পানছড়িতে খালা শাশুড়ীকে বিয়ে, শ্বশুর-জামাই ভায়রা



নিজস্ব প্রতিবেদক, পানছড়ি:

প্রথম বৌ ও দুই মেয়ে রেখে খালা শাশুড়ীকে বিয়ে করে চায়ের আসরে এক মুখরোচক গল্পের কাহিনী তৈরী করেছে টমটম চালক মো. আজিম (৩০)। সে খাগড়াছড়ির পানছড়ি উপজেলার ৩নং সদর পানছড়ি ইউপির হাসান নগর গ্রামের মো. সেরাজ মিয়ার ছেলে।

সরেজমিনে হাসাননগর গিয়ে জানা যায়, প্রায় সাত বছর আগে আজিম মাটিরাঙ্গা উপজেলার তবলছড়ি ইউপির গৌরাঙ্গ পাড়ার মো. জয়নাল ও রুনা আক্তারের মেয়ে পারভিনকে সামাজিকভাবে বিয়ে করে। তাদের সংসারে রয়েছে জান্নাতুল ফেরদৌস (৭)ও আয়শা আক্তার (২) নামে দুটি কন্যা সন্তান। বর্তমানে আজিম তার প্রথম বৌ পারভিনের খালা মাটিরাঙ্গা উপজেলার তবলছড়ি ইউপির আদর্শ গ্রামের গোলাম হোসেনের মেয়ে খালেদা আক্তার (১৪)কে বিয়ে করে আলোড়ন তুলেছে এলাকায়।

জানা গেছে, খালেদা পারভিনের সৎ মায়ের বোন। আজিমের খালা শাশুড়ী। সেই সূত্রে জামাই মো. আজিম ও তার শ্বশুর জয়নাল সম্পর্কে এখন ভায়রা ভাই। খালেদা যতন কুমার কার্বারী পাড়া নিম্ন মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ৮ম শ্রেণীতে অধ্যয়নরত ছিল। তাছাড়া সে প্রতিবন্ধী তার একটি হাত নেই।

জানা যায়, খালেদাকে বিয়ের পরই পারভিনের উপর নেমে আসে নির্মম অত্যাচার। বিয়ের সময় ছাড়াও দফায় দফায় যৌতুক হিসেবে নগদ অর্থ আদায় করেও নির্যাতনের হাত থেকে রক্ষা না পেয়ে অবশেষে পারভিনের বর্তমান আশ্রয়স্থল বাপের বাড়িতে।

এ ব্যাপারে পারভিনের বাবা জয়নাল সু-বিচার চেয়ে পানছড়ি থানায় একটি দরখাস্ত দাখিল করে। শুক্রবার (২১ জুলাই) সকাল ১০টায় পানছড়ি থানায় আজিমকে হাজির থাকার নোটিশ প্রদান করা হলেও হাজির হয়নি বলে জানান পানছড়ি থানার এএসআই সমর বড়ুয়া।

এ ব্যাপারে পানছড়ি উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি মো. বাহার মিয়া জানান, ঘটনাটি অত্যন্ত দুঃখজনক। এ ধরনের অসামাজিক লোকদের কঠিন শাস্তির আওতায় আনা দরকার। যাতে করে ভবিষ্যতে এ রকম ন্যাক্কারজনক ঘটনা কেউ আর না ঘটায়। পানছড়ির সুশীল সমাজের দাবী তার শক্ত একটি সাজা হোক।

image_pdfimage_print

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *