parbattanews bangladesh

বর্তমান সরকারের আন্তরিকতায় ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠিদের স্ব-স্ব ভাষায় শিক্ষা লাভের সুযোগ পেয়েছে: দীপংকর

নিজস্ব প্রতিনিধি:

বর্তমান সরকার পাহাড়ের মানুষের প্রতি আন্তরিক বলেই ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠিদের স্ব-স্ব ভাষায় শিক্ষা লাভের সুযোগ করে দিয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন সাবেক পার্বত্য প্রতিমন্ত্রী দীপংকর তালুকদার।

তিনি বলেন, সরকার বছরের প্রথম দিনেই পার্বত্য অঞ্চলের শিক্ষা প্রতিষ্ঠাগুলোতে সাধারণ বইয়ের পাশাপাশি নৃ-গোষ্ঠি শিক্ষার্থীদের মাঝে পাঠ্যবই বিনামূল্যে বিতরণ করছে তাদের উন্নত শিক্ষার লাভের জন্য। কারণ আওয়ামী লীগ সরকার শিক্ষাবান্ধব সরকার। জাতিকে শিক্ষিত করতে বর্তমান সরকার বিভিন্ন পদক্ষেপ গ্রহণ করেছেন এবং তা যথাযথভাবে বাস্তবায়ন করছেন।

তিনি বলেন, বর্তমান সরকার শিক্ষার উন্নয়নে বেসরকারি স্কুল ও কলেজ জাতীয়করনের পাশাপাশি প্রতিটি উপজেলায়  সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় ও কলেজ করার পরিকল্পনা গ্রহণ করেছে। এছাড়া নতুন নতুন অবকাঠামো নির্মাণ কাজ চলমান রয়েছে। এ উন্নয়ন অব্যাহৃত রাখতে হলে এ সরকারের বিকল্প নেই।

সোমবার (১৯ মার্চ) সকালে রাঙ্গামাটির দুর্গম বরকল উপজেলাধীন মাধ্যমিক, নিন্ম মাধ্যমিক, প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ও স্কুল পরিচালনা কমিটির সভাপতিগণের সহিত শিক্ষার গুণগতমান উন্নয়ন শীর্ষক মতবিনিময়সভা ও বরকল মডেল উচ্চ বিদ্যালয়ের নব নির্মিত একাডেমি ভবনের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য তিনি এসব কথা বলেন।

জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান বৃষকেতু চাকমার সভাপতিত্বে মতবিনিময় সভায় অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, সংসদ সদস্য ফিরোজা বেগম চিনু, রাঙামাটি জেলা পরিষদ সদস্য সবির কুমার চাকমা, জেলা শিক্ষা কর্মকর্তা উত্তম খীসা, জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা (অঃদাঃ) মনছুর আলী চৌধুরী, বরকল উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা আব্দুল হান্নান পাটোয়ারী, বরকল মডেল উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক প্রভাত বিন্দু চাকমা, বরকল উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান সন্তোষ চাকমাসহ শিক্ষক ও স্কুল পরিচালনা কমিটির সভাপতি বক্তব্য রাখেন।

মতবিনিময় সভায় সাংসদ ফিরোজা বেগম চিনু বলেন, বর্তমান সরকার শিক্ষাকে গুরুত্ব দেয় বলে বিনামূল্যে বই বিতরণ, শিক্ষাবৃত্তি প্রদান, শিক্ষানীতি প্রনয়ন, শিক্ষা সহায়ক তহবিল ও শিক্ষার উন্নয়নে বিভিন্ন উন্নয়নমূলক পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে। যা অন্য কোন সরকার  এ ধরনের পদক্ষেপ গ্রহণ করেনি। এ সরকার অনুভব করেন শিক্ষিত জাতি ছাড়া দেশ কখনো এগিয়ে যাবেনা।

তিনি শিক্ষকদের উদ্দ্যেশে বলেন, শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদের মাঝে অভিভাবক ও বন্ধুসুলভ আচরনের মাধমে পাঠদান করাতে হবে। তবেই শিক্ষার্থীরা সহজেই লেখাপড়াকে লব্দ ও জ্ঞান অর্জন করতে পারবে। এই প্রজন্ম যদি সুশিক্ষায় শিক্ষিত হয় তাহলে তাদের মধ্যে খারাপ চিন্তা চেতনা কখনোই আসবেনা। তারা সমাজ তথা দেশের উন্নয়নে অগ্রণী ভুমিকা রাখবে।

সভাপতির বক্তব্যে জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান বৃষ কেতু চাকমা বলেন, ভবিষ্যৎ প্রজন্মকে গুরুত্ব দিয়ে মান সম্মত শিক্ষা শিক্ষার্থীদের মাঝে ছড়িয়ে দিতে হবে শিক্ষকদের। শিক্ষকদের গুরু দায়িত্ব হলো তার শিক্ষার্থীদের নিজের সন্তানের ন্যয় শিক্ষা দান করা। তিনি এসএমসি কমিটির সভাপতিদের উদ্দ্যেশে বলেন, নিজেদের বিদ্যালয়গুলো সঠিকভাবে পরিদর্শন করে পরিচালনা করলে শিক্ষক ও শিক্ষার্থীরা ফাঁকি দিতে পারবেনা। শিক্ষিত সমাজ গড়তে তিনি সরকারের পাশাপাশি সকলকে এগিয়ে আসার আহ্বান জানান। তিনি বরকল মডেল উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের জন্য ল্যপটপ প্রদানের প্রতিশ্রুতী ব্যক্ত করেন।

এর আগে বরকল মডেল উচ্চ বিদ্যালয়ের একাডেমি ভবন এবং জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর জন্মদিন উপলক্ষে বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের একটি দেয়ালিকা উদ্বোধন করেন অতিথিরা।