পাহাড়ে বিভিন্ন সন্ত্রাসীদের চাঁদাবাজি ও সন্ত্রাসী কার্যকলাপ কোনোভাবেই সহ্য করা হবে না: ব্রি. জেনারেল সাজেদুল ইসলাম


গুইমারা প্রতিনিধি:

পার্বত্য চট্টগ্রামে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি সৃষ্টির লক্ষ্যে নিরাপত্তা বাহিনী নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে। সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি অটুট থাকলে, উন্নয়নে অগ্রগতি হবে। পার্বত্য অঞ্চলকে  উন্নয়নের ধারাবাহিকতা অব্যহত রাখতে হলে সরকার ও নিরাপত্তা বাহিনীর পাশাপাশি গণমাধ্যম কর্মীদের ও ভূমিকা রাখতে হবে।

রবিবার (১৬ সেপ্টেম্বর) সকালে ২৪ আর্টিলারি ব্রিগেড গুইমারা রিজিয়ন কমান্ডার একেএম সাজেদুল ইসলাম গুইমারা রিজিয়ন সদর দপ্তরের কনফারেন্স হলে আয়োজিত সাংবাদিকদের সাথে মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন ।

এসময়ে তিনি আরও বলেন, শান্তি প্রতিষ্ঠিত হলে উন্নয়ন বাধাগ্রস্ত হবে না। বিনোদন প্রিয় পাহাড়ের মানুষের জন্য গুইমারায় রিসোর্ট বা পার্ক প্রতিষ্ঠাসহ সামাজিক নিরাপত্তার লক্ষ্যে চাদাঁবাজদের সকলে মিলে দমন করার জন্য অনুরোধ জানান তিনি।

তিনি আরো বলেন, বর্তমান সময়ে পার্বত্য চট্টগ্রামে বিরাজমান শান্ত পরিবেশকে নষ্ট করতে একটি স্বার্থান্বেষী কু-চক্রীমহল বিভিন্ন ধরণের অপপ্রচার চালিয়ে যাচ্ছে।তাদের ব্যাপারে সজাগ থেকে শান্তি ও সম্প্রীতি রক্ষায় ভুমিকা রাখাসহ পার্বত্য চট্টগ্রামের উন্নয়নে সাংবাদিকদের ভূমিকা রাখতে অনুরোধ জানান তিনি। সে সাথে বাংলাদেশ পার্বত্যাঞ্চলে নিরাপত্তা ও শান্তি প্রতিষ্ঠায় পাহাড়ে সেনাবাহিনী নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে বলে তিনি মন্তব্য করেন।

পাহাড়ে বিভিন্ন সন্ত্রাসীদের চাঁদাবাজি ও সন্ত্রাসী কার্যকলাপ কোনোভাবেই সহ্য করা হবে না মন্তব্য করে কমান্ডার বলেন, কঠোর হস্তে সন্ত্রাসীদের দমন করে পার্বত্য চট্টগ্রামে বসবাসরত বিভিন্ন জাতিসত্ত্বার মানুষের শান্তি প্রতিষ্ঠায় সেনা বাহিনীর লক্ষ্য। দেশের সার্বভৌমত্ব রক্ষায় সর্বোচ্চ ত্যাগ স্বীকার করতে সেনাবাহিনী সবসময় প্রস্তুত বলেও তিনি উল্লেখ করেন।

স্বার্থান্বেষী একটি মহল মিথ্যা অপপ্রচার চালিয়ে নিজেদের  চাদাঁবাজির জন্য ফেইক নিউজ প্রচার করে পাহাড়ের শান্ত  পরিবেশকে অশান্ত করতে  জাতীয় এবং আন্তর্জাতিক পর্যায়ে চেষ্টা চালাচ্ছে। যা সরকারসহ পার্বত্যবাসী কখনো কামনা করেন না। তাই ফেইক নিউজের বিরুদ্ধে  প্রতিষেধক হিসেবে সত্য তথ্য তুলে এনে প্রচারের মাধ্যমে দেশবাসীকে অবহিত করার আহ্বান ও জানান তিনি।

মতবিনিময় সভায় অন্যান্যদের মধ্যে আরও উপস্থিত ছিলেন, ব্রিগেড মেজর ফাহিম মোনায়েম হোসেন, রিজিয়নের জিটুআই মেজর মঈনুল আলম, মেজর মোহাম্মদ পারভেজসহ বিভিন্ন গণমাধ্যম প্রতিনিধিবৃন্দ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *