ঝুঁকিপুর্ণ বেইলি ব্রিজ উঠিয়ে তৈরি হয়েছে পাকা সেতু


গুইমারা প্রতিনিধি:

সময়ের সাথে পাল্লা দিয়ে বদলে যাচ্ছে পাহাড়ি জনপদের সড়ক যোগাযোগ ব্যবস্থা। সড়ক যোগাযোগ ব্যবস্থাকে ঝুঁকিমুক্ত করতে ইতিমধ্যে খাগড়াছড়ির একাধিক স্থানে ঝুঁকিপুর্ণ বেইলি ব্রিজের স্থলে নির্মাণ করা হচ্ছে পিসি গার্ডার ও আরসিসি গার্ডার সেতু। বেইলি ব্রিজগুলো দিয়ে যেখানে যান চলাচল ছিল ঝুঁকিপুর্ণ সেখানে নির্মানাধীন সেতু ও কালভার্ট দিয়ে অনায়াসেই দুটি গাড়ি পারাপার করতে পারবে বলে সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে। সেতুগুলোর নির্মাণ কাজ শেষ হলে সড়ক যোগাযোগ ব্যবস্থার উন্নতিসহ যাতায়াত ব্যবস্থা সহজতর হবে বলেও মনে করছেন সচেতন মহল।

সরকারের উন্নয়ন কর্মসূচীর আওতায় খাগড়াছড়ির গুইমারা উপজেলাধীন জালিয়াপাড়া-রামগড় সড়কে ৩টি সেতু ও ১টি কালভার্ট এবং জালিয়াপাড়া-সিন্ধুকছড়ি সড়কে ১টি সেতু ও ২টি কালভার্ট নির্মাণ করছে সড়ক ও জনপথ বিভাগ। ২০১৬-১৭ অর্থবছরে সাড়ে ১৮ কোটি টাকা ব্যায়ে এ সেতুগুলোর নির্মাণ কাজ বাস্তবায়ন করছে ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান মেসার্স জাকির এন্টারপ্রাইজ।

ইতিমধ্যে জালিয়াপাড়া-রামগড় সড়কে ১টি সেতু ও ১টি কালভার্ট এবং জালিয়াপাড়া-সিন্ধুকছড়ি সড়কে ১টি সেতু ও ২টি কালভার্ট নির্মাণ কাজ শেষে যান চলাচলের জন্য খুলে দেয়া হয়েছে জানিয়ে ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান মেসার্স জাকির এন্টারপ্রাইজের প্রজেক্ট ইঞ্জিনিয়ার মানিক চন্দ্র দাস জানান, পাতাছড়া ও নাকাপা সেতুর নির্মাণ কাজ চলমান রয়েছে।

২০১৮ সালের ডিসেম্বরে সেতুগুলোর নির্মাণ কাজ শেষ হওয়ার কথা থাকলেও অক্টোবরেই নির্মাণ কাজ শেষ হবে এমন আশাবাদ ব্যক্ত করে ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান মেসার্স জাকির এন্টারপ্রাইজের স্বত্বাধিকারী মো. জাকির হোসেন বলেন, সেতুগুলোর নির্মাণ কাজ শেষ হলে পাহাড়ে সড়ক যোগাযোগে নবদিগন্তের সূচনা হবে। জীবনযাত্রার মান বাড়বে।

আশির দশকেরও আগে নির্মিত বেইলি ব্রিজ ভেঙ্গে যান চলাচল ব্যাহত ও অধিকাংশ বেইলি ব্রিজ ঝুঁকিপুর্ণ হয়ে উঠায় সরকার খাগড়াছড়ির বিভিন্ন সড়কে বেইলি ব্রিজের স্থলে পিসি গার্ডার ও আরসিসি গার্ডার সেতু এবং কালভার্ট নির্মাণের উদ্যোগ গ্রহণ করে। তারই অংশ হিসেবে খাগড়াছড়ির এ দুটি সড়কে ৭টি সেতু নির্মাণ করা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন সংশ্লিষ্টরা।

খাগড়াছড়ি সড়ক ও জনপথ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী মোসলেহ উদ্দিন জানান, খাগড়াছড়ির বিভিন্ন পাহাড়ি ছড়া বা ছোট ছোট নদীর উপর আশির দশকে নির্মিত বেইলি ব্রিজগুলো খুবই ঝুকিপুর্ণ। পাশাপাশি পাহাড় ধস কিংবা সেতুর নিচের অংশের মাটি সরে গিয়ে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হওয়ার মতো ঘটনা ঘটেছে। এতে করে সড়ক যোগাযোগ ব্যাহত হচ্ছে। যোগযোগ ব্যবস্থার টেকসই উন্নয়নে ঝুঁকিপুর্ণ বেইলি সেতু ভেঙে পিসি গার্ডার ও আরসিসি গার্ডার সেতু এবং কালভার্ট নির্মাণের উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। চলমান ও বাস্তবায়নাধীন সেতু ও কালভার্টের কাজ শেষ হলে খাগড়াছড়ির সড়ক যোগাযোগ ব্যবস্থা আমূল পরিবর্তন হবে বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *