‘তথ্য অধিকার আইনের মাধ্যমে সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতা বৃদ্ধি পাবে’


chakaria-pic-tib-28-09

চকরিয়া প্রতিনিধি:

‘জানবো জানাবো, দূর্নীতি রুখবো’ এই স্লোগানে আন্তর্জাতিক তথ্য জানার অধিকার দিবস উপলক্ষ্যে কক্সবাজারের চকরিয়ায় বুধবার র‌্যালি ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।

এদিন দুপুরে উপজেলা প্রশাসন ও সচেতন নাগরিক কমিটি (সনাক)-ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ’র (টিআইবি) সহায়তায় আয়োজিত র‌্যালি পরবর্তী মোহনায় অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. সাহেদুল ইসলাম। টিআইবি প্রণীত ধারণা পত্র উপস্থাপন করেন সনাক সভাপতি আলহাজ্ব ফরিদ উদ্দিন চৌধুরী। বক্তব্য দেন সুরাজপুর-মানিকপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আজিমুল হক আজিম এবং সনাক সদস্য জিয়া উদ্দিন। রঙিন ব্যানার-ফেস্টুন সজ্জিত বর্ণাঢ্য র‌্যালি উপজেলা পরিষদ থেকে শুরু হয়ে শহরের গুরুত্বপূর্ণ সড়ক প্রদক্ষিণ করে পুনরায় উপজেলা পরিষদ সম্মেলন কক্ষ মোহনায় এসে আলোচনা সভায় মিলিত হয়।

সভাপতির বক্তব্যে চকরিয়ার উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো: সাহেদুল ইসলাম বলেন, তথ্য অধিকার আইন বাস্তবায়নের মাধ্যমে সকল সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতা বৃদ্ধি পাবে এবং দূর্নীতি হ্রাস পাবে। অবাধ তথ্য প্রবাহ দুর্নীতি প্রতিরোধের মুখ্য হাতিয়ার। তাই দুর্নীতি প্রতিরোধের জন্য তথ্যের সহজলভ্যতা একান্ত প্রয়োজন। তিনি বলেন, তথ্য-প্রযুক্তিতে ‘ডিজিটাল বাংলাদেশ’ গঠনে সরকারের রূপকল্প ২০২১ বাস্তবায়নের সহায়ক হিসেবে জাতীয় ওয়েব পোর্টাল এর অধিকাংশ ‘জেলা, উপজেলা তথ্য বাতায়ন’-এ স্বাস্থ্য, শিক্ষা, স্থানীয় সরকার ও কৃষিসেবা বিষয়ক তথ্যের পাশাপাশি পর্যায়ক্রমে তথ্য অধিকার আইন সন্নিবেশিত হয়েছে।

সনাক সভাপতি আলহাজ্ব ফরিদ উদ্দিন চৌধুরী বলেন, তথ্য অধিকার আইন বিষয়ে জন-সচেতনতা তৈরি এবং আইন ব্যবহারে জনগণের সক্ষমতা তৈরিতে টিআইবি’র ভূমিকা অগ্রগণ্য। আইন অনুযায়ী দেশব্যাপী টিআইবি ও সনাক থেকে তথ্য প্রদানের জন্য ঢাকাসহ স্থানীয় পর্যায়ে সর্বমোট ৯২জন দায়িত্বপ্রাপ্ত ও বিকল্প দায়িত্ব প্রাপ্ত কর্মকর্তা দায়িত্ব পালন করছে। স্থানীয় পর্যায়ে স্বাস্থ্য, শিক্ষা, স্থানীয় সরকার, ভূমি এবং জলবায়ু অর্থায়নে সুশাসন বিষয়ে অফিস ভিত্তিক এবং ভ্রাম্যমাণ তথ্য ও পরামর্শ ডেস্ক পরিচালনা কার্যক্রম মূলত: সংশ্লিষ্ট সেবা প্রদানকারী কর্তৃপক্ষের সহায়ক হিসেবে স্ব-উদ্যোগে তথ্য প্রকাশের এক গ্রহণযোগ্য উদাহরণ।

তিনি আরো বলেন, আইন বিষয়ে ব্যাপক জনসচেতনতা তৈরির অংশ হিসেবে একদিকে টিআইবি ও সনাক সংশ্লিষ্ট সকলকে আইন বিষয়ে প্রশিক্ষণ প্রদান এবং অন্যদিকে দেশব্যাপী স্বল্পদৈর্ঘ্য টেলিভিশন ও রেডিও বার্তা প্রচার, ‘তথ্যই শক্তি’ বিষয়ে বিভিন্ন যোগাযোগ উপকরণ প্রকাশ ও বিতরণ এবং বিষয়ভিত্তিক গণ-নাটক আয়োজনের মাধ্যমে লক্ষাধিক মানুষের কাছে এই আইন বিষয়ে প্রচারণা এবং আইন ব্যবহারের মাধ্যমে তথ্য অধিকার আইন বাস্তবায়নে অংশগ্রহণ উৎসাহিত করা হয়েছে। তিনি ‘আন্তর্জাতিক তথ্য জানার অধিকার দিবস’ কে সরকারিভাবে স্বীকৃতি এবং জাতীয়ভাবে উদ্যাপনের আহ্বান জানান।

সুরাজপুর-মানিকপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আজিমুল হক আজিম বলেন, ২০০৯ সালে তথ্য অধিকার আইন প্রবর্তনের পর থেকে বাংলাদেশের সকল নাগরিকের জন্য সরকারি কর্মকাণ্ডের তথ্য জানার সুযোগ তৈরির পাশাপাশি সুশাসন প্রতিষ্ঠা এবং স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতা প্রতিষ্ঠার অনুকূল পরিবেশ সৃষ্টি হয়েছে।

এ সময় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন সনাক সদস্য মোহব্বত চৌধুরী, স্বজন চকরিয়ার আহ্বায়ক এমএমএইচ ইয়াসির আরাফাত চৌধুরী, টিআইবি’র সহকারি ব্যবস্থাপক মো: আব্দুল গাফফার ও ইয়েস দলনেতা মো: মিজানুর রহমান সহ ইয়েস সদস্যবৃন্দ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *