দীঘিনালার বাবুছড়ায় নৌকা প্রতীকে ৫কেন্দ্রে ৯ ভোট!


 

দীঘিনালা প্রতিনিধি:
দীঘিনালা উপজেলায় সদ্য অনুষ্ঠিত হওয়া ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে শোচনীয়ভাবে পরাজিত হয়েছে নৌকা প্রতীকের প্রার্থী। নির্বাচনে অধিকাংশ কেন্দ্রেই একটি অথবা দুটি করে ভোট পেয়েছেন।

তবে এভাবে পরাজিত প্রার্থী মুজিবুর রহমান দুষছেন, খাগড়াছড়ি জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও জেলা পরিষদ সদস্য এ্যাডভোকেট আশুতোষ চাকমকে।

তবে এ্যাডভোকেট আাশুতোষ চাকমা অভিযোগ অস্বীকার করে জানান, পাহাড়ে জানের ভয় উপেক্ষা করেই বিভিন্ন জায়গায় গিয়ে তিনি নৌকার ভোট চেয়েছেন।

জানাযায়, গত ২৯মার্চ অনুষ্ঠিত হয়েছে উপজেলার বাবুছড়া এবং দীঘিনালা ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন। নির্বাচনে বাবুছড়া ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী হন, বাবুছড়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি মো. মুজিবুর রহমান। নৌকা প্রতীকে তিনি জারুলছড়ি সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়কেন্দ্রে ০৩ ভোট, নুনছড়ি সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়কেন্দ্রে ০১ভোট, জারুলছড়ি নিম্নমাধ্যমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে ০২ভোট, ধনপাতা বে- সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে ০২ভোট, এবং মনোরথ তালুকদার সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে ০১ভোট পান। নয়টি ভোট কেন্দ্রের অধিকাংশ কেন্দ্রে ১টি,২টি, ৩টি করে ভোট পান। এর মধ্যে নাড়াইছড়ি সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়কেন্দ্রে ০৭ ভোট, বাবুছড়া নিম্ন মাধ্যমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে ৪৩ ভোট, নুনছড়ি ডিপি পাড়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়কেন্দ্রে ৪১ ভোট পান। শুধুমাত্র  নিজ ভোট কেন্দ্রে মুজিবুর রহমান নৌকা প্রতীকে ৮শত ২৩ ভোট পান। এই কেন্দ্রে অধিকাংশ ভোটার বাঙ্গালী।

নৌকার ভোট ব্যাংক হিসেবে পরিচিতি থাকলেও এবারের নির্বাচনে উপজাতী অধ্যুষিত এসব ভোট কেন্দ্রে দু’একটি করে ৫কেন্দ্রে ৯টি ভোট পেয়েছে।

তবে এভাবে পরাজয়ের কারণে গত শুক্রবার দুপুরে বাবুছড়া ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলন করেছেন, ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ সভাপতি মো. মুজিবুর রহমান।

সংবাদ সম্মেলনে তিনি দাবী করেন, খাগড়াছড়ি জেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও জেলা পরিষদ সদস্য এ্যাডভোকেট আশুতোষ চাকমার কারণেই তিনি এত কম ভোটের ব্যবধানে হেরেছেন। কারণ তিনি নৌকার জনসভা করে পেছনে ‘ঢোল’ প্রতীকের স্বতন্ত্র প্রার্থী তার ফুফাতো ভাই সন্তোষ কুমার চাকমার জন্য ভোট চেয়েছেন।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *