পর্যটন শহর কক্সবাজার উন্নয়নে কর্তৃপক্ষের ৮ প্রকল্প অনুমোদন


বিশেষ প্রতিনিধি, কক্সবাজার:

পর্যটন শহর কক্সবাজার উন্নয়নে বোর্ড সভায় ৮টি প্রকল্প অনুমোদন দিয়েছে ‘কক্সবাজার উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ’।

বৃহস্পতিবার (৯ আগস্ট) সকাল ১১টায় কক্সবাজার উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের ৮ম বোর্ড সভা ‘কউক’ সভাকক্ষে চেয়ারম্যান লে. কর্নেল (অব:) ফোরকান আহমদের সভাপত্বিতে অনুষ্ঠিত হয়।

সভায় জানানো হয়, গেল ১৬ জানুয়ারি(২০১৮)  ১০ তলা বিশিষ্ট কক্সবাজার উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের নিজস্ব অফিস ভবন একনেক সভায় চূড়ান্ত অনুমোদন পায়।

টেন্ডার প্রক্রিয়ার কাজ শেষে ১৫ জুলাই (২০১৮) নতুন ভবনের নির্মাণ কাজ শুরু করা হয়েছে। এ এছাড়াও কক্সবাজার শহরস্থ ঐতিহ্যবাহী লালদিঘী, গোলদিঘী ও বাজারঘাটা পুকুর পুনখননসহ ভৌত সুযোগ-সুবিধার উন্নয়ন প্রকল্পের ডিপিপি গত ১১জুলাই(২০১৮) গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয় অনুমোদন পেয়েছে। এর টেন্ডার প্রক্রিয়া শেষ করে খুব দ্রুত কাজ শুরু করা হবে বলেও জানান তিনি।

কক্সবাজারে আবাসন সমস্যা নিরসনকল্পে কউক কর্তৃক কক্সবাজার সদর উপজেলায় “কক্সবাজার উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ আবাসিক ফ্ল্যাট উন্নয়ন প্রকল্প-১” নামে একটি প্রকল্প শুরু করতে যাচ্ছে।

আরও জানানো হয়, গত ২৮জুলাই(২০১৮) গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয়ের সচিবের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় প্রকল্পের প্রসপেক্টাস ছাড়ার অনুমোদন পায়। ওই প্রসপেক্টাস বিক্রয়ের কাজ শুরু করা হবে দ্রুত। তিনি বলেন, ইতোমধ্যে কউক কক্সবাজারের সৌন্দর্য্য বৃদ্ধির লক্ষ্যে মেরিন ড্রাইভ সড়কে দরিয়ানগর থেকে হিমছড়ি পর্যন্ত রাস্তায় আলোকায়ন প্রকল্প-১ এর কাজ শেষ করা হয়েছে। কক্সবাজার শহরে ৬০০টি লাইট লাগানোর মাধ্যমে চলতি মাসে আলোকায়ন প্রকল্প-২ শেষ করা হবে।

পর্যটকদের আর্কষণ বৃদ্ধির লক্ষ্যে শহরের ৪টি গুরুত্বপূর্ণ পয়েন্টে ভাস্কর্য্য নির্মাণের কাজও চলমান রয়েছে। তিনি আরও বলেন, কক্সবাজারকে একটি আধুনিক ও আকর্ষনীয় পর্যটন নগরী হিসেবে গড়ে তোলার জন্য একটি কার্যকরী মাস্টার প্ল্যান প্রনয়নের কাজ দ্রুত শুরু হচ্ছে।

বোর্ডের সদস্যগণ অতি অল্প সময়ের মধ্যে কর্তৃপক্ষের এই সফলতায় সাধুবাদ জানান এবং ২য় মেয়াদে কউকের চেয়ারম্যান হিসেবে নিয়োগ পাওয়া চেয়ারম্যানকে অভিনন্দন জানান এবং জনহিতকর সকল কাজে আন্তরিকভাবে সমর্থন থাকবে বলেও আশ্বস্ত করেন।

সভাপতি জানান কক্সবাজারকে আধুনিক ও পরিকল্পিত নগরী হিসেবে গড়ে তোলার জন্য এবং যানজট নিরসনের লক্ষ্যে নিম্নোক্ত ৮টি প্রকল্প গ্রহণ করা হয়েছে।

প্রকল্প গুলো হল-

(ক) পর্যটন নগরী কক্সবাজারের মহাপরিকল্পনা প্রনয়ন প্রকল্প,

(খ) হলিডে মোড়-বাজারঘাটা-লারপাড়া (বাসস্ট্যান্ড) প্রধান সড়ক সংস্কারসহ প্রস্তুতকরণ প্রকল্প,

(গ) সুগন্ধা মোড়-সুগন্ধা পয়েন্ট-লাবনী পয়েন্ট সংযোগ সড়ক প্রশস্তকরণ ও সৌন্দর্যবর্ধন প্রকল্প,

(ঘ) বাঁকখালী নদী সংলগ্ন ১৫০ ফুট প্রশস্ত সবুজ বেস্টনীসহ সড়ক উন্নয়ন প্রকল্প,

(ঙ) হিল ডাউন সার্কিট হাউস-আনবিক শক্তি কমিশন পর্যন্ত বিকল্প সড়ক নির্মাণ প্রকল্প,

(চ) কক্সবাজারস্থ কক্সবাজার উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ ফ্ল্যাট উন্নয়ন প্রকল্প-১,

(ছ) ভারুয়াখালী মুজিবঘাট সংলগ্ন এলাকায় কউক কর্তৃক বিনোদন কেন্দ্র/ইকোপার্ক নির্মাণ প্রকল্প, ও

(জ) রহমানিয়া মাদ্রাসা থেকে জেলখানা পর্যন্ত সংযোগ সড়ক র্নিমাণ প্রকল্প।

প্রকল্প সমূহ বাস্তবায়নের ফলে কক্সবাজারে পর্যটন শিল্প বিকাশে ইতিবাচক পরিবর্তন আসবে বলে তিনি আশাবাদ ব্যক্ত করেন। উপস্থিত বোর্ড সদস্য বৃন্দ কউকের উদ্যোগকে স্বাগত জানান এবং সকলে সার্বিক ভাবে সহযোগিতার আশ্বাস প্রদান করেন।

বোর্ড সভায় কক্সবাজার উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের সদস্যবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *