প্রশাসনের নির্দেশ অমান্য করে মাংস ব্যবসায়ীদের অনির্দিষ্টকালের ধর্মঘট



কক্সবাজার প্রতিনিধি:
কক্সবাজার শহরে প্রশাসনের পক্ষ থেকে মূল্য নির্ধারণ করার প্রতিবাদে শুক্রবার (১ জুন) সকাল থেকে অনির্দিষ্টকালের ধর্মঘট পালন করছে মাংস ব্যবসায়ী সমিতি।

পবিত্র মাহে রমজান উপলক্ষে দ্রব্যমূল্য নিয়ন্ত্রণের জন্য কক্সবাজার পৌরসভা ও জেলা প্রশাসনের মনিটরিং কমিটি নিত্যপণ্যের তালিকা টাঙ্গানোর তাগিদ ও কিছু-কিছু পণ্যের দাম নির্ধারণ করে দেয়। মনিটরিং কমিটি দাম না বাড়িয়ে গরু ৪৫০ টাকা মূল্যে বিক্রির নির্দেশ দেন। এ নিয়ে ব্যবসায়ীদের সাথে একাধিকবার বৈঠকে বসলেও কোনো সুরাহা হয়নি। পরে শুক্রবার সকাল থেকে একযুগে বিক্ষুব্ধ মাংস ব্যবসায়ীরা বিক্রি বন্ধ করে ধর্মঘট পালন করছে। পরে তারা বড়বাজারে সংবাদ সম্মেলনও করে। কবির নামে এক মাংস ব্যবসায়ী ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, রমজানে সব পণ্যের দাম বাড়ায় বেশি দামে গরু কিনতে হচ্ছে। কিন্তু প্রশাসন পূর্বের দামেই মাংস বিক্রির নির্দেশ দিয়েছে। এদিকে ব্যবসায়ীদের ধর্মঘট পালনে সাধারণ ভোক্তাদের ভোগান্তির শিকার হতে হচ্ছে।

সরেজমিনে দেখা গেছে, মাংস বিক্রিতে কক্সবাজার শহরের বাজারগুলোতে চলছে চরম নৈরাজ্য। একেক বাজারে একেক দাম হাকিয়ে ঠকানো হচ্ছে ক্রেতাদের। খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, শহরের বড়বাজার, বাহারছড়া বাজার, কালুর দোকান বাজার, পিটিস্কুল বাজার ও কলাতলীবাজারে একেক দামে গরু, ছাগল ও মহিষের মাংস বিক্রি হয়ে আসছে। ব্যবসায়ীরা নিজেদের ইচ্ছেমত দাম ঠিক করে হাতিয়ে নিচ্ছে ক্রেতাদের কাছ থেকে। মাঝেমধ্যে কোন কোন বাজারে গরু মাংস বিক্রি হয় ৬’শ থেকে ৭’শ টাকা পর্যন্ত। এনিয়ে সাধারণ মানুষের মধ্যে চরম ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে।

দীর্ঘদিন এভাবে চলে আসলেও অবশেষে পৌরসভা ও প্রশাসন মাংসের ‘নির্দিষ্ট’ দর নির্ধারণ করেছে। কিন্তু সেই দর মানতে নারাজ ব্যবসায়ীরা। প্রয়োজনে বাজার বন্ধ করে ধর্মঘটে যাওয়ার হুঁশিয়ারি দিয়ে ধর্মঘট পালন করছে।

জানা গেছে, সম্প্রতি জেলা প্রশাসনের সাথে আলাপ করে শহরের বাজারগুলোর প্রতিনিধিদের ডেকে মাংসের দর ঠিক করে দেন কক্সবাজার পৌরসভার ভারপ্রাপ্ত মেয়র মাহবুুবুর রহমান। পৌরসভার নির্ধারিত দর অনুযায়ী শহরের বাজারগুলোতে গরুর মাংস বিক্রি হবে কেজি প্রতি ৪৫০ টাকা, মহিষ ৪৫০ টাকায় এবং ছাগল ৬৫০ টাকায়। কিন্তু ব্যবসায়ীরা তা না মেনে গরু মাংস বিক্রি করছে ৫০০ থেকে ৬০০ টাকায়। ব্যবসায়ীদের দাবী, সবদিক বিবেচনা না করেই মাংসের দর ঠিক করা হয়েছে। এতে ব্যবসায়ীদের চরম লোকসান হবে। বড়বাজারের ব্যবসায়ীরা জানান, গরু, ছাগল ও মহিষের এখন দাম চড়া। এই অবস্থায় গরু মাংস কেজি প্রতি ৪৫০ টাকায় বিক্রি করলে, তাদের ব্যবসা লাটে উঠবে।

ব্যবসায়ীদের দাবীর প্রতি ধিক্কার জানিয়েছেন ক্রেতারা। আবুল কালাম নামে এক ক্রেতা বলেন, অতি মুনাফা হাতিয়ে নেওয়ার জন্য ব্যবসায়ীরা চক্রান্ত করছে। এই চক্রান্ত কঠোরভাবে দমন করতে প্রশাসনের প্রতি আহ্বান জানান তিনি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *