পেকুয়ায় লিটন বাহিনীর গুলিতে ব্যবসায়ী আহত


পেকুয়া প্রতিনিধি:

কক্সবাজারের পেকুয়ায় চাঁদা না দেওয়ায় এক ব্যবসায়ীকে গুলি করেছে সন্ত্রাসীরা। রবিবার (১১ ফেব্রুয়ারি) সকাল সাড়ে ৮টায় উপজেলার সদর ইউনিয়নের গোঁয়াখালী বকসুচৌকিদার পাড়া এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। এসময় সন্ত্রাসীরা ২ রাউন্ড গুলি বর্ষণ করেছে বলে স্থানীয়রা জানান।

স্থানীয় প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, মরহুম ফরুখ আহমদ চৌধুরীর পুত্র ফখরুল ইসলাম চৌধুরী মানিক তার পৈত্রিক সম্পত্তি ফসলী জমিতে চাষের কাজ করছেন। এসময় স্থানীয় লিটন বাহিনীর প্রধান লিটন ও তার সহযোগীরা অস্ত্রশস্ত্রে সজ্জিত হয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে ফখরুল ইসলাম চৌধুরী থেকে চাঁদা দাবি করে। এতে সে চাঁদা দিতে অপরাগতা প্রকাশ করলে লিটন বাহিনীর প্রধান লিটন হেলালীসহ তার সহযোগীরা তার কাছ থেকে একটু দূরে সরে গিয়ে ফখরুল ইসলাম চৌধুরী কে লক্ষ করে গুলি চালায়। লিটন বাহিনীর প্রধান লিটন হেলালী একই এলাকার হেলাল উদ্দিনের পুত্র। তার বিরুদ্ধে চাঁদাবাজি, জবর দখল ও অস্ত্র আইনে একাধিক মামলা রয়েছে।

লিটন বাহিনীর সদস্যরা ক্ষমতাসীন দলের নাম ভাঙ্গিয়ে প্রকাশ্যে দিবালোকে অস্ত্রের মহড়া দিয়ে এলাকায় ভয়ভীতি ছড়িয়ে আসছে। তারই ধারাবাহিকতায় রবিবার সকালে লিটন বাহিনীর সশস্ত্র সদস্যসহ একই এলাকার মরহুম এমদাদ মিয়ার পুত্র ছৈয়দুল হক, মরহুম শহিদুল ওসমানের ছেলে আরমানুল ওসমান, ভাড়াটিয়া নেজাম উদ্দিন আছু, শফিউল আলম গুলি বর্ষণের ঘটনা ঘটায়। তাদের অত্যাচারে অতিষ্ট হয়ে উঠেছে স্থানীয় বাসিন্দা।

তথ্যে জানা যায়, জমির মালিক মরহুম ফরোখ আহমদ চৌধুরী গং এর আব্দুর রহিম জানান, হঠাৎ ঘটনার দিন এলাকার চিহ্নিত সন্ত্রাসীরা আমাদের সামনে এসে জমিতে কোন ধরনের কাজ না করতে নিষেধ করে। জমিতে চাষ করতে হলে তাদের উপযুক্ত চাঁদা দিতে হবে। চাঁদা দিতে অপরগতা প্রকাশ করলে লিটন ক্ষুদ্ধ হয়ে ফখরুল ইসলাম চৌং (৫৫)কে লক্ষ করে গুলি করে। স্থানীয় এলাকাবাসী এগিয়ে আসলে সন্ত্রাসীরা পালিয়ে যায়। স্থানীয় ও আহতের পরিবারের লোকজন তাকে উদ্ধার করে পেকুয়া সদর হাসপাতালে ভর্তি করেন। এদিকে গুলিবিদ্ধ ফখরুল ইসলামকে পেকুয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে দেখতে যান পেকুয়া থানার ওসি(তদন্ত) মনজুর কাদের মজুমদার।

পরে আহত ফখরুল ইসলাম চৌধুরী মানিককে কর্তব্যরত চিকিৎসক আশঙ্কাজনক অবস্থায় দুপুর সাড়ে বারটার দিকে চমেক হাসপাতালে প্রেরণ করে।

এ ব্যাপারে মামলার প্রস্তুতি চলছে বলে গুলিবিদ্ধের পরিবারের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে।

এনিয়ে আতঙ্কে রয়েছে এলাকাবাসী। বর্তমানে ওই এলাকায় থমথমে অবস্থা বিরাজ করছে। খবর পেয়ে পেকুয়া থানা পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে পেকুয়া থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) জহিরুল ইসলাম খান বলেন, এসআই সৌভ্রাত দাশ একদল পুলিশ নিয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। সূত্রে জানা গেছে, গুলি বর্ষণ, আহতের ঘটনায় আহতের পরিবারের পক্ষে একটি এজাহার দায়ের করা হয়েছে। তদন্ত পূর্বক আসামিদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *