জুমের আগুনে পুড়ছে পাহাড় ও ধ্বংস হচ্ছে জীববৈচিত্র্য


Bandarban
স্টাফ রিপোর্টার :
পার্বত্যাঞ্চলের পাহাড় ও জীববৈচিত্র্য ধংস হচ্ছে জুমের আগুনে। প্রতিবছর (ফাল্গুন-চৈত্র) অর্থাৎ মার্চ থেকে এপ্রিল পর্যন্ত জুম চাষের জন্য গাছ কেটে পরিষ্কার করে আগুন লাগানো শুরু করে জুমচাষিরা। আর এ আগুনে ধ্বংস হচ্ছে পাহাড় ও জবিবৈচিত্র্য।

জুম চাষের জন্য নতুন নতুন জমিতে জুম চাষের নামে পাহাড়ে বিভিন্ন প্রজাতির গাছ-পালা নির্বিচারে কেটে ফেলা হচ্ছে। ফলে এসব এলাকায় দিন দিন পানীয় জলের সংকট দেখা দিচ্ছে। বৃহস্পতিবার (১০ মার্চ) জুরাছড়ি উপজেলায় দুর্যোগ প্রস্তুতি দিবসের আলোচনায় বক্তারা এসব একথা বলেন।

বক্তারা আরো বলেন, পাহাড়ী এলাকায় সচেতনতার অভাবে ফাল্গুন মাসে জুমের অগ্নি শিখায় নিজের বসতি ঘর ও বন্যপ্রাণীসহ প্রাণ হারাতে হয় অনেককেই। পাহাড়ে নির্বিচারে গাছ-পালা কাটা বন্ধ ও জুমে আগুন দেওয়ার আগে বাড়ির নিরাপত্তার বিষয়টি নিশ্চিত করতে হবে।

“দুর্যোগে পাবো না ভয়-দুর্যোগকে আমরা করবো জয়” প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে সকালে র‌্যালী, আলোচনা সভা ও চিত্রাংকন প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়। উপজেলা সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা কাজী মাসুদুর রহমান সভাপতিত্ব করেন।

সভায় প্রধান অতিথি রাঙ্গামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদের সদস্য জ্ঞানেন্দু বিকাশ চাকমা, বিশেষ অতিথি পানছড়ি ভূবন জয় সরকারি মডেল প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষিকা রিতা চাকমা, সাংবাদিক সুমন্ত চাকমা উপস্থিত ছিলেন।

image_pdfimage_print

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *