চকরিয়ায় জনতার সহয়তায় দেশীয় তৈরি বন্দুকসহ ৫সন্ত্রাসী গ্রেফতার


চকরিয়া প্রতিনিধি:

কক্সবাজারের চকরিয়ায় জনতার সহায়তায় পৃথক স্থানে ৫জন সন্ত্রাসীকে জনতা পাকড়াও করে উত্তম মধ্যম দিয়ে পুলিশের কাছে সোপর্দ করেছে। এসময় সন্ত্রাসীর কাছ থেকে দেশীয় তৈরি দুটি বন্দুক ও দুই রাউন্ড তাজা কার্তুজ উদ্ধার করা হয়। ধৃত সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে পুলিশ বাদী হয়ে অস্ত্র্র আইনে দুটি মামলা দায়ের করেছে।

বৃহস্পতিবার (২৩আগস্ট)রাত সাড়ে ৮টার দিকে ও শুক্রবার ভোরে  উপজেলার উত্তর হারবাং ও ডুলা হাজারা ইউনিয়নের ডুমখালী এলাকা থেকে অস্ত্রসহ তাদের গ্রেফতার করা হয়।

আটক সন্ত্রাসীরা হলেন- চকরিয়া উপজেলার বরই তলী ইউনিয়নের মছনিয়া কাটা এলাকার মৃত আবদুল্লাহর ছেলে জয়নাল আবেদীন (৩৫), মৃত মীর্জা আবদুল মজিদের ছেলে জাকির হোছন (৫১), রশিদ আহমদের ছেলে আবদুল গফুর (২৬), পূর্ব বড় ভেওলা ইউনিয়নের হাজী রওশন আলী সিকদার পাড়া এলাকার আবদু শুক্কুরের ছেলে মনছুর আলম (৩২)। তাদের কাছ থেকে একটি অর্ধ প্রস্তুতকৃত বন্দুক উদ্ধার করা হয়।

এছাড়াও ডুলাহাজারা ইউনিয়নের ডুমখালী থেকে আটক করা হয় মৃত কবির আহমদের ছেলে আহাম্মদ হোছন (৫০)। তার কাছ থেকে একটি দেশীয় তৈরি একনলা বন্দুক ও দুই রাউন্ড তাজা কার্তুজ উদ্ধার হয়।

আটককৃতদের বিরুদ্ধে (এস.আই) মো. জাকির হোসেন ও (এস.আই) মো. ইসমাইল বাদী হয়ে অস্ত্র আইনে পৃথক দুটি মামলা দায়ের করেছেন।

এব্যাপারে চকরিয়া থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) মো. ইয়াসির আরাফাত বলেন, উত্তর হারবাং এলাকায় শুক্রবার ভোর রাতে জমি দখল করতে গেলে স্থানীয় লোকজন অস্ত্রসহ চার ব্যক্তিকে পাকড়াও করে থানা পুলিশে খবর দিলে পুলিশ তাদের আটক করে। অপরদিকে উপজেলার ডুলাহাজারা ইউনিয়নস্থ ডুমখালী এলাকায় বাড়ির পাশে রাস্তার উপর বন্দুক নিয়ে আহাম্মদ হোছন নামের একজন সন্ত্রাসী ঘোরাঘুরি করছিল। এসময় স্থানীয় লোকজন তাকে ঘেরাও করে থানা পুলিশকে খবর দেয়। পরে পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে তাকে দেশীয় তৈরি অস্ত্রসহ আটক করে।

ওসি আরও বলেন, আটক আহাম্মদ হোছনের বিরুদ্ধে থানা ও আদালতে বিভিন্ন অপরাধে ১৫-১৬টি মামলা রয়েছে। তৎমধ্যে বন মামলা ১০টি, অস্ত্র, হত্যা চেষ্টা দস্যুতাসহ আরও ৫টি মামলা আছে। হারবাং থেকে আটক জয়নাল আবেদীনের বিরুদ্ধে ৩টি পুরনো মামলা রয়েছে বলেও তিনি জানান।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *