চকরিয়ায় সন্ত্রাসী হামলায় তিন শিক্ষার্থীসহ ৫জনকে কুপিয়ে গুরুতর জখম


 

চকরিয়া প্রতিনিধি:

কক্সবাজারের চকরিয়ায় বসত ভিটার জায়গার বিরোধ নিয়ে শিক্ষার্থীসহ একই পরিবারের পাঁচজনকে কুপিয়ে জখম করেছে একদল স্বশস্ত্র সন্ত্রাসী। শনিবার(১৯আগস্ট) দুপুর ২টার দিকে উপজেলার কৈয়ারবিল ইউনিয়নের ইসলামনগর এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। স্থানীয়রা এগিয়ে এসে ঘটনায় আহতদের উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়।

সূত্রে জানা গেছে, কৈয়ারবিল ইউনিয়নের ইসলামনগর এলাকার মৃত আবদুল কাদেরের পুত্র দিল মোহাম্মদ তার পৈত্রিক বন্টনকৃত জায়গায় শনিবার দুপুরে বসতি নির্মাণ করতে গেলে একই এলাকার রফিক আহমদ ও বদিউল আলমের পুত্র আক্তার হোসেনের নেতৃত্বে ৭/৮জনের একদল সন্ত্রাসী দেশিয় তৈরি ধারালো অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে নির্মাণ কাজে বাধা দেয়।

ওই সময় দিল মোহাম্মদের সাথে তর্কাতর্কিতে জড়িয়ে পড়েন সন্ত্রাসী রফিক। এক পর্যায়ে রফিকের ভাড়াটিয়া স্বশস্ত্র সন্ত্রাসীরা দিল মোহাম্মদের পরিবারের উপর হামলা চালায়। হামলায় দিল মোহাম্মদ (৫৫) কে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে গুরুতর জখম করে। ওই সময় আহত পিতাকে উদ্ধার করতে গেলে দিল মোহাম্মদের মাদ্রাসা পড়ুয়া কন্যা নবম শ্রেণির ছাত্রী রোজিনা আক্তার(১৭),অষ্টম শ্রেণির ছাত্রী তাসমিন তোফা(১৪), প্রাথমিক বিদ্যালয়ে পড়ুয়া পঞ্চম শ্রেণির ছাত্রী শেফা(১০) ও তাদের ভাই দেলোয়ার হোসেন বাবু(১৬) কে বেদড়ক পিটিয়ে ও মারধর করে গুরুতর আহত করা হয়েছে। এ সময় স্থানীয় ও পরিবারের আত্বীয়রা এগিয়ে এসে ঘটনাস্থল থেকে আহতদের উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

হামলার শিকার নবম শ্রেণির ছাত্রী রোজিনা আকতার জানান, দুপুর ২টার সময় তার পিতার পৈত্রিক ওয়ারিশীপ্রাপ্ত বন্টনকৃত জায়গার মধ্যে বসতবাড়ি নির্মাণ করতে গেলে এলাকার সন্ত্রাসী রফিকের নেতৃত্বে ৭/৮জনের ভাড়াটিয়া লোকজন নিয়ে বসতি নির্মাণ কাজে বাধা প্রদান করে। এ সময় তর্কে জড়িয়ে আমার পিতাকে কুপিয়ে ও আমার তিন বোনকে মারধর করে শ্লীলতাহানি চেষ্টা করে। এবং আমাদের ব্যবহৃত স্বর্ণালংকার ছিনিয়ে লুট করেও নিয়ে যায়। এ ব্যাপারে প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেন আহত পরিবারের সদস্যরা।

এ ব্যাপারে চকরিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ(ওসি) মো.বখতিয়ার চৌধুরী’র কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, হামলার ঘটনার বিষয়টি আমাকে ফোনের মাধ্যমে জানানো হয়। তবে এখনো কোন লিখিত অভিযোগ দেয়নি। অভিযোগ পেলে তদন্তপূর্বক আইনানুগ ভাবে ব্যবস্থা নেয়া হবে বলেও তিনি জানান।

image_pdfimage_print

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *