পানছড়িতে আ’লীগ কার্যালয়ে দখল নিয়ে বিরোধ: সংঘর্ষে আহত ৪


নিজস্ব প্রতিনিধি, পানছড়ি।

খাগড়াছড়ি জেলার পানছড়ি উপজেলায় আওয়ামীলীগের দলীয় কার্যলয়ের বিরোধের জের ধরে সংঘর্ষে ৪ জন আহত হয়েছে।

এতে জিয়ানগর এলাকার আঃ গফুরের ছেলে আঃ মালেক (৩৫) কলাবাগান এলাকার বাসিন্দা আঃ আজিজ খন্দকারের ছেলে ইকবাল খন্দকার (৩০), উপজেলা আ.লীগের সাবেক সভাপতি আঃ মোমিনের ছেলে মোঃ মফিজুর রহমান (২৭)এবং তার চাচা আঃ সবুর (৫২) আহত হয়।

আহতদের পুলিশ ও স্থানীয় জনতা উদ্ধার করে পানছড়ি হাসপাতালে ভর্তি করেছে। শুক্রবার সকাল ৯টায় উপজেলার কলাবাগান এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

আওয়ামীলীগের দলীয় সূত্রে জানাযায়, পানছড়ি উপজেলা আওয়ামীলীগের সাবেক সভাপতি মোঃ আঃ মোমিন দলের সভাপতি থাকা অবস্থায় উপজেলা আওয়ামীলীগের দলীয় কার্যলয় তার এবং তার ছোট ভাই এর নামে করে নেয়। উপজেলা আওয়ামীলীগ বারবার দলীয় কার্যালয় দলের নামে লিখে দেওয়ার জন্য চাপ দেয়।

এ নিয়ে দীর্ঘ দিন যাবৎ বিরোধ চলছিল। যার কারণে শুক্রবার সকালের দিকে উপজেলা আ.লীগ ও সহযোগী সংগঠনের নেতা কর্মীরা যতক্ষণ পর্যন্ত দলের অফিস দলকে লিখে না দেবে ততক্ষণ আ: মোমিনের সকল ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখার অনুরোধ জানান। এই অনুরোধ না মেনে ব্যবসা প্রতিষ্ঠান খোলা রাখার কারণ দলের নেতা কর্মীরা জানতে গেলে সংঘর্ষের সূত্রপাত হয়।

পানছড়ি উপজেলা আ’লীগের সভাপতি মো: বাহার মিয়া বলেন, তিনি আ’লীগের সভাপতি থাকাকালীন দলীয় কার্যালয়টি নিজের ও তাঁর ভাইয়ের নামে করে নেয়। সকালে নেতাকর্মীরা দলীয় কার্যালয়টি ছেড়ে দিতে বললে তার লোকেরা আমাদের নেতাকর্মীদের উপর আক্রমণ করে।

উপজেলা আ’লীগের সাবেক সভাপতি মোঃ মোমিন ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, আমি সভাপতি থাকাকালীন দলের কোন অফিস ছিল না। আমার ব্যবসায়ীক প্রতিষ্ঠানটি দলীয় কার্যালয় হিসেবে ব্যবহার করেছি। সরকার দলীয় কয়েকজন আমার ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠান স’মিল থেকে (৯.১১.১৭) তারিখ ৫লাখ টাকা চাঁদা দাবি করে।

টাকা দিতে অপারগতা প্রকাশ করায় তারা আমার স’মিলের কর্মচারী, আমার ছেলে ও ভাইয়ের আমার উপর আক্রমণ করেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *