parbattanews bangladesh

চকরিয়ায় পুলিশের মাদক বিরোধী অভিযানে গ্রেফতার ৩১

চকরিয়া প্রতিনিধি:

জাতীয়ভাবে ঘোষণা এসেছে মাদকের বিরুদ্ধে ‘জিরো টলারেন্স’। প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে দেশজুড়ে চলছে মাদক বিরোধী অভিযান। জঙ্গি দমনের মতো এবার মাদক দমনে অভিযানের কথা জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী, বাংলাদেশ পুলিশের আইজিপি ও র‍্যাব মহাপরিদর্শক মাদকের বিরুদ্ধে যুদ্ধ ঘোষণা করেছেন।

ইতিমধ্যে আইন প্রয়োগকারী সংস্থার সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ সারাদেশে অন্তত দুই ডজনের অধিক অবৈধ মাদক ব্যবসায়ী নিহত হয়েছে। যার সুফল এখন দেশের জনগণ পাচ্ছে।

এরই পরিপ্রেক্ষিতে কক্সবাজারের চকরিয়ায় মরণনেশা ইয়াবা, মাদক, জুয়াসহ অসামাজিক কার্যকলাপের বিরুদ্ধে ১ রমজান থেকে আগামী ১১ রমজান পর্যন্ত ১০ দিনব্যাপী থানা পুলিশের কয়েকটি টিম বিশেষ অভিযান শুরু করেছে। মাদকবিরোধী অভিযান জোরদার করেছেন চকরিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. বখতিয়ার উদ্দিন চৌধুরী। তিনি বেশ কিছু সংখ্যক অবৈধ মাদক ব্যবসায়ীদের গ্রেফতার করে ২৩ মে চকরিয়া থানায় মাদকদ্রব্য আইনে অন্তত ৬টি মামলাসহ ১ রমজান (১৮ মে) থেকে এ পর্যন্ত ১৬টি মামলা রুজু করে ধৃত আসামীদের আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে প্রেরণ করেছেন। এছাড়াও চকরিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট নুরুদ্দীন মুহাম্মদ শিবলী নোমানের নেতৃত্বে বিশেষ অভিযানে জুয়াড়ীসহ অন্তত ১৫ জন অপরাধীকে ভ্রাম্যমান আদালতে সাজা দিয়ে জেল হাজতে পাঠিয়েছেন।

চকরিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. বখতিয়ার উদ্দিন চৌধুরী জানিয়েছেন, তার বিশেষ নির্দেশনায় ইন্সপেক্টর (তদন্ত) মো. ইয়াছির আরাফাত, এসআই আমিনুল ইসলাম, এসআই আলমগীর, এসআই অপু বড়ুয়া, এসআই এনামুল হক, এসআই অরুণ কুমার চাকমা, এসআই সুকান্ত চৌধুরী, এসআই জুয়েল চৌধুরী, এসআই রুহুল আমিন, এসআই আবদুল খালেক, এএসআই আবদুল হাকিম, এএসআই শাহাদাত হোসেন, এএসআই জুয়েল রায়, এএসআই পলাশ বড়ুয়া, এএসআই কামাল, এএসআই নুরে আলম, মহিলা এএসআই মিটু রানী পালসহ সংগীয় পুলিশদল উপজেলার বিভিন্ন স্থানে মাদক বিরোধী বিশেষ অভিযান পরিচালনা করে।

অভিযানকালে চকরিয়া পৌরসভার চিরিংগা ভরামুহুরী হিন্দুপাড়া এলাকা থেকে দেশীয় চোলাই মদ ও মদ তৈরির সরঞ্জামসহ বিমল কর (৪০), পান্না কর (৩৫) ও কমল কর (৩৬) কে আটক করেছে। এনিয়ে এসআই রুহুল আমিন বাদী হয়ে থানায় মামলা নং ৫৩/২৮২ দায়ের করেন।

উপজেলার ডুলাহাজারা রংমহলস্থ হাতি ফকির পাড়া এলাকায় অভিযান চালিয়ে খুচরা ইয়াবা বিক্রেতা মো. রুবেলকে (২১) আটক করে। সে ওই এলাকার বদিউল আলমের পুত্র। এনিয়ে এসআই আবদুল মালেক বাদী হয়ে থানায় মামলা নং ৫৫/২৮৪ দায়ের করে।

উপজেলার সুরাজপুর মানিকপুর ইউনিয়নের ৭নং ওয়ার্ড সুরাজপুর এলাকায় অভিযান চালিয়ে নুরুল আমিন প্রকাশ মনুর আলম (৪৮) এবং রামু ঈদগড় এলাকার আবদুর রহিম (৩৫) পিতা মৃত সৈয়দ আহমদকে গ্রেফতার করে। তাদের বিরুদ্ধে এসআই অপু বড়ুয়া বাদী হয়ে থানায় মামলা নং ৬৬/২৯৫ দায়ের করে।

উপজেলার বদরখালী ইউনিয়নের বাজারপাড়া এলাকার মাদক বিক্রেতা হাসিনা বেগম (৩২) স্বামী মো. কালু ও মৃত গুরা মিয়ার পুত্র মো. কালু (৩৫) কে মাদকসহ আটক করে। তাদের বিরুদ্ধে এসআই অরুন কুমার চাকমা বাদী হয়ে থানায় মামলা নং ৬৭/২৯৬ দায়ের করেন।

চকরিয়া পৌরসভা ৮নং ওয়ার্ডের মাস্টারপাড়া গ্রামের ফরিদুল আলম (প্রকাশ ফরিদ, ২১) পিতা মৃত কামাল মিস্ত্রীকে ইয়াবাসহ আটক করে। তার বিরুদ্ধে এসআই জুয়েল চৌধুরী বাদী হয়ে থানায় মামলা নং ৬৮/২৯৭ দায়ের করে।

উপজেলার বিএমচর ইউনিয়নের ৮নং ওয়ার্ডের পূর্বপাহাড়িয়া পাড়া গ্রামের শাহাব উদ্দিন (৫৫) পিতা মৃত ছিদ্দিক আহমদকে মাদকসহ গ্রেফতার করে। তার বিরুদ্ধে এসআই সুকান্ত চৌধুরী বাদী হয়ে থানায় মামলা নং ৭০/২৯৯ দায়ের করে।

উপজেলার ডুলাহাজারা রংমহল এলাকা থেকে নুরুল আবছার (৩০) পিতা ফয়েজুর রহমানকে আটক করে। তার বিরুদ্ধে এসআই এনামুল হক বাদী হয়ে থানায় মামলা নং ৭১/৩০০ দায়ের করে।

চকরিয়াস্থ মহাসড়কে অভিযান চালিয়ে ইয়াবাসহ আবদুল্লাহ আল ফয়সাল (১৯) পিতা মো. শামীম হোসেন, সাং উপশহর সেক্টর-২, ইণ্ডিয়ান হাইকমিশনার কার্যালয় উত্তরা, ঢাকা কে গ্রেফতার করেন। তার বিরুদ্ধে এটিএসআই আবদুল হাকিম বাদী হয়ে থানায় মামলা নং ৬৯/২৯৮ দায়ের করেন।

উপজেলার খুটাখালী গর্জনতলী এলাকা থেকে মো. আবদু শুক্কুর (২৮), পিতা সোনা মিয়াকে গ্রেফতার করে। তার বিরুদ্ধে থানায় মাদকদ্রব্য আইনে মামলা করে। চকরিয়াস্থ হাইওয়ে মহাসড়কে অভিযান চালিয়ে আলী আজগরকে (১৯), পিতা রজব আলী, সাং পিরোজপুর, ৩নং ওয়ার্ড পিরোজপুর গ্রেফতার করেন। তার বিরুদ্ধে থানায় মাদকদ্রব্য আইনে মামলা করেন।

উপজেলার কাকারা ইউনিয়নের মাইজকাকারা গ্রামে অভিযান চালিয়ে মাদক ব্যবসায়ী জড়িত মো. কাজল (৪৫), পিতা মৃত ছিদ্দিক আহমদকে গ্রেফতার করেন। তার বিরুদ্ধে এসআই অপু বড়ুয়া বাদি হয়ে মামলা নং ৬২/২৯১ দায়ের করেন।

উপজেলার ফাসিয়াখালী ইউনিয়নের ৯নং ওয়ার্ড ছাইরাখালী গ্রামে খুচরা ইয়াবা বিক্রেতা হাবিবুর রহমান (২৭), পিতা জাকের আলমকে গ্রেফতার করেন। তার বিরুদ্ধে এসআই অপু বড়ুয়া বাদী হয়ে মামলা নং ৫৭/২৮৬ দায়ের করেন।

চকরিয়া পৌরসভার সোসাইটি পাড়া গ্রামের খুচরা ইয়াবা বিক্রেতা মো. খোকন (৪৭), পিতা মৃত মেহের আলীকে গ্রেফতার করেন। তার বিরুদ্ধে থানায় মামলা নং ৪৯/২৭৮ দায়ের করেন। পৌরসভা ১নং ওয়ার্ডের ঘনশ্যামবাজার এলাকার আবুল কালাম (৪৮), পিতা মৃত নজির আহমদকে মাদকসহ গ্রেফতার করে। তার বিরুদ্ধে এসআই অপু বড়ুয়া বাদী হয়ে মামলা নং ৫২/২৮১ দায়ের করেন।

মহাসড়কে গাড়ী তল্লাসী চালিয়ে মো. আনোয়ার হোসেন (৪৫), পিতা মৃত মীর হোসেন সাং জগন্নাতপুর চৌদ্দগ্রাম কুমিল্লাকে গ্রেফতার করেন। তার বিরুদ্ধে এসআই মিজানুর রহমান বাদী হয়ে থানায় মামলা নং ৪৮/২৭৭ দায়ের করেন।

উপজেলার ডুলাহাজারা ইউনিয়নের মালুমঘাট রিংভং দক্ষিণ পাহাড় এলাকায় অভিযান চালিয়ে মো. জসিম (৩২), পিতা আবদুল গফুরকে গ্রেফতার করেন। তার বিরুদ্ধে এসআই রুহুল আমিন বাদী হয়ে মামলা নং ৪৭/১৭৬ দায়ের করেন।

চকরিয়া পৌরসভার ৮নং ওয়ার্ডের সোসাইটি পাড়ায় অভিযান চালিয়ে মো. নুরুল হক (৩৭), পিতা আবুল হোসেনকে মাদকসহ গ্রেফতার করে। তার বিরুদ্ধে এসআই অপু বড়ুয়া বাদী হয়ে থানায় মামলা নং ৪৬/২৭৫ দায়ের করে।

এছাড়াও চকরিয়ায় ভ্রাম্যমান আদালত জুয়ার আসরে দফায় দফায় অভিযান চালিয়ে অন্তত ১০ জন জুয়াড়িকে আটক করে সাজা দেওয়া হয়েছে।

ওসি বখতিয়ার উদ্দিন চৌধুরী জানিয়েছেন, ধৃতদের বিরুদ্ধে ১৯৯০ সনের মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনের সংশোধিত ২০০৪ এর ১৯(১) টেবিল ৯(ক) অনুযায়ী অবৈধ মাদকদ্রব্য নিজ হেফাজতে রাখার অপরাধে মামলা হয়েছে। মাদকের বিরুদ্ধে ধারাবাহিক অভিযান অব্যাহত থাকবে। তবে মাদকের শেকড় মুলোৎপাটনে আরো বড় ধরণের পরিকল্পনা পুলিশের রয়েছে।