন ধরনের ভয় পাওয়ার কারণ নেই। পুলিশ প্রশাসন সার্বক্ষনিক আপনাদের পাশে রয়েছে। পাশাপাশি আপনাদের সকলকে পাড়ায়, মহল্লায় ও বৌদ্ধ বিহারে কমিটি গঠনের মাধ্যমে পাহারা দিতে হবে। এছাড়া তিনি আরও বলেন, পুলিশ প্রশাসন আপনাদের কোন ধরনের হয়রানী করবে না, বরং আপনাদের বন্ধু হিসেবে যতদিন দায়িত্বে থাকব কাজ করে যাব উল্লেখ করে তিনি পার্শ্ববর্তী রাষ্ট্র মিয়ানমারে চলমান সহিংসতার জের ধরে অত্র এলাকায় যাতে কোন রকম হামলা, ভাংচুর বা সহিংসতার সৃষ্টি না হয় সেদিকে সজাগ থেকে মন্দির ও বিহারগুলোর নিরাপত্তা রক্ষায় গুরুত্বারোপ করেন।

সভাপতির বক্তব্যে বাইশারী ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ আলম কোম্পানী বলেন, সম্প্রীতির বাইশারীতে দীর্ঘকাল যাবৎ যেভাবে পাহাড়ি-বাঙ্গালী এক পরিবারের সদস্য হিসেবে মিলেমিশে বসবাস করে আসছি এ সম্প্রীতি যেন নষ্ট না হয় সেদিকে সকলের সজাগ দৃষ্টি রাখতে হবে। তিনি আরও বলেন, মায়ানমারের ঘটনা নিয়ে আমাদের কেউ যেন বিতর্কে না জড়ায় সেদিকে লক্ষ্য রাখতে হবে এবং কোন ধরনের অপ্রীতিকর ঘটনার খবর পেলে মুহুর্তের মধ্যে যেন প্রশাসনকে অবগত করেন সে বিষয়ে সকলের চোখ-কান খোলার রেখে সতর্ক দৃষ্টি সহ রাত জেগে পাড়ায়-মহল্লায় পাহাড়া বসানোর আহ্বান জানান।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে বাইশারী ইউনিয়ন আওয়ামী সভাপতি জাহাঙ্গীর আলম বাহাদুর বলেন, ইতিপূর্বে বান্দরবানের বাইশারীতে পাহাড়ি-বাঙ্গালী সবাই এক মায়ের সন্তান হিসেবে বসবাস করে আসছি। আমাদের ভিতর কোন ধরনের বিরোধ নেই এবং ছিলনা। আগামীতেও আমরা যেন এক পরিবারের সদস্য হিসেবে হিংসা, বিদ্বেষ ভুলে গিয়ে থাকতে পারি সেজন্য সকলের প্রতি আহ্বান জানান। পাশাপাশি এলাকায় অপরিচিত লোকজনের আনা-গোনার খবর পেলে পরিষদ চেয়ারম্যান সহ পুলিশ প্রশাসনকে দ্রুত খবর দেওয়ার পরামর্শ দেন।

এছাড়া আরও বক্তব্য রাখেন বাইশারী তদন্ত কেন্দ্রের সহকারী ইনচার্জ এএসআই উমর ফারুক, ডিএসবির এএসআই মৃদুল, ইউপি সদস্য থোয়াইচাহ্লা চাক, আব্দুর রহিম, আবু তাহের, মাস্টার ধুংচাউ চাক, উচাহ্লা চাক, সাংবাদিক আব্দুল হামিদ। উক্ত জরুরী বৈঠকে আরও উপস্থিত ছিলেন সংবাদকর্মী আব্দুর রশিদ, মুফিজুর রহমান, মাস্টার রবিন চাক, উচাথোয়াই চাক, মংবাথোয়াই চাক প্রমূখ।

image_pdfimage_print

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *