চকরিয়ায় বনবিভাগের অভিযানে বালু উত্তোলণকালে ২টি ডাম্পার ও চোরাই গাছভর্তি ট্রাক জব্দ


চকরিয়া প্রতিনিধি:

কক্সবাজারে উত্তর বনবিভাগের চকরিয়ায় সংরক্ষিত বনাঞ্চলের ভেতরে সেলো মেশিন বসিয়ে অবৈধ ভাবে বালু উত্তোলনকালে বৃহস্পতিবার(৩ নভেম্বর) দুপুরে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের নেতৃত্বে বনবিভাগ ও র‌্যাবের সমন্বয়ে গঠিত টাক্সফোর্সের একটিদল অভিযান চালিয়ে বালু ভর্তি দুটি ডাম্পার ট্রাক জব্দ করেছে।

এ সময় ইজারা চুক্তির লঙ্ঘনের অভিযোগে বালু মহাল ইজারাদার সাইফুল ইসলামকে এক লক্ষ টাকা জরিমানা করেছে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট। কক্সবাজার উত্তর বনবিভাগের অধিনে চকরিয়াস্থ ফুলছড়ি রেঞ্জের খূটাখালী বনবিটের মধুশিয়া সংরক্ষিত বনাঞ্চলে দুপুর ১২টা থেকে বিকাল তিনটা পর্যন্ত টানা তিনঘন্টা ধরে এ অভিযান পরিচালনা করেন টাক্সফোর্সের সদস্যরা।

অভিযানে নেতৃত্বদেন জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট জুয়েল আহম্মেদ, র‌্যাব-৭ কক্সবাজার ক্যাম্পের অধিনায়ক মেজর মো. রুহুল আমিন ও কক্সবাজার উত্তর বনবিভাগের সহকারী বনসংরক্ষক (ফুলছড়ি) মুহাম্মদ বেলায়েত হোসেন।

একইদিন বিকালে টাক্সফোর্স সদস্যরা উপজেলার ফাঁসিয়াখালী অভিযান চালিয়ে পাচারকালে বিপুল পরিমাণ চোরাই গর্জন ও আকাশমনি গাছ ভর্তি একটি ট্রাকও জব্দ করেছে। গাছসহ গাড়িটি বর্তমানে রেঞ্জ কার্যালয়ের হেফাজতে নেয়া হয়েছে বলে নিশ্চিত করেছেন চকরিয়া উপজেলার ফাসিয়াখালী রেঞ্জ কর্মকর্তা মো. আবদুল মতিন।

বনবিভাগেফুলছড়ি রেঞ্জ কর্মকর্তা আবদুর রাজ্জাক বলেন, কক্সবাজার উত্তর বনবিভাগের ফুলছড়ি রেঞ্জের খুটাখালী বনবিটের অধীন মধুশিয়া সংরক্ষিত বনাঞ্চলের ভেতরে সেলো মেশিন বসিয়ে বেশ কিছুদিন ধরে অবৈধভাবে বালু উত্তোলন করে আসছেন খুটাখালী ছডিবিল এলাকার আব্দুল জব্বারের ছেলে সাইফুল ইসলাম।

অভিযুক্ত সাইফুল ইসলাম জেলা প্রশাসন থেকে বালু মহাল ইজারা নিলেও তিনি বালু উত্তোলনকালে মহাল এলাকা অতিক্রম করে বনবিভাগের জায়গা কেটে অবৈধভাবে বালু উত্তোলন করে আসছেন।

রেঞ্জ কর্মকর্তা বলেন, বিষয়টি বনবিভাগের উর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের মাধ্যমে জেলা প্রশাসনকে অবহিত করা হয়। এরই প্রেক্ষিতে কক্সবাজার জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট জুয়েল আহম্মেদ এর নেতৃত্বে র‌্যাব-৭ কক্সবাজার ক্যাম্পের একটি দল ও বনকর্মীদের সমন্বয়ে গঠিত যৌথ টাক্সর্ফোস দল গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুরে মধুশিয়া বনাঞ্চল এলাকায় এ অভিযান চালায়।

অভিযানের সময় অবৈধ ভাবে বালু উত্তোলন ও পাচারকালে দুটি ডাম্পার ট্রাক জব্দ করা হয়। পরে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট জুয়েল আহম্মেদ ইজারা চুক্তি লঙ্ঘনের অপরাধে অভিযুক্ত সাইফুল ইসলামকে এক লাখ টাকা জরিমান করেন।

অপরদিকে একইদিন বিকালে টাক্সর্ফোস সদস্যরা উপজেলার ফাঁসিয়াখালী এলাকায় অভিযান চালিয়ে চোরাই গর্জন ও আকাশমনি গাছ ভর্তি একটি ট্রাকও জব্দ করেছে। জব্দকৃত বালুভর্তি দুইটি ডাম্পার গাড়ি ফুলছড়ি রেঞ্জ কার্যালয়ের হেফাজতে নেয়া হয়েছে বলেও জানান কক্সবাজার উত্তর বন বিভাগের সদর রেঞ্জ কর্মকর্তা মেহেদী হাসান।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *