বাংলাদেশ আর মুক্তিযুদ্ধকে বাঁচাতে হলে আওয়ামীলীগকে বাঁচাতে হবে



রামু প্রতিনিধি:
বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক, সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের এমপি বলেছেন, বাংলাদেশকে বাঁচাতে হলে আওয়ামীলীগকে বাঁচাতে হবে, মুক্তিযুদ্ধকে বাঁচাতে হলে আওয়ামীলীগকে বাঁচাতে হবে। তত্ত্বাবধায়ক সরকারের অধীনে নির্বাচন আয়োজনের যে দিবাস্বপ্ন বিএনপি দেখছে তা কখনো সফল হবে না। এদেশে নির্বাচন হবে সংবিধান মতে। কারো ব্যক্তিগত ইচ্ছায় সংবিধান পরিবর্তন হবে না।

তিনি শনিবার (৪ নভেম্বর) রাতে রামু চৌমুহনী স্টেশন চত্বরে আয়োজিত বিশাল জন সভায় এসব কথা বলেন। উপজেলা আওয়ামীলীগ ও অঙ্গসংগঠনের উদ্যোগে আয়োজিত সমাবেশে সভাপতিত্ব করেন, কক্সবাজার-৩ (সদর-রামু) আসনের সংসদ সদস্য আলহাজ সাইমুম সরওয়ার কমল।

সমাবেশে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন, আওয়ামীলীগের কার্য নির্বাহী কমিটির যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক মাহবুবুল আলম হানিফ, যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর কবির নানক, সাংগঠনিক সম্পাদক (চট্টগ্রাম বিভাগ) এনামুল হক শামীম, সাংগঠনিক সম্পাদক (ঢাকা বিভাগ) চৌধুরী মহীবুল হাসান নওফেল, উপ-প্রচার সম্পাদক আমিনুল ইসলাম আমিন, উপ-দপ্তর সম্পাদক বিপ্লব বড়ুয়া, সংসদ সদস্য আশেক উল্লাহ রফিক, কক্সবাজার জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি এডভোকেট সিরাজুল মোস্তফা, সাধারণ সম্পাদক মুজিবুর রহমান চেয়ারম্যান, রামু উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও উপজেলা যুবলীগ সভাপতি রিয়াজ উল আলমের সঞ্চালনায় সমাবেশে বিশেষ অতিথি হিসেবে আরো বক্তব্য রাখেন, কক্সবাজার জেলা আওয়ামীলীগের সহ সভাপতি জাফর আলম চৌধুরী, মহিলা বিষয়ক সম্পাদক মুসরাত জাহান মুন্নী, রামু উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার নুরুল হক চেয়ারম্যান, কক্সবাজার জেলা পরিষদ সদস্য শামসুল আলম চেয়ারম্যান ও নুরুল হক কোম্পানী, বিশিষ্ট আওয়ামীলীগ নেতা মুক্তিযোদ্ধা ফরিদ আহমদ মাস্টার, চাকমারকুল ইউপি চেয়ারম্যান নুরুল ইসলাম সিকদার, ফতেখাঁরকুল ইউপি চেয়ারম্যান ফরিদুল আলম প্রমুখ।

সমাবেশে সভাপতির বক্তব্যে সাংসদ সাইমুম সরওয়ার কমল বলেন, ব্যাপক উন্নয়ন কর্মকান্ডের কারনেই কক্সবাজার-রামুবাসীর আগামী নির্বাচনে নৌকা প্রতীককে জয়ী করবে। মন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের স্মরণীয় এ সফর নেতাকর্মীদের উজ্জীবিত করেছে। সমাবেশে দলকে চাঙ্গা এবং নেতাদের উজ্জীবিত রাখতে কেন্দ্রীয় নেতারা দিক নির্দেশনামূলক বক্তব্য রাখেন।

এদিকে মন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের রামু আগমনে গত কয়েকদিন ধরে উৎফুল্ল ছিলেন আওয়ামীলীগ ও অঙ্গসংগঠনের নেতাকর্মীরা। মন্ত্রীকে পেয়ে সভাস্থলে তারা ছিলেন উজ্জীবিত। তাঁর আগমনকে ঘিরে রামুর মহাসড়ক ও উপ-সড়কগুলো তোরন, ব্যানার-ফেষ্টুনে ছেয়ে যায়। দুপুরের পর থেকে রামুর প্রত্যন্ত এলাকা থেকে আওয়ামীলীগ ও অঙ্গসংঠনের নেতাকর্মী ও জনপ্রতিনিধিদের নেতৃত্বে ছোট-বড় মিছিল রামু চৌমুহনী স্টেশনে আসতে থাকে। পড়ন্ত বিকালে কানায় কানায় ভরে যায় সমাবেশস্থল।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *