পেকুয়ায় এক গৃহকর্মী নির্যাতনের শিকার থানায় মামলা


16

এমডি. জুবাইদ, পেকুয়া:
পেকুয়া উপজেলার সদর ইউনিয়নে এক কিশোরী গৃহকর্মীকে অমানবিক নির্যাতনের অভিযোগে থানায় মামলা দাযের করা হয়েছে। প্রত্যক্ষদর্শী ও নির্যাতনের শিকার গহকর্মী বলেন, ১২ অক্টোবর সকাল ১০ টার দিকে পেকুয়া থানার পশ্চিম পাশে মিয়া পাড়ার দারোগা জসিমের বাসার কাজের মেয়ে কিশোরী আকতার প্রতিবেশী আমিন উল্লাহর বাড়ীর আঙ্গিনার নলকুপের পানি আনতে গেলে আমিন উল্লাহর স্ত্রী নাছিমা বেগম, ইউনুচের স্ত্রী বুলবুল আক্তার ও আমিন উল্লাহর ছেলে ফরহাদ ওই কিশোরীকে ব্যাপক মারধর করে আহত করে। স্থানীয় বেলাল উদ্দিন, দিদার উদ্ধার করে পেকুয়া হাসপাতালে ভর্তি করে।

এ ঘটনায় দারোগা জসিমের স্ত্রী সেলিনা আকতার বাদী হয়ে পেকুয়া থানায় মারধর কারীদের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেছে। ওই গৃহকর্মী কিশোরী সাংবাদিকদের বলেন, হামলাকারী নাছিমা আকতার তার কাছ থেকে ৩০ টাকা পাওনা ছিল। টাকাগুলো পরে দেবে বললেও অনুরোধ না শুনে তিন জনে মিলে এলোপাতাড়ি মারধর করতে থাকে। স্থানীয় লোকজন বলেন, ওই দু গৃহবধুর উশৃংখল আচরণে এলাকার লোকজন অতিষ্ঠ হয়ে উঠেছে।

দারোগা জসিমের স্ত্রী সেলিনা আকতার বলেন, পিতা মাতার আশ্রয়হীন ওই কিশোরীকে আমি আশ্রয় দিয়েছি প্রায় সময় ওই দু গৃহবধু কিশোরীকে আমার বাড়ী থেকে অন্যত্রে চলে যেতে চেষ্টা চালিয়ে ব্যার্থ হয়ে নির্যাতন করে আমার দেয়া স্বর্ণালংকার কেড়ে নিয়েছে। তিনি আরো বলেন, দু গৃহবধু মিলে কিছুদিন পূর্বে আমার পালিত ৫টি মুরগী ধরে জবাই করে খেয়ে ধরা খেয়েছে যা স্থানীয়ভাবে বিচারও হয়েছে। স্

থানীয় সমাজ কমিটির মেম্বার   বেলাল বলেন,ওই দু গৃহবধুর ব্যাপরোয়া কর্মকান্ডের কারণে প্রতিদিন পাড়ার লোকজন অভিযোগ করছে। হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসক জানিয়েছেন কিশোরীর শরীরে ব্যাপক মারধরের আঘাত রয়েছে। এব্যাপারে পেকুয়া থানায় যোগাযোগ করা হলে এজাহার দায়ের সত্যতা পাওয়া যায় তবে এখনো তদন্ত করা হয়নি বলে জানান।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *