চকরিয়ায় এসএসসি পরীক্ষার্থীকে হত্যার চেষ্টা: মুমূর্ষবস্থায় উদ্ধার


চকরিয়া প্রতিনিধি:

কক্সবাজারের চকরিয়ায় আবদুল্লাহ আল নোমান সিফাত(১৬) নামের এক এসএসসি পরীক্ষার্থীকে সিএনজি যোগে অপহরণ করে নিয়ে বেদড়ক পিটিয়ে জখম করে হত্যার চেষ্টা চালিয়েছে দুর্বৃত্তরা। পরে গুরুতর আহত মুমূর্ষবস্থায় ওই শিক্ষার্থীকে উদ্ধার করে প্রথমে চকরিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়।

বুধবার (২৪ জানুয়ারি) সকালে আহত শিক্ষার্থীর অবস্থা খুবই আশঙ্কাজনক হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে জেলা সদর হাসপাতালে প্রেরণ করেন। আহত শিক্ষার্থী উপজেলার বিএমচর ইউনিয়নের নয়াপড়া এলাকার মোক্তার আহমদের পুত্র ও বিএমচর উচ্চ বিদ্যালয়ের এসএসসি পরীক্ষার্থী বলে সূত্র জানায়।

বুধবার (২৩ জানুয়ারি) দিবাগত রাত ১২টার দিকে বিএমচর ইউনিয়নস্থ বেতুয়া বাজার এলাকার দক্ষিণ পার্শ্বে হামিদ মেম্বারের সুপারী বাগানে এ ঘটনা ঘটে।

আহত শিক্ষার্থীর পিতা মোক্তার আহমদ জানান, মঙ্গলবার (২২ জানুয়ারি) সন্ধ্যায় বেতুয়া বাজার স্টেশনে সিফাত তার ব্যক্তিগত কাজের জন্য বের হয়। স্থানীয়দের দেয়া ভাষ্যমতে, সিফাতকে মাগরিবের পরে বসতবাড়ি পাশ্বোক্ত এলাকার সহপাঠী নুর মোহাম্মদের পুত্র রিয়াজ উদ্দিনসহ ২/৩জন দুর্বৃত্ত একটি সিএনজির মধ্যে তুলে নিয়ে যায়। রাত সাড়ে ১১টার দিকে তাকে বেতুয়া বাজারের পাশ্বোক্ত হামিদ মেম্বারের সুপারী বাগানের ভিতর থেকে রাস্তার পথচারী সিএনজি যোগে যাওয়ার পথে গাড়ীর লাইটের আলোতে সিফাতকে হাত-পা ও চোখ-মুখ বাধা অবস্থায় দেখতে পায়। লাইটের আলোতে তার আওয়াজ শুনে ওই পথচারী গাড়ি থেকে নেমে স্থানীয় এলাকার সরদারসহ মুমূর্ষবস্থায় উদ্ধার করেন।

তিনি আরও বলেন, স্থানীয়রা খবর দিলে সিফাতকে ঘটনাস্থল থেকে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। তবে ছেলে সিফাতকে কি কারণে অপহরণ করে নিয়ে হত্যার চেষ্টা চালিয়েছে তা জানি না। ঘটনার বিষয়ে স্থানীয় বিএমচর ইউপি চেয়ারম্যান ও পরিষদের মেম্বার আবদুল হামিদকে অবহিত করা হয়েছে।
এ ঘটনা নিয়ে আহত শিক্ষার্থী পরিবার থানায় মামলার প্রস্তুতি নেয়া হচ্ছে বলে জানান।

এ ব্যাপারে চকরিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ(ওসি) মো.বখতিয়া উদ্দিন চৌধুরী বলেন, এ ধরণের ঘটনার বিষয়ে কেউ থানা পুলিশকে অভিযোগ বা অবহিত করেনি। অভিযোগ পেলে ঘটনার বিষয়ে তদন্তপূর্বক আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে তিনি জানান।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *