পার্বত্য চট্টগ্রামে ভূমি অধিগ্রহণে ৫০ ভাগ ক্ষতিপুরণ দেয়া হবে- ভিডিও কনফারেন্সে প্রধানমন্ত্রী


ভিডিও কনফারেন্সে প্রধানমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক:

পার্বত্য চট্টগ্রামে শান্তি চুক্তির আলোকে গঠিত পার্বত্য ভূমি বিরোধ নিস্পত্তি কমিশনের কাজ শেষে সমতল এলাকার মতো পার্বত্য চট্টগ্রামে সরকারের ভূমি অধিগ্রহণের ক্ষেত্রে ৫০ ভাগ ক্ষতিপূরণ দেওয়ার আশ্বাস দেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। রাঙামাটি মৌজা ও হেডম্যান প্রধানদের পক্ষে কেরোল চাকমা ভিডিও কনফারেন্সে সরকারী ভূমি অধিগ্রহনের ক্ষেত্রে দেশের অন্যস্থানে শতকরা ৫০ ভাগ ক্ষতিপুরণ দেয়া হলেও পার্বত্য চট্টগ্রামে শতকরা ১৫ ভাগ দেয়া হয় জানিয়ে প্রধানমন্ত্রীর কাছে দেশের অন্যান্য স্থানের মতো শতকরা ৫০ ভাগ ক্ষতিপুরণ দেয়ার দাবী জানালে প্রধানমন্ত্রী তাৎক্ষণিকভাবে এ নির্দেশ দেন।

শনিবার সকালে রাঙামাটি পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ড কমপ্রেক্স প্রাঙ্গনে প্রধানমন্ত্রীর সাথে রাঙামাটি জেলার তৃণমুল পর্যায়ের জনগনের সঙ্গে এ ভিডিও কনফারেন্সিং অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়।

pic1

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, রাঙামাটির কাপ্তাই হ্রদের শাখা নদী গুলোর ড্রেজিং ও রাঙামাটির কার্পেন্টার শিল্প ঘোষণার দাবীর বিষয়ে বিবেচনা করা হবে। রাঙামাটি শিক্ষা ব্যবস্থা প্রসঙ্গে তিনি বলেছেন, রাঙামাটিতে খুবই দ্রুত শিক্ষা ব্যবস্থা উন্নয়ন করা হবে এবং রাঙামাটি মহিলা কলেজসহ খাগড়াছড়ি ও বান্দারবানে একটি করে বাস দেওয়ার ঘোষণা তিনি।

এসময় অনুষ্ঠানে সংসদ সদস্য ঊষাতন তালুকদার, মহিলা সংসদ সদস্য ফিরোজা বেগম চিনু, পার্বত্য উন্নয়ন বোর্ডের ভাইস চেয়ারম্যান অরুন কান্তি ঘোষ,রাঙামাটি জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান বৃষকেতু চাকমা,রাঙামাটি জেলার পুলিশ সুপার সাঈদ তারিকুল হাসান, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস চ্যান্সেলর (ভিসি) ড.প্রদানেদু চাকমা, রাঙামাটি মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষ টিপু সুলতান রাঙামাটির জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ মানজারুল মান্নান, সাবেক পার্বত্য বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী দীপংকর তালুকদার এবং রাঙামাটি পৌর মেয়র আকবর হোসেন চৌধুরীসহ বিভিন্ন শ্রেণী পেশার মানুষ অংশগ্রহণ করেন।

ভিডিও কনফারেন্সিং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, রাঙামাটির কার্পেন্টার শিল্প ঘোষণার দাবীর বিষয়ে বিবেচনা করা হবে।  প্রধানমন্ত্রী রাঙামাটি সরকারী মহিলা কলেজকে একটি বাস প্রদানেরও প্রতিশ্রুতি দেন।

সাবেক পার্বত্য বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী ও রাঙামাটি জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি দীপংকর তালুকদার প্রধানমন্ত্রীর কাছে দাবি জানান, পাহাড়ে অবৈধ সশস্ত্র সন্ত্রাসীদের কাছ থেকে অস্ত্র উদ্ধারে বিশেষ ব্যবস্থা গ্রহণ করতে। এছাড়া সাধারণ মানুষের পক্ষ পার্বত্য হেডম্যান সমিতির পক্ষে পার্বত্য এলাকায় সরকার অধিগ্রহণকৃত ভূমির ক্ষতিপূরণের পরিমান সমতলের মতো ধার্য্য করতে এবং হেডম্যান ভাতা বৃদ্ধির দাবী জানান।

সন্ত্রাস জঙ্গীবাদ উগ্র-সাম্প্রদায়িকতা প্রতিরোধসহ সরকারের উন্নয়ন কর্মকাণ্ড নিয়ে এই ভিডিও কনফারেন্সিং রাঙামাটি জেলার বাঘাইছড়ি, বিলাইছড়ি, বরকল, লংগদু, জুরাছড়ি, নানিয়ারচর, কাপ্তাই, কাউখালী, রাজস্থলী উপজেলায়ও সরাসরি সম্প্রচার করা হয়।

image_pdfimage_print

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *