দীঘিনালায় বন্যায় শতাধিক পরিবার আশ্রয় কেন্দ্রে, সাজেক, বাঘাইছড়ি ও লংগদু সড়ক যোগাযোগ বন্ধ


নিজস্ব প্রতিবেদক, খাগড়াছড়ি:

দুই দিনের টানা বর্ষণে ও উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢলে খাগড়াছড়ির দীঘিনালায় বন্যা পরিস্থিতির অবনতি ঘটেছে। বন্যার পানিবন্দি হয়ে পড়েছে সহস্রাধিক পরিবার। শতাধিক পরিবার বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে আশ্রয় নিয়েছে। দীঘিনালার মেরং-এ একটি উচ্চ বিদ্যালয়সহ ৫টি বিদ্যালয় বন্ধ হয়ে গেছে। প্রবল বর্ষণে খাগড়াছড়িতে ফের পাহাড় ধসেরও শঙ্কা দেখা দিয়েছে।

এদিকে সড়কের উপর পাহাড় ধসে ও সড়কের উপর পানি উঠায় বন্ধ হয়ে গেছে খাগড়াছড়ির সাথে সাজেক, বাঘাইছড়ি ও লংগদু সড়ক যোগাযোগ। পাহাড় ধসে প্রাণ হানির আশঙ্কায় দীঘিনালায় দুটি আশ্রয় শিবিরে ১২টি পরিবার আশ্রয় নিয়েছে।

বন্যায় সব চেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে দীঘিনালার মেরুং-এ। খাগগড়াছড়ি জেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক কেএম ইসমাইল হোসেন জানান, মেরুং-এ বন্যায়  সহস্রাধিক পরিবার পানিবন্দি হয়ে পড়েছে। বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শতাধিক পরিবার আশ্রয় নিয়েছে। বন্যায় ছোট মেরুং উচ্চ বিদ্যালয়সহ ৫টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ হয়ে গেছে। জেলা যুবলীগ বন্যা দুর্গতদের দুপুরে চিড়া, মুড়ি ও গুড়সহ শুকনো খাবার বিতরণ করেছে।

খাগড়াছড়ি রিজিয়নের স্টাফ অফিসার মেজর মোহাম্মদ মুজাহিদুল ইসলাম জানান, দুই টিলা এলাকায় পাহাড় ধসে পড়ায় দীঘিনালার সাথে বাঘাইছড়ি, বিভিন্ন স্থানে সড়কে পানি উঠায় দীঘিনালা-লংগদু ও সাজেকের সাথে খাগড়াছড়ির সড়ক যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে গেছে।

খাগড়াছড়ি জেলা প্রশাসক মো. রাশেদুল ইসলাম জানান, দীঘিনালার মেরং-এ বন্যা দুর্গত মানুষগুলোকে নিরাপদ আশ্রয়ে সরিয়ে নেওয়া হচ্ছে। প্রাথমিক দুর্গতদের জন্য শুকনো খাবারসহ ত্রান দেওয়া হচ্ছে। প্রয়োজন হলে আরো ত্রান বরাদ্দ দেওয়া হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *