বাইশারীতে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় ডাকাত সদস্যের লাশ উদ্ধার


বাইশারী প্রতিনিধি:

বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার বাইশারী ইউনিয়নের ৪নং ওয়ার্ড মুইঅং পাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় সংলগ্ন পশ্চিম পাশের বিলের মধ্যে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় এক ডাকাত সদস্যের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। শুক্রবার(২৩ ফেব্রুয়ারি) সকাল ৮টর সময় এ লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। নিহত ব্যক্তি রামু উপজেলার ঈদগড় ইউনিয়নের করলিয়ামুরা গ্রামের বাসিন্দা মৃত কালামিয়ার পুত্র মো. আব্দুর রশিদ (৩২) বলে প্রাথমিকভাবে সনাক্ত করেছে পুলিশ।

স্থানীয় গ্রামের বাসিন্দারা জানান, সকালে ঘুম থেকে উঠে লাশটি দেখতে পেয়ে তারা ঘটনাটি স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান ও পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রে জানান।

বাইশারী পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ মো. আবু মুসা জানান, সকালে তিনি খবর পেয়ে দ্রুত ঘটনাস্থলে পৌঁছান এবং আশপাশের লোকজনকে জিজ্ঞাসাবাদে লাশটি পার্শ্ববর্তী এলাকার বাসিন্দা মৃত কালামিয়ার পুত্র বলে সনাক্ত করা হয়। প্রাথমিকভাবে সুরতহাল শেষে ময়না তদন্তের জন্য লাশটি উদ্ধার করে বান্দরবান সদর হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে। তার শরীরের মধ্যে পিঠে ও মাথায় গুলির চিহ্ন পাওয়া গেছে।

তিনি আরো জানান, নিহত আব্দুর রশিদের বিরুদ্ধে রামু ও নাইক্ষ্যংছড়ি থানায় বেশ কয়েকটি ডাকাতি ও অপহরণ মামলা রয়েছে। তিনি ধারণা করেছেন হয়ত টাকার ভাগ-বাটোয়ারা ও ঝগড়া বিবাদ নিয়ে এ ঘটনার সূত্রপাত হতে পারে। এছাড়া সে অপহরণ চক্রের মূল হোতা আনোয়ার ডাকাত প্রকাশ আনাইয়া গ্রুপের সেকেন্ড ইন কমান্ড বলে জানান। ঘটনাস্থল থেকে পুলিশ একটি দা এবং একটি টর্চ লাইটের ব্যাটারি ও মাপলার আলামত হিসেবে উদ্ধার করা হয়েছে।

ইউপি চেয়ারম্যান মোহাম্মদ আলম জানান, এলাকার লোকজনের মাধ্যমে খবর পেয়ে তিনি ঘটনাটি সাথে সাথে পুলিশকে অবহিত করেছেন।

স্থানীয় গ্রামের বাসিন্দা ক্যচিং মার্মাসহ অনেকে জানান, ২২ ফেব্রুয়ারি (বৃহস্পতিবার) রাতে তারা ওই এলাকায় বেশ কয়েক রাউন্ড গুলির শব্দ শুনতে পেয়েছে। যার ফলে পুরো উপজাতীয় গ্রামবাসী আতঙ্কে ছিল বলেও জানান।

নিহতের স্ত্রী রিনা আক্তার জানান, বৃহস্পতিবার রাতে খাবার খেয়ে তার স্বামী বাড়ি থেকে বের হয়ে আর ফিরে আসেনি। এখন সে গুলি বিদ্ধ অবস্থায় দেখতে পায়। তার দুই ছেলে এক মেয়ে রয়েছে। সে আরো জানান, তার স্বামীর বিরুদ্ধে মামলা থাকায় ভয়ে বাড়িতে রাত যাপন করে না।

নাইক্ষ্যংছড়ির ৩১ বিজিবির একটি টহল দল সুবেদার খোরশেদ আলমের নেতৃত্বে ঘটনাস্থল পুরিদর্শন ও আশে পাশের এলাকায় অভিযান পরিচালনা করছেন বলেও জানান।

নাইক্ষ্যংছড়ি থানার অফিসার ইনচার্জ মো. আলমগীর শেখ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, তিনি ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন এবং লাশটি উদ্ধার পূর্বক ময়না তদন্তের জন্য বান্দরবান সদর হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে এবং সংশ্লিষ্ট আইনে মামলার প্রস্তুতি চলছে বলেও জানান।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *