‘তথ্য অধিকার আইন-২০০৯: এ আইন দিয়ে সরকারকে শাসন করা সম্ভব’


????????????????????????????????????

রুমা প্রতিনিধি:

তথ্য কমিশন ও উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে বান্দরবানের রুমা উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে মঙ্গলবার বেলা ১১টায় তথ্য অধিকার আইন-২০০৯ বিষয়ক জনঅবহিতকরণ কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়। এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন তথ্য কমিশনের উপ-পরিচালক (প্রশাসন) ড: মো: আব্দুল হাকিম। তিনি বলেন, ‘তথ্য অধিকার আইন-২০০৯ হল এমন একটি আইন যার সম্পর্কে জনগন জানা থাকলে এ আইন দিয়ে সরকারকে শাসন করা সম্ভব।

প্রধান অতিথি ড: মো: আব্দল হাকিম বলেছেন স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতার মাধ্যমে দুর্নীতিমুক্ত দেশ গড়তে এই তথ্য অধিকার আইন হয়েছে। এ আইন প্রয়োগের মাধ্যমে দেশের জনগণ সব তথ্য জানতে পারবে। তবে জনগণকে সত্যের সন্ধ্যানে সবসময়  লড়াইয়ের মধ্যে থাকতে হবে।

ড: মো: আব্দুল হাকিম বলেন, দেশে ১১৯৮টি আইন আছে। সব আইনে সরকার জনগণকে শাসন ব্যবস্থা রাখা হলেও একটি আইন সরকারকে শাসন করতে পারে। সেটি ‘তথ্য অধিকার আইন-২০০৯’। এ তথ্য অধিকার আইন সম্পর্কে সাধারণ জনগণ জানা থাকলে সবখানে স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতা বাড়বে।  সংশ্লিষ্ট প্রশাসন সজাগ থাকলে দুর্নীতি কমে আসবে, এতে দেশও এগিয়ে যাবে।

প্রধান অতিথি ড: হাকিম আরো বলেন ১৭৬৬ সালে বিশ্বে সবার আগে সুইডেনে তথ্য অধিকার আইন  হয়। বর্তমানে ভারতে প্রতি বছর ৫০ লাখের বেশি তথ্য আইনের আওতায় সাধারণ মানুষেরা বিভিন্ন তথ্য চেয়ে আবেদন করে। কিন্তু বাংলাদেশে একবছরে তথ্য চেয়ে আবেদন পত্র এখনো এক লাখের বেশি হয়নি। এদেশের অধিকাংশ মানুষ তথ্য আইন সম্পর্কে এখনো জানেনা। এ আইন সম্পর্কে  বেশি করে অবহিত করতে এ কর্মশালার আয়োজনের কথা উল্লেখ করেন তিনি।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার দাউদ হোসেন চৌধুরীর সভাপতিত্বে কর্মশালাটি উদ্বোধন করেন উপজেলা চেয়ারম্যান অংথোয়াইচিং মারমা। বিশেষ অতিথি ছিলেন বান্দরবান জেলার সহকারী কমিশনার ও নির্বাহী ম্যাজিষ্টেট মো: আব্দুল্লাহ আল মামুন, রুমা থানা অফিসার ইনচার্জ মোহাম্মদ শরিফুর ইসলাম শফিক, রুমা সাংগু কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ সুইপ্রুচিং মারমা প্রমূখ।

কর্মশালায় স্থানীয় জনপ্রতিনিধি, উপজেলা পর্যায়ে সরকারি-বেসরকারির বিভাগীয় প্রধান, সাংবাদিক ও এনজিও প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *