পানছড়ি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের একমাত্র এম্বুলেন্সটি বিকল হয়ে পড়ে আছে


নিজস্ব প্রতিবেদক, পানছড়ি:

জেলার পানছড়ি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের রোগী বহনকারী একমাত্র এম্বুলেন্সটি আবারো বিকল হয়ে প্রায় মাসের অধিক সময় ধরে আছে গ্রিলবন্ধী। ফলে পানছড়ির মূমূর্য রোগীরা নির্ভর হয়ে পড়েছে এনজিও সংস্থা ইপসা’র এম্বুলেন্সের উপর।

বৃহস্পতিবার (১৭ মে) সকাল ১১টা’র দিকে পানছড়িস্থ শান্তিনগর ক্যাম্পে হিল আনসার সদস্য কাজী জয়নাল গুরুতর অসুস্থ হলে পানছড়ি স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসা হয়। কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে খাগড়াছড়ি সদর হাসপাতালে প্রেরণ করলে এম্বুলেন্সের আশায় প্রায় ৪০ মিনিট অপেক্ষা করতে হয়। চাকা বিকল হওয়ায় সরকারি হাসপাতালের এম্বুলেন্সটি গ্রীলবন্ধী হয়ে পড়ে আছে- এই খবরে জানার পর ইপসা’র এম্বুলেন্স যোগে খাগড়াছড়ি সদর হাসপাতালে নিয়ে যায় রোগীর আত্মীয়-স্বজন ও সহকর্মীরা।

রোগীর আত্মীয় স্বজনরা ক্ষোভের সাথে জানান, প্রশাসনিক দূর্বলতার কারণে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের এই দুরবস্থা। এর আগেও এম্বুলন্সেটির চাকা বিকল হয়ে ছয় মাসের অধিক সময় অচল ছিল। পরবর্তীতে পানছড়ি উপজেলা প্রশাসন ও পরিষদের সহযোগিতায় বিশেষ বরাদ্দ দিয়ে তা মেরামত করা হয়। এখনও কি সেই বিশেষ বরাদ্দের আশায় আছে কিনা সেটাই প্রশ্ন ভুক্তভোগীদের।

কয়েকজন বললেন, এম্বুলেন্স ও এক্সরে মেশিন বছরের পর বছর ধরে বিকল থাকলেও চালক ও এক্সরে অপারেটরের বেতন কিন্তু সচল রয়েছে।

এ ব্যাপরে প্রশাসনের হস্তক্ষেপ চায় ভুক্তভোগীরা। এ ব্যাপারে উপজেলা স্বাস্থ্য ও প. প. কর্মকর্তা ডা. সনজীব ত্রিপুরা জানান, মাসখানেক ধরে এম্বুলেন্সের চাকা নষ্ট, তা সিভিল সার্জনকে জানানো হয়েছে। তিনি আশা করছেন সহসাই তা সচল হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *