চকরিয়ায় গৃহবধূর লাশ উদ্ধার


 

চকরিয়া প্রতিনিধি:

কক্সবাজারের চকরিয়ায় তামাক ক্ষেত থেকে অজ্ঞাত অবস্থায় এক নারীর লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

বুধবার সন্ধ্যার দিকে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছবি দেখে লাশটি শনাক্ত করে ওই নারীর ভাই।

লাশটির নাম রোকেয়া বেগম (২৪)। তিনি চকরিয়া উপজেলার লক্ষ্যারচর ইউনিয়নের উত্তর লক্ষ্যারচর পূর্ব পাড়ার (জিদ্দাবাজার স্টেশনের পাশে) মোহাম্মদ রুবেলের স্ত্রী এবং একই এলাকার দেলোয়ার হোসেনের কন্যা।

বুধবার বিকেল তিনটার দিকে উপজেলার লক্ষ্যারচর ইউনিয়নের বার আউলিয়া নগর এলাকার তামাক ক্ষেতে লাশটি পড়ে থাকতে দেখে তামাক শ্রমিকরা।

পরে বিষয়টি স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যানকে জানালে পুলিশ গিয়ে লাশটি উদ্ধার করে।

এ সময় ময়নাতদন্তের জন্য লাশটি কক্সবাজার সদর হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করা হয়।

পুলিশ জানায়, সুরতহাল প্রতিবেদন তৈরির সময় ওই গৃহবধূর গলায় কালো দাগ এবং শরীরের বিভিন্ন স্থানে আঁছরের দাগও পায় পুলিশ। এতে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে, শ্বাসরোধ করে ওই গৃহবধূকে হত্যা করা হয়েছে।

গৃহবধূ রোকেয়ার ভাই মোহাম্মদ আলমগীর জানান, বছর দু-য়েক আগে রোকেয়ার সঙ্গে বিয়ে হয় একই এলাকার নুরুল আলমের ছেলে মোহাম্মদ রুবেলের সঙ্গে। কিন্তু বিয়ের পর থেকে স্বামী এবং শ্বশুড় বাড়ির লোকজন প্রতিনিয়ত মারধরসহ নানাভাবে নির্যাতন চালিয়ে আসছিল। এ কারণে কয়েকদিন আগে তার বোন বাপের বাড়িতে চলে যায়।
তিনি বলেন, বোনজামাই রুবেল কম্বল দেওয়ার কথা বলে গত সোমবার সন্ধ্যায় বোন রোকেয়াকে ফোন করে বাপের বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে যায়। কিন্তু এর পর থেকে বোনের কোন হদিস পাওয়া যাচ্ছিল না।
এ ব্যাপারে চকরিয়া থানার ওসি মো. বখতিয়ার উদ্দিন চৌধুরী বলেন, অজ্ঞাত অবস্থায় উদ্ধারের পর সুরতহাল প্রতিবেদন তৈরি শেষে ময়নাতদন্তের জন্য লাশটি কক্সবাজার সদর হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করা হয়। সন্ধ্যার দিকে নিশ্চিত হই লাশটি রোকেয়া বেগমের এবং স্বামীর নাম রুবেল। এর পর রুবেলকে ধরতে পুলিশের একাধিক টিম মাঠে নেমেছে। গৃহবধূর অভিভাবকের পক্ষ থেকে লিখিত অভিযোগ পেলে মামলা নেওয়া হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *