চকরিয়ায় পুলিশের উপর হামলা চালিয়ে আসামি ছিনতাই: ৪ পুলিশ আহত


চকরিয়া প্রতিনিধি:

কক্সবাজারের চকরিয়ায় পুলিশের উপর হামলা চালিয়ে আদালতের পরোয়ানাভুক্ত প্রতারণা মামলার আসামি আনোয়ারুল আজিম প্রকাশ এরফান (৩০) নামের এক আসামিকে ছিনতাইয়ের অভিযোগ উঠেছে।

বুধবার (৫ ডিসেম্বর) ভোররাতে উপজেলার সাহারবিল ইউনিয়নের কোরালখালী এলাকার আমিন মেম্বার পাড়া এলাকায়  এ ঘটনা ঘটে।

পালাতক আসামি আনোয়ারুল আজিম ওই এলাকার নুরুল আমিন মেম্বারের ছেলে ও সাহারবিল ইউনিয়ন বিএনপির নেতা। আসামি ছিনতাইয়ের হামলার ঘটনায় ধারালো অস্ত্রের আঘাতে গুরুতর আহত হন পুলিশের দুই উপপরিদর্শক (এস আই) ও দুইজন কনস্টেবল। আহত পুলিশ সদস্যদের উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। ঘটনার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন চকরিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. বখতিয়ার উদ্দিন চৌধুরী।

এ ঘটনায় তাৎক্ষণিক অভিযান চালিয়ে মামুন প্রকাশ ছুট্টু, মোহাম্মদ রুবেল ও এক নারীসহ দুইজনকে আটক করেছে থানা পুলিশ।

পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, বুধবার ভোররাতে প্রতারণা মামলায় আদালতের পরোয়নাভুক্ত আসামি আনোয়ারুল আজিমকে তার বাড়ি থকে গ্রেফতার করতে যান চকরিয়া থানা পুলিশের একটি টিম।

এ সময় একদল দুর্বৃত্ত সশস্ত্র ক্যাডাররা ধারালো অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে পুলিশের ওপর আক্রমণ চালায়। আক্রমণে নারীদেরও উপস্থিতি ছিল বলে জানিয়েছে পুলিশ। ছিনিয়ে নেওয়া হয় গ্রেফতারকৃত আসামি আনোয়ারুল আজিম প্রকাশ এরফানকে।

চকরিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. বখতিয়ার উদ্দিন চৌধুরী বলেন, একটি প্রতারণা মামলায় আদালতের গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি ছিল সাহারবিল ইউনিয়ন বিএনপির সদস্য আনোয়ারুল আজিম প্রকাশ এরফানের বিরুদ্ধে। তার বিরুদ্ধে  পরোয়ানা হাতে পাওয়ার পর অভিযান চালিয়ে তাকে গ্রেফতার করে থানায় নিয়ে আসার প্রস্তুতি নিচ্ছিল পুলিশ।

ওই সময় বিএনপির নেতাদের ইন্ধনে স্থানীয় বিএনপির ক্যাডাররা নারীদের জড়ো করে ধারালো অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে পুলিশের ওপর হামলা চালিয়ে গ্রেফতারকৃত আসামিকে ছিনিয়ে নেয়। হামলায় পুলিশের দুই সাব এসআই ও দুই কনস্টেবল গুরুতর জখম হয়। তাদেরকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে উন্নত চিকিৎসার জন্য একটি বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

ওসি আরও বলেন, এ ঘটনায় তাৎক্ষণিক অভিযান চালিয়ে হামলায় জড়িত বিএনপিকর্মী মামুন প্রকাশ ছুট্টু, মোহাম্মদ রুবেল এবং এক নারীকে আটক করা হয়েছে। হামলায় জড়িত অন্যদের আটকে পুলিশের অভিযান অব্যাহত রয়েছে। এবিষয়ে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলেও তিনি জানান।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *