থানচিতে ২০ দিন পর ক্লাসে ফিরলেন তিন শিক্ষক


dsc00533-copy

থানচি প্রতিনিধি:

থানচিতে তিন্দু গ্রোপিং পাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের তিন শিক্ষক ১৮ নভেম্বর হতে ৫ ডিসেম্বর পর্যন্ত এক তুচ্ছ ঘটনার জের ধরে ক্লাস বর্জন করেন। ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষকসহ উপজেলা সদরে শিক্ষা অফিসারের কার্যালয়ে অবস্থান করেছিলেন তারা। ফলে ৯১জন কোমল মতি শিক্ষার্থীর ২০ কার্য দিবসে রুটিংয়ের ক্লাস করার সম্ভব হয়নি। আসন্ন ১০ ডিসেম্বর বার্ষিক পরীক্ষা নিয়ে বিপাকে পড়েছিল ছাত্র অভিভাবকরা। সোমবার  ইউপি চেয়ারম্যান মংপ্রু অং মারমার উপস্থিতিতে এক শালিসী বৈঠকে ঘটনার মীমাংসা হলে  মঙ্গলবার ক্লাস শুরু হয়।

শিক্ষকরা দাবী করেন বিদ্যালয়ের সমাপনী ৭ জন পরীক্ষার্থীদের থেকে কেন্দ্র খরচ ২৭০০ শত টাকা করে ১৮ হাজার ৯শত টাকা উত্তোলন করেন। উত্তোলিত টাকা আলমিরা  থেকে  স্কুলের ৪র্থ শ্রেণীর ছাত্র চুরি করেন। হারানো টাকা স্কুলের আজীবন দাতা সদস্য প্রেথাং খুমীর  (হেডম্যানের) ছেলে হওয়ায় স্থানীয়দের মাঝে জানাজানি না হতে ফেরত দেন।

চলতি বছরে স্কুলের সার্বিক উন্নয়নে সরকারিভাবে বরাদ্ধকৃত ৩০ হাজার টাকা বাস্তবায়ন না করে শিক্ষকদের হাতে থাকা টাকার হিসাব নিতে  প্রেথাং খুমী হেডম্যান ওই দিন রাত্রে শিক্ষকদের বাসগৃহে মাতাল অবস্থায় দরজা ধাক্কা দেয়। ভয়ে শিক্ষকরা উপজেলা সদরে  শিক্ষা অফিসারকে মৌখিকভাবে ঘটনার বর্ননা করেন। পরের দিন শিক্ষা অফিসার শিক্ষকদের সমস্যা সামাধানের চেষ্টা না করে শিক্ষকদের সমাপনি পরীক্ষা ডিউটি ও খাতা কাটার কাজে ব্যস্ত ছিলেন।

দাতা সদস্য প্রেতাং খুমী জানান, স্কুল উন্নয়নে চলতি বছরে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের বরাদ্ধকৃত ৩০ হাজার টাকা শিক্ষা অফিসার আত্মসাৎ করার অভিযোগ এনে স্কুলের এসএমসি কমিটির দাতা সদস্য প্রেথাং খুমী (মৌজা হেডম্যান ) ১৮ নভেম্বর গভীর রাতে শিক্ষকদের উপর মাতাল অবস্থায় আক্রমন করলে  শিক্ষকরা ক্ষুব্ধ হয়ে স্কুল ত্যাগ করেন। শালিসী বৈঠকে শিক্ষা অফিসার নিজাম উদ্দিন, প্রধান শিক্ষক সত্যমনি ত্রিপুরা, এসএমসি সভাপতি উসাচিং মারমা, ইউপি মেম্বার ক্রানিংঅং মারমা, সাবেক ইউপি মেম্বার সাইওয়াং মারমা, এলাকার গন্যমান্যরা উপস্থিত ছিলেন।

২০ দিন পর সোমবার (৫ ডিসেম্বর) তিন্দু ইউপি  সভা কক্ষে চেয়ারম্যান মংপ্রু অং মারমা সভাপতিত্বে শালিসী বৈঠকে অভিযুক্ত প্রেথাং খুমী হেডম্যান ঘটনার সত্যতা স্বীকার করেন এবং  ভবিষতে ঘটনা ঘটাবেনা মর্মে অঙ্গীকার নিয়ে সমাধান আসেন। শালিসী বৈঠকের শিক্ষা অফিসার নিজাম উদ্দিন, প্রাথমিক শিক্ষক সমিতি সভাপতি সত্যমনি ত্রিপুরা, এস.এম.সি সভাপতি উসাচিং মারমা, ইউপি মেম্বার ক্রানিংঅং মারমা, সাবেক ইউপি মেম্বার সাইওয়াং মারমা, এলাকার গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন। স্কুল মঙ্গলবার থেকে  ক্লাস শুরু হওয়ার কথা ।

এই প্রতিনিধি ২০ দিন স্কুল বন্ধ রেখে আগামি ১০ ডিসেম্বর বার্ষিক পরীক্ষায় অংশগ্রহনে কোমল মতি ছেলে মেয়েরা সমস্যায় পড়বে কিনা প্রশ্ন করা হলে  শিক্ষা অফিসার (ভারপ্রাপ্ত) নিজাম উদ্দিন সাংবাদিকদের এড়িয়ে যান।

শালিসী বৈঠকের প্রধান ইউপি চেয়ারম্যান মংপ্রু অং মারমা জানান, শিক্ষা অফিসারের অদক্ষতার কারনে আমাদের হোস্টেল থেকে তিন জন শিক্ষক দিয়ে ক্লাস করা হয়েছে।  ঘটনার পরদিন বিচারের আবেদন না করে সোমবার আবেদন পেয়ে জরুরী শালিসী বৈঠক বসে সমস্যা সমাধান করতে সক্ষম হয়েছি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *