চট্টগ্রাম শিক্ষা বোর্ডের বিদ্যালয় পরিদর্শক নাজিমুল লংগদুতে সংবর্ধিত


লংগদু  প্রতিনিধি:

রাঙামাটির লংগদু উপজেলার দুর্গম এলাকায় অবস্থিত চারটি নিম্নমাধ্যমিক বিদ্যালয়ের পাঠদানের অনুমোদনে বিশেষ সহযোগিতার কারণে চট্টগ্রাম শিক্ষা বোর্ডের বিদ্যালয় পরিদর্শক মো. নাজিমুল ইসলামকে এক গণ-সংবর্ধনা দিয়েছে ওই চারটি বিদ্যালয়ের শিক্ষক ও ছাত্র ছাত্রীরা।

শুক্রবার(১৯জানুয়ারি) লংগদু উপজেলার উত্তর ইয়ারিংছড়ি সেনামৈত্রী উচ্চ বিদ্যালয় প্রাঙ্গণে আয়োজিত এসএসসি পরিক্ষার্থীদের বিদায়, নবীন ছাত্র ছাত্রীদের বরণ ও  সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে এই সংবর্ধনা প্রদান করা হয়েছে।

উত্তর ইয়ারিংছড়ি সেনামৈত্রী উচ্চ বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি মো. আবুল কালাম আজাদের সভাপতিত্বে আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন, চট্টগ্রাম শিক্ষা বোর্ডের বিদ্যালয় পরিদর্শক মো. নাজিমুল ইসলাম।

বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. জালাল হোসেন মালেক এর পরিচালনায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন, লংগদু সেনাজোনস্থ ইয়ারিংছড়ি সাবজোন কমান্ডার লেপ্টেন্যান্ট মো. তানজিমুল আনোয়ার, রাবেতা মডেল উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. নুরুল করিম, করল্যাছড়ি আরএস উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. আব্দুর রহীম, কালাপাকুজ্জা সেনামৈত্রী উচ্চ বিদ্যালরে প্রধান শিক্ষক মো. আব্দুর রহীম।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে মো. নাজিমুল ইসলাম বলেন, নিরাপত্তাবাহিনীর আন্তরিক প্রচেষ্টায় ও তাদের তথ্যাবধানে তিনটি বিদ্যালয় ও বিশেষ সহযোগিতায় আরো একটি বিদ্যালয় প্রতিষ্ঠিত হয়েছে। সেখানে আজ শিক্ষার উন্নয়ন ও বিস্তার ঘটছে। আপনারা আমাকে যে বিরল সম্মান দিলেন তাতে আমি অভিভুত হচ্ছি। আপানারা ভাল কাজ শুরু করেছেন আমি শুধু আপনাদের একটু সহযোগিতা করেছি মাত্র। বোর্ডের এসি রুমে বসে আমার কাজে ভুল সিদ্ধান্ত দিতে পারি তাই, আপনাদের এই প্রত্যান্ত অঞ্চলে সরেজমিনে এসে বাস্তবতা বুঝার জন্য চেষ্টা করি।

তিনি বলেন, লংগদুর এই অঞ্চলের যতগুলো শিক্ষা প্রতিষ্ঠান আছে আমার পক্ষ থেকে সবরকমের সহযোগিতা দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিচ্ছি। আমাদের দেশের সীমিত সম্পদ। আমাদের একটাই কাজ আর তা হলো শিক্ষিত হওয়া। শিক্ষা গ্রহণ করা। আমি আশা করতে পারি এখানকার বিদ্যালয় নামক কারখানা থেকে আদর্শ মানুষ তৈরি হবে। সরকার আমাদের জন্য একটি নতুন উৎসব যোগ করেছেন সেটি হচ্ছে বছরের প্রথম দিনে বই পাওয়ার উৎসব। পৃথিবীর আর কোন রাষ্ট্রে এই উৎসব পালন করা হয়না। সরকার শিক্ষাকে অত্যাধিক গুরুত্ব দিয়েছে বলে এটা সম্ভব হয়েছে। কারণ শিক্ষা ছাড়া কোন বিকল্প নাই। সমৃদ্ধ জাতী গঠন করতে হলে শিক্ষার প্রয়োজন।

পরে পাঠদানে স্বীকৃতি পাওয়া উত্তর ইয়ারিংছড়ি সেনামৈত্রী উচ্চ বিদ্যালয়, ডানে লংগদু নিম্ন মাধ্যমিক বিদ্যালয়, ঘনমোড় সেনামৈত্রী নিম্ন মাধ্যমিক বিদ্যালয়, কালাপাকুজ্জা সেনামৈত্রী উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষকগণ প্রধান অতিথি শিক্ষা বোর্ডের বিদ্যালয় পরিদর্শক মো. নাজিমুল ইসলামকে ফুলের তোড়া ও ক্রেস্ট উপহার দিয়ে সংবর্ধনা দেনা।

বিকালে বিদ্যালয়ের ছাত্র ছাত্রীরা এক মনোজ্ঞা সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান উপভোগ করেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *