চকরিয়ায় সংঘর্ষে নিহতের ঘটনায় আটক-২


 

চকরিয়া প্রতিনিধি:

 
কক্সবাজারের চকরিয়ায় বসতভিটা ও সীমানা বিরোধের জের ধরে দু’পক্ষের সংঘর্ষে নেজাম উদ্দিন নামে এক ব্যক্তি নিহত হওয়ার ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে দুই আসামিকে গ্রেফতার করেছে চকরিয়া থানা পুলিশ।

এ ঘটনায় নিহতের ভাই ও নুরুল কাদের প্রকাশ লালু মিকারের পুত্র এহেছানুল হক বাদী হয়ে ১০ জনকে অভিযুক্ত করে আরো ৪/৫ জন অজ্ঞাত দেখিয়ে মঙ্গলবার রাত্রে থানায় অভিযোগ দায়ের করেন।

অভিযোগের প্রেক্ষিতে থানা পুলিশ ২০ সেপ্টম্বর বুধবার ভোর রাতে অভিযান চালিয়ে দুই আসামিকে গ্রেফতার করে। গ্রেপ্তারকৃত আসামীরা হলো উপজেলার বিএমচর ইউনিয়নের ৬নম্বর ওয়ার্ডের বহদ্দার কাটাস্থ পূর্ব স্টেশন পাড়া এলাকার মনজুর আলমের পুত্র বশির আলম (২৭), আবু তাহেরের স্ত্রী ও মনজুর আলমের কন্যা রোজিনা বেগম (২৫)।

খুনের ঘটনায় জড়িত ও অভিযুক্ত অপরাপর আসামীরা এলাকা ছেড়ে পলাতক রয়েছে।
স্থানীয় ও অভিযোগের বিবরণ সুত্রে জানা গেছে, উপজেলার বিএমচর ইউনিয়নস্থ পূর্ব স্টেশন পাড়া এলাকার মৃত ফজল আহমদের পুত্র মনজুর আলম গংয়ের সাথে একই এলাকার মৃত কবির আহমদের পুত্র নুরুল কাদের প্রকাশ লালু মিকার গংয়ের মধ্যে দীর্ঘ চার মাস ধরে বসত ভিটার জায়গা ও সীমানা নিয়ে বিরোধ চলে আসছিল।

মঙ্গলবার (১৯ সেপ্টেম্বর) দুপুরের দিকে মনজুর আলম গং তার ভাই ও ছেলে সন্তান নিয়ে ওই বসতভিটা জায়গা নিজেদের দাবি করে পূর্বের সীমানা ঠেলে নতুন করে ঘেরা-বেড়া তৈরি করতে গেলে এতে বাধা দেন লালু মিকার গংয়ের লোকজন।

এ নিয়ে দু’পক্ষ তর্কাতর্কিতে জড়িয়ে পড়লে একপর্যায়ে মনজুর আলম গংয়ের লোকজন লালু মিকার ও তার ভাই, ছেলেদের উপর ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে গুরুতর জখম করে।

ওই সময় দু’পক্ষের সংঘর্ষে ছয়জন ব্যাক্তি আহত হন। সংঘর্ষের ঘটনায় ধারালো অস্ত্রের আঘাতে নুরুল কাদের প্রকাশ লালু মিকারের পুত্র নেজাম উদ্দিন (২৩)কে কুপিয়ে গুরুতর জখম করা হয়। আহত নেজামকে চট্রগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়ার পথে ১৯ সেপ্টম্বর মঙ্গলবার রাত ৯টার দিকে চট্রগ্রামস্থ শিকলবাহা নামক এলাকায় পৌছলে সে মারা যায়।

পুলিশ সুত্রে জানা গেছে, সীমানা বিরোধে নিহত নেজাম উদ্দিনের ঘটনায় জড়িত আসামী বশির আলম ও রোজিনা বেগম গোপনে একটি বাড়িতে অবস্থান নেয়। তারা দু’জনে পালিয়ে যাওয়ার প্রস্তুতি নিচ্ছিল। খবর পেয়ে মাতামুহুরী পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের উপ-পরিদর্শক (এসআই) মংথোয়াই সংঙ্গীয় পুলিশ ফোর্স নিয়ে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে তাদেরকে গ্রেফতার করতে সক্ষম হন।

এ ব্যাপারে চকরিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ(ওসি) মো. বখতিয়ার উদ্দিন চৌধুরীর কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, বসতভিটা ও সীমানা বিরোধে ঘটনায় নিহতের পরিবারের কাছ থেকে থানায়  লিখিত এজাহার দেয়া হয়। এরই আলোকে পুলিশ গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযান চালিয় ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে দু’ব্যক্তিকে গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়েছে। এবং অন্যান্য আসামিদের ধরতে পুলিশ অভিযান অব্যহত রেখেছে।

নিহতের লাশ ময়নাতদন্তের জন্য  মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *