বঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের ভাষণ নিরস্ত্র বাঙ্গালী জাতিকে স্বশস্ত্র বাহিনীর চেয়ে অদম্য করে তুলেছিলো


রামু প্রতিনিধি:

বন ও পরিবেশ মন্ত্রণালয়ের সাবেক মন্ত্রী, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের প্রচার সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ এমপি বলেছেন, হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙ্গালী জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৭ মার্চের ঐতিহাসিক ভাষণের মাধ্যমেই বিশ্বের বুকে স্বাধীন বাংলাদেশের জন্ম হয়েছিলো। এ ভাষণের মাধ্যমে নিরস্ত্র বাঙ্গালী জাতি স্বশস্ত্র বাহিনীর চেয়ে অদম্য হয়ে উঠেছিলো। জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ঐতিহাসিক ৭ই মার্চের এ ভাষণ ইউনেস্কো কর্তৃক আন্তর্জাতিক প্রামাণ্যচিত্র হিসেবে স্বীকৃতি পেয়েছে। এ অর্জন বাঙ্গালী জাতির জন্য স্মরণীয় ও গৌরবের বিষয়। এ ভাষণের আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি দেশকে এগিয়ে নিতে প্রেরণা যোগাবে।

ড. হাছান মাহমুদ রামুতে ৭ দিনব্যাপী মুক্তিযুদ্ধের বিজয় মেলার ৬ষ্ঠ দিনের স্মৃতিচারণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন। তিনি আরো বলেন, আওয়ামী লীগ সরকার জনগণের সরকার। জনগণই আবার এ সরকারকে নির্বাচনের মাধ্যমে ক্ষমতায় আনবে। সরকার বিদ্যুৎহীন এলাকায় বিদ্যুৎ দিয়েছে। বয়স্ক ভাতা, শিক্ষার্থীদের উপ-বৃত্তি, প্রতিবন্ধি ভাতা, গর্ভকালীন ভাতা সহ জনগণকে সব ধরনের সহায়তা দিয়ে আওয়ামী লীগ সরকার অনন্য দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছে।

বিএনপির সমালোচনা করে সাবেক মন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ বলেন, যারা ক্ষমতায় গিয়ে নিজেদের আখের গোছায় জনগণ তাদের অতীতে প্রত্যাখান করেছে, আগামীতে করবে। তিনি জ্বালাও-পোড়াও বাদ দিয়ে শান্তিপূর্ণ পরিবেশে দলের কর্মসূচি পালন এবং সাংবিধানিক নিয়মে আগামী নির্বাচনে অংশ নেয়ার জন্য বিএনপি চেয়ারপার্সনের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন।

শনিবার (৩০ ডিসেম্বর) রাতে বিজয় মঞ্চে আয়োজিত স্মৃতিচারণ অনুষ্ঠানে শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন, রামু মুক্তিযুদ্ধের বিজয় মেলা উদযাপন পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ্ব সাইমুম সরওয়ার কমল এমপি। স্বাগত বক্তব্য রাখেন, রামু মুক্তিযুদ্ধের বিজয় মেলা উদযাপন পরিষদের মহাসচিব, রামু উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান রিয়াজ উল আলম।

রামু উপজেলা যুবলীগ সাধারণ সম্পাদক সাংবাদিক নীতিশ বড়ুয়ার সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ কক্সবাজার জেলার সহ-সভাপতি ও বিজয় মেলা উদযাপন পরিষদের উপদেষ্টা পরিষদ সদস্য মুক্তিযোদ্ধা জাফর আলম চৌধুরী, কক্সবাজার জেলা আওয়ামী লীগের মহিলা বিষয়ক সম্পাদক মুসরাত জাহান মুন্নী, মাস্টার ফরিদ আহমদ, উপজেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগ সাধারণ সম্পাদক তপন মল্লিক, আওয়ামী লীগ নেতা সৈয়দ মো. আবদু শুক্কুর, যুবলীগ নেতা পলক বড়ুয়া আপ্পু, নবীউল হক আরকান, সাংসদ কমলের একান্ত সচিব ও জেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগ নেতা মিজানুর রহমান, উপজেলা যুবলীগে স্বেচ্ছাসেবকলীগের সহ সম্পাদক আবু বক্কর ছিদ্দিক, রামু উপজেলা বঙ্গবন্ধু সৈনিকলীগ সভাপতি মিজানুল হক রাজা, ফতেখাঁরকুল ইউনিয়ন স্বেচ্ছাসেবকলীগ সভাপতি আজিজুল হক, উপজেলা ছাত্রলীগ নেতা সাদ্দাম হোসেন ও মোহাম্মদ নোমান, বঙ্গবন্ধু ছাত্র পরিষদের সভাপতি একরামুল হাসান ইয়াছিন প্রমুখ।

রাতে বিজয় মঞ্চে কক্সবাজার ও রামুর সাংস্কৃতিক সংগঠনের পরিবেশনায় মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান পরিবেশিত হয়।

উল্লেখ্য মুক্তিযুদ্ধের বিজয় মেলায় প্রতিদিনের অনুষ্ঠানে ছিলো, বীর মুক্তিযোদ্ধা, জাতীয় ও স্থানীয় রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দের স্মৃতিচারণ, মুক্তিযোদ্ধা সম্মাননা, আবৃত্তি, গান, নাটক। এছাড়াও মেলায় দেশি-বিদেশি পন্যের শতাধিক স্টল রয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *