ত্রিপিটক কেবল বৌদ্ধদের ধর্মীয় গ্রন্থ নয়, জ্ঞানগর্ভ ও সর্বজনীণ বিষয়বস্তু


রাঙ্গামাটি প্রতিনিধি:

বৌদ্ধদের পবিত্র ধর্মীয় গ্রন্থের নাম হলো ত্রিপিটক। ত্রিপিটক কেবল বৌদ্ধদের কাছে ধর্মীয় গ্রন্থ নয়, এটি জ্ঞানগর্ভ ও সর্বজনীণ বিষয়বস্তু। শুক্রবার দুপুরে রাঙ্গামাটি রাজবন বিহারে ধর্মীয় অনুষ্ঠানের মাধ্যমে বাংলায় সমগ্র ত্রিপিটক প্রকাশনার মোড়ক উম্মোচন অনুষ্ঠানে বক্তারা এসব কথা বলেন।

এসময় অনুষ্ঠানে বাংলায় সমগ্র ত্রিপিটক প্রকাশনা কমিটির আহ্বায়ক শ্রীমৎ ইন্দ্রগুপ্ত মহাস্থবির, বিধুর মহাস্থবির, করুনা বংশ স্থবির, ভিক্ষু সংঘ, রাজবন বিহারের সভাপতি গৌতম দেওয়ান, সাবেক পার্বত্য উপমন্ত্রী মনি স্বপন দেওয়ান, রাঙ্গামাটি জেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান নিখিল কুমার চাকমা, জাতীয় মানবাধিকার কমিশনের সদস্য নিরুপা দেওয়ান, সমাজকর্মী প্রকৃতি রঞ্জন চাকমাসহ বৌদ্ধ ধর্মাবলম্বী নারী পুরুষ উপস্থিত ছিলেন।

অনুষ্ঠানে বক্তারা বলেন, এটি তিনটি ত্রিপিটকের সমন্বয়ে রচিত। এখানে রয়েছে মোট ৫৯টি গ্রন্থ। ত্রিপিটক সর্বদেশে ও সর্বজনের অনুসন্ধিৎসু মনকে আলোকিত করে, আর্কষণ করে, পুলকিত করে এবং বিমুগ্ধ করে। তাই ত্রিপিটক বিশ্বের বিভিন্ন ভাষায় অনুদিত হয়েছে। এটি ১৮শতকের মাঝামাঝি সময় থেকে অক্সফোর্ড ভিত্তিক সংস্থা লন্ডন পালি টেক্স সোসাইটি কর্তৃক ইংরেজি অনুবাদ ও পালি সংরক্ষণ প্রকাশিত হতে থাকে যা এখনও অব্যহত রয়েছে।

বক্তারা আরো বলেন, রাজবন বিহারের প্রয়াত ধর্মীয়গুরু বনভন্তের ইচ্ছাতেই পুনরায় ত্রিপিটকের পুরো খণ্ডকে বাংলায় অনুবাদ করার প্রচেষ্টা নেয়া হয়। তাই রাঙ্গামাটি রাজবন বিহারের ত্রিপিটক পাবলিশিং সোসাইটির ২৩জন অনুবাদক দীর্ঘ আড়াই বছর চেষ্টা চালিয়ে ত্রিপিটকের ৫৯ খণ্ডকে ২৫ খণ্ডে বিভাজিত করে সম্পূর্ণ বাংলায় পবিত্র ত্রিপিটক প্রকাশ করে।

প্রয়াত বনভান্তের শিষ্য প্রজ্ঞালংকার মহাস্থবির ও চাকমা রানি ইয়ান ইয়ান বাংলা ত্রিপিটকের মোড়ক উম্মোচন করেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *