নাইক্ষ্যংছড়ি সীমান্তে স্থলমাইন বিস্ফোরণে ৩ রোহিঙ্গা নিহত, আহত ৩


বাইশারী প্রতিনিধি:

বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ি সীমান্তের মিয়ানমার অংশে দেশটির সীমান্তরক্ষীদের পুঁতে রাখা স্থলমাইন বিস্ফোরণে তিন রোহিঙ্গা মিয়ানমারের নাগরিক নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন আরো তিনজন। বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার মিয়ানমার সীমান্ত সংলগ্ন রেজু আমতলি ও তুমব্রু সীমান্তে শনিবার (৯ সেপ্টেম্বর) রাত ও রবিবার (১০ সেপ্টেম্বর) সকালে হতাহতের এ ঘটনা ঘটে।

ঘুমধুম ইউপি চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর আজিজ ও সাবেক ইউপি সদস্য মো. ফরিদ উদ্দিন জানান, শনিবার রাত ১০টার দিকে রেজু অমতলি সীমান্তের জিরো লাইনের কাছে স্থলমাইন বিস্ফোরণে তিন রোহিঙ্গা নিহত ও তিনজন আহত হন। সীমান্ত অতিক্রম করে বাংলাদেশে অনুপ্রবেশের চেষ্টাকালে হতাহতের এ ঘটনা ঘটে।

আহত আবদুল করিমকে চিকিৎসার জন্য উখিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেয়া হলেও লাশগুলো ওপারের জিরো লাইনেই পড়ে রয়েছে।

তারা আরো জানান, রবিবার ভোরে তুমব্রু সীমান্তের বাংলাদেশ-মিয়ানমার ৩৭-৩৮নং পিলারের মধ্যস্থানে স্থলমাইন বিস্ফোরণের অন্য ঘটনাটি ঘটে। এসময় ঘুমধুমের বাইশফাঁড়ি এলাকার বাসিন্দা আবুল খায়েরের ছেলে মো. হাসান (৩২) আহত হন।

ভোরে ঘুমধুমের তুমব্রু সীমান্ত দিয়ে গরু আনতে গেলে মিয়ানমার সেনাবাহিনীর পুতে রাখা স্থলমাইন বিস্ফোরণে হাসানের একটি পা উড়ে যায় এবং চোখেও আঘাত লাগে। এসময় আতাউল্লাহ নামে অপর এক রোহিঙ্গা যুবক আহত হন।

পরে স্থানীয়রা মুমূর্ষু অবস্থায় তাদের উদ্ধার করেন। বর্তমানে তারা উখিয়া কুতুপালং ইউএনএইচসিআর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

এর আগেও সীমান্তে স্থলমাইন বিস্ফোরণে বেশ কয়েকজন রোহিঙ্গা মুসলিম নারী-পুরুষ হতাহত হয়েছিলেন।

মিয়ানমারের সেনাবাহিনী বাংলাদেশ-মিয়ানমার নোম্যানস ল্যান্ডের কয়েকশ’ গজের মধ্যে নতুন করে স্থলমাইন পুঁতেছে। বিশেষ করে সীমান্তের যেসব পয়েন্ট দিয়ে রোহিঙ্গারা বাংলাদেশে আসছেন সেসব পয়েন্টে বিপুল পরিমাণ মাইন পুঁতে রেখেছে বলে মায়ানমারের নাগরিক আব্দুল করিম জানান।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *