বাংলাদেশ থেকে ‘ইন্টারন্যাশাল স্কুল অ্যাওয়ার্ড’র জন্য মনোনীত দুই প্রাথমিক বিদ্যালয়ের একটি বান্দরবানের আলীকদম


Alikadam Compat Para Govt School Pic copy

আলীকদম প্রতিনিধি:

বান্দরবানের আলীকদম উপজেলার চম্পট পাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ইন্টরন্যাশনাল স্কুল অ্যাওয়ার্ড (আইএসএ) পাওয়ার জন্য মনোনীত হয়েছে। মঙ্গলবার ব্রিটিশ কাউন্সিলের ‘স্কুলস্ অনলাইল’ থেকে পাঠানো ইমেইল বার্তা থেকে এ তথ্য জানা গেছে।

সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, চম্পট পাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারি শিক্ষক জয়নব আরা বেগম গত ২০১৩ সাল থেকে মাল্টিমিডিয়া কন্টেন্ট তৈরী করে আসছেন। সেখানে কৃতিত্বের স্বাক্ষর রাখায় তিনি ২০১৪ সালের ৬ মে শিক্ষামন্ত্রীর নিকট হতে ‘সেরা শিক্ষক অ্যাওয়ার্ড’ লাভ করেন। স্কুলস্ অনলাইন পার্টনারশীপ প্রোগ্রামের আওতায় তিনি ২০১৫ সালের ৫-২১ জুলাই পর্যন্ত লন্ডন সফর করেন। স্থানীয়ভাবে দীর্ঘদিন নানা প্রতিবন্ধকতা সত্বেও ব্রিটিশ কাউন্সিলের স্কুল কানেক্টিং ক্লাসরূম বাংলাদেশ প্রকল্পে তিনি কাজ করে যাচ্ছেন।

ব্রিট্রিশ কাউন্সিলের কো-অর্ডিনেটর এসএম তাহমিনার পাঠানো ইমেইল বার্তায় বলা হয়, দেশের ৩৫টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ইন্টারন্যাশনাল স্কুল অ্যাওয়ার্ড (আইএসএ) পাওয়ার জন্য মনোনীত হয়েছে। এরমধ্যে প্রাথমিক, মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক প্রতিষ্ঠান অন্তর্ভূক্ত। ৩৫টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের মধ্যে প্রাইমারি স্কুল রয়েছে শুধুমাত্র ২টি। অ্যাওয়ার্ডভূক্ত শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের মধ্যে ‘চম্পট পাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়’ তালিকার ১২ নম্বরে রয়েছে।

এ অর্জন সম্পর্কে জানতে চাইলে সংশ্লিষ্ট বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক জয়নব আরা বেগম বলেন, এ অর্জনের জন্য আমাকে ব্যক্তিগতভাবে প্রচুর সময় দিতে হয়েছে। কাজ করতে গিয়ে পারিপার্শ্বিক পরিবেশ থেকেও পেয়েছি যথেষ্ট বাঁধা। নিজের জীবনের নিরাপত্তা চেয়ে থানায় জিডিও করতে হয়েছে। আমি এ অর্জন আমার প্রধান শিক্ষক এবং ছাত্র-ছাত্রীদের নামে উৎসর্গ করলাম!

বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি নুরুল আলম বলেন, কিছুটা সংকট থাকা সত্ত্বেও সকলের প্রচেষ্টায় আমার স্কুলটি এই আন্তর্জাতিক অ্যাওয়ার্ড পাওয়ার জন্য মনোনীত হওয়ায় আমরা সকলেই খুশি।

উপজেলা শিক্ষা অফিসার বাসুদবে কুমার সানা বলেন, এ্যাওয়ার্ডভূক্ত হওয়ার বিষয়টি শুনেছি। এ অর্জনে আলীকদমবাসী খুশি। প্রত্যন্ত এলাকার একটি স্কুল আন্তর্জাতিক অ্যাওয়ার্ড পাওয়া নিশ্চয়ই গৌরবের। পাশাপাশি এ উপজেলার প্রাইমারি বিদ্যালয়ের শিক্ষক সমাজ ও আমরা সকলে গর্বিত।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *