parbattanews bangladesh

নারীর পাশাপাশি পুরুষদেরও এগিয়ে আসতে হবে

রাঙ্গামাটি প্রতিনিধি:

নারীরা তাদের অধিকার সঠিকভাবে আদায় করতে পারছে না। নারী অধিকার প্রতিষ্ঠার জন্য রাজপথে আন্দোলন করতে হবে এবং নারীদের অধিকার আদায়ের জন্য নারীর পাশাপাশি পুরুষদেরও এগিয়ে আসতে হবে।

বৃহস্পতিবার ( ৮ মার্চ) সকালে “ এখনই সময় গ্রামীন ও শহরে নারী সমাজের জীবনমান অগ্রগতি নিশ্চিত করার” এই শ্লোগানে রাঙ্গামাটি জেলা শিল্পকলা একাডেমি সম্মেলন কক্ষে আয়োজিত আন্তর্জাতিক নারী দিবস উপলক্ষে পার্বত্য চট্টগ্রাম মহিলা সমিতি ও হিল উইমেন্স ফেডারেশনের আলোচনা সভায় বক্তারা এসব কথা বলেন।

এসময় হিল উইমেন্স ফেডারেশনের সহ-সভাপতি সোনারানী চাকমার সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি ছিলেন, পার্বত্য চট্টগ্রাম আদিবাসী ফোরামের সভাপতি প্রকৃতি রঞ্জন চাকমা। বিশেষ অতিথি ছিলেন, পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতির সাংগঠনিক সম্পাদক শক্তিপদ ত্রিপুরা, পার্বত্য চট্টগ্রাম মহিলা সমিতির সভাপতি জড়িতা চাকমা, পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতির রাঙ্গামাটি জেলা কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক শরৎ জ্যোতি চাকমা, নারী অধিকার কর্মী নুকু চাকমা, পার্বত্য চট্টগ্রাম যুব সমিতির রাঙ্গামাটি জেলা কমিটির সভাপতি অরুণ ত্রিপুরা, পার্বত্য চট্টগ্রাম পাহাড়ি ছাত্র পরিষদের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক সুমন মারমা প্রমুখ।

আলোচনা সভায় বক্তারা বলেন, সমাজে নারীর সমঅধিকার ও সমমর্যাদা প্রতিষ্ঠার ক্ষেতে এবং রাষ্ট্রীয়, সামাজিক ও পারিবারিক সকল ক্ষেত্রে নারীর উপর চলমান বৈষম্য, শোষণ, বঞ্চনা, নিপীড়ন, সহিংসতার বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানোর সংগ্রামসহ সমাজ প্রগতির আন্দোলনে আজ ৮ মার্চ অত্যন্ত তাৎপর্যপূর্ণ একটি দিন।

বক্তারা আরও বলেন, ইতোমধ্যে পারিবারিক, সামাজিক ও রাষ্ট্রীয় জীবনে নারীর সমঅধিকার ও সমমর্যাদার বিষয়টি গুরুত্ব পেলেও বাস্তবে গুণগত ও সামগ্রিকভাবে বিশ্বের দেশে দেশে নারীরা এখনও শোষণ, বঞ্চনা, অবহেলা, নিপীড়ন ও সহিংসতার শিকার হচ্ছে। বিশেষ করে সংখ্যালঘু ও উপজাতি জনগোষ্ঠীর নারীরা প্রতিনিয়ত মানবাধিকার লঙ্ঘন এবং জাতিগত আগ্রাসন, সহিংসতা ও বৈষম্যের শিকার হতে বাধ্য হচ্ছে। নারীরা সচেতন না হলে দেশের অগ্রগতি হবে না এবং উন্নয়নে বাধাগ্রস্ত হবে। নারী ছাড়া দেশের উন্নয়নেব সফলতা অর্জন অসম্ভব। তাই সমাজের বিভিন্ন কর্মকাণ্ডে নারীদের এগিয়ে আসার আহ্বান জানান বক্তারা।