বাংলাদেশের মানুষের মানবিকতা এবং সহায়তায় হৃদয় ছুঁয়ে গেছে- ফিলিপ গ্রান্ডি


নিজস্ব প্রতিবেদক, বান্দরবান:
মিয়ানমার থেকে নির্যাতনের মুখে পালিয়ে আসা রোহিঙ্গাদের প্রতি বাংলাদেশের মানুষের মানবিকতায় এবং সহায়তা দেখে হৃদয় ছুঁয়ে গেছে বলে জানিয়েছেন জাতিসংঘের শরণার্থী বিষয়ক হাইকমিশনার ফিলিপ গ্রান্ডি।

গ্রান্ডি বলেন, বাংলাদেশের মানুষ রোহিঙ্গাদের প্রতি যেভাবে প্রতিদিন ত্রাণ সামগ্রী ও অর্থ দিয়ে সাহায্যের হাত বাড়াচ্ছে তা খুবই বিরল। প্রতিদিন হাজার হাজার বাংলাদেশি বিভিন্ন ত্রাণ সামগ্রী নিয়ে রোহিঙ্গাদের কাছে ছুটে আসছে। বাংলাদেশ সরকার রোহিঙ্গাদের জন্য যে মানবিকতা ও উদারতা দেখিয়েছে তার জন্য তিনি সরকারের কাছে কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন।

ফিলিপ গ্রান্ডি শনিবার উখিয়ার কুতুপালং, বালুখালি ও থাইনখালি রোহিঙ্গা শরণার্থী ক্যাম্প পরিদর্শন শেষে রোববার সংবাদ সম্মেলনে এ অভিমত ব্যক্ত করেন।

ফিলিপ গ্রান্ডি বলেন, পালিয়ে আসা রোহিঙ্গাদের সাথে আমি নিজে কথা বলেছি। তাদের কারো হাত নেই, কারো পা নেই। অনেকেই শরীরে বুলেট ও আঘাত নিয়ে প্রাণ ভয়ে পালিয়ে এসেছে। রোহিঙ্গারা যে বর্ণনা দিয়েছেন এবং তাদের শরীরে যে আঘাত রয়েছে তা খুবই নির্মম।

অনেকের শরীরে আঘাত না থাকলেও তারা সবাই ট্রমায় (মানসিক আঘাত) ভুগছেন। কারণ তারা যে নির্যাতন দেখে এসেছেন, বিশেষ করে শিশুরা, যারা বাবা-মাসহ প্রিয়জন হারিয়ে এসেছে তাদের মানসিক আঘাতটা বেশি। রোহিঙ্গাদের মানসিক আঘাত দুর করতে দীর্ঘ মেয়াদি পরিকল্পনা নিতে হবে বলে জানান তিনি।

রোহিঙ্গা সমস্যার একমাত্র সমাধান মিয়ানমারকে দিতে হবে। তাই রোহিঙ্গাদের ওপর নির্যাতন বন্ধ করে দ্রুত রাখাইন রাজ্যে শান্তি ফিরিয়ে আনার আহ্বান জানান ফিলিপ গ্রান্ডি।

রোহিঙ্গা শরণার্থীদের সব ধরনের আন্তর্জাতিক সহায়তা দেয়ার কথা জানিয়ে গ্রান্ডি বলেন, রোহিঙ্গাদের দ্রুত মিয়ানমারে ফিরিয়ে নেয়ার ব্যাপারে তারা প্রস্তুত আছেন। মিয়ানমার সরকার রোহিঙ্গাদের জন্য রাখাইনে নিরাপদ পরিবেশ সৃষ্টি করলে ইউএনএইসসিআর রোহিঙ্গাদের প্রত্যাবাসনে সহায়তা করবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *