টানা বৃষ্টিতে নাইক্ষ্যংছড়িতে ফসল ও রবি শষ্যের ব্যাপক ক্ষতি


hamid 12 copy

বাইশারী প্রতিনিদি:

সপ্তাহ জুড়ে টানা বৃষ্টিতে নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলায় ফসলের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। তলিয়ে গেছে ফসলি জমির রবি শষ্য ও ক্ষেত খামার। গত দু’দিন যাবৎ বৃষ্টি কম হলেও রবিবার ভোর রাত থেকে প্রচণ্ড বৃষ্টি শুরু হয়েছে। অতি বৃষ্টির ফলে উপজেলার কৃষকদের মাঝে এখন দুঃচিন্তা বিরাজ করেছে।

সরজমিনে গিয়ে প্রাপ্ত তথ্যে জানা যায় উপজেলার ঘুমধুম, সোনাইছড়ি, দোছড়ি, নাইক্ষ্যংছড়ি সদর, বাইশারী এবং পার্শ্ববর্তী গর্জনিয়া ও কচ্ছপিয়া ইউনিয়নে তরমুজ, খিরা, বেগুন, মরিচ, আলুসহ রবি শষ্যের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। পাশাপাশি ধান ক্ষেতও তলিয়ে গেছে। এছাড়া রাবার বাগানসহ বনজ বাগানের বিশাল ক্ষতি হয়েছে। টানা বৃষ্টিতে বাইশারী, ঈদগড়, ঈদগাঁও সড়ক পানিতে তলিয়ে যাওয়ায় যোগাযোগ বন্ধ রয়েছে। এছাড়া অতি বৃষ্টির ফলে পাহাড় ধসের আশঙ্কাও লক্ষ করা যাচ্ছে এবং অতি বৃষ্টির ফলে জনজীবন বিপন্ন হয়ে পড়েছে।

সরজমিন ঘুরে আরও দেখা যায়, বর্তমানে পাহাড় থেকে সংগ্রহ করা লক্ষ লক্ষ টাকার ফুলঝাড়ু মাঠে শুকানোর জন্য রাখা হয়েছিল। ওই ফুলঝাড়ু পানিতে তলিয়ে যাওয়ার কারণে ব্যবসায়ীদের অর্ধ কোটি টাকার ক্ষতি হয়েছে বলেও জানান ব্যবসায়ী জসিম উদ্দিন।

বাইশারী ইউনিয়নের বাসিন্দা কৃষক নুরুল আমিন, আবু শামা, মোহাম্মদ হোছনসহ অনেকে জানান তাদের শীম ক্ষেত, বেগুন, খিরা, মরিচ, তরমুজসহ শাক সবজির গাছ এখন মারা যাওয়ার উপক্রম হয়েছে। এতে প্রতি জন কৃষকের লক্ষ লক্ষ টাকার ক্ষতি হয়েছে।

কৃষকেরা আরও জানান কেবল মাত্র গাছে ফলন ধরা শুরু হয়েছে এখনো কোন ধরনের বাজার জাত করতে পারেনি। তাই কৃষকেরা এ ক্ষতি আর কখনো পোষিয়ে উঠতে পারবেনা বলেও জানান। এছাড়া পানিতে তলিয়ে যাওয়ার করণে উপজেলার ৫ ইউনিয়ন ও পার্শ্ববর্তী গর্জনিয়া কচ্ছপিয়া ইউনিয়নে কয়েক কোটি টাকার তামাক ক্ষেত পানিতে তলিয়ে গেছে। যার ফলে অনেক কৃষক এখন দিশাহারা।

একদিকে মহাজনদের কাছ থেকে সুদে নেওয়া টাকা অপরদিকে তামাক কোম্পানি আগাম নেওয়া টাকা পরিশোধের ভয়ে অনেকেই এলাকা ছেড়ে চলে যাবে বলেও অভিমত ব্যক্ত করেছেন। বর্তমানে আবহাওয়া এখনো খারাপ অবস্থায় রয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *