চকরিয়ায় অভিযান চালিয়ে টমটম গ্যারেজে অবৈধপন্থায় সংযোগ নেয়া বিদ্যুৎ বিচ্ছিন্ন ও জরিমানা আদায়


 

চকরিয়া প্রতিনিধি:

কক্সবাজারের চকরিয়ায় বিদ্যুৎ সরবরাহ অফিসের আবাসিক প্রকৌশলী ফয়জুল আলীম আলো তার শেষ কর্মদিবসে অভিযান চালিয়ে পৌরশহরের চার প্রভাবশালীর টমটম গ্যারেজে অবৈধপন্থায় সংযোগ নেয়া বিদ্যুৎ লাইন বিচ্ছিন্ন করেছে। অভিযানে বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন ছাড়াও আলফাজ নামের এক ব্যক্তি অবৈধপন্থায় বিদ্যুৎ লাইন চালানোর দায়ে তাকে আটক করে ৫ লাখ ২৩ হাজার ৯০৮ টাকা জরিমানা আদায় করেছে।

বৃহস্পতিবার রাত দেড়টা থেকে সকাল সাড়ে ৫টা পর্যন্ত টানা চারঘন্টা চকরিয়া পৌরশহরে এ অভিযান চালায়। আবাসিক প্রকৌশলী আলো ইতিপূর্বেও একাধিক অভিযান চালিয়ে অবৈধ সংযোগকারীদের কাছ থেকে কোটি টাকার বেশি জরিমানা আদায় করেন।

বৃহস্পতিবার ভোর রাতের অভিযানে আবাসিক প্রকৌশলী ফয়জুল আলীম আলোর নেতৃত্বে অভিযানকালে তার সাথে ছিলেন উপ-সহকারী প্রকৌশলী মো. সাজ্জাদ ছিদ্দীক, চকরিয়া থানার উপ-পরিদর্শক(এসআই) আবদুল খালেকসহ একদল পুলিশ ফোর্স ও বিদ্যুৎ সরবরাহ দপ্তরের বিভিন্ন কর্মকর্তা ও কর্মচারীরা।

অভিযান ব্যাপারে আবাসিক প্রকৌশলী আলো বলেন,  সরকার পর্যাপ্ত বিদ্যুৎ বরাদ্দ দিলেও অবৈধ সংযোগকারীদের কারণে বৈধ গ্রাহকরা চাহিদা মতো বিদ্যুৎ থেকে বঞ্চিত হয়। ফলে, ব্যাপক অনুসন্ধান চালিয়ে অবৈধ বিদ্যুৎ সংযোগ নেয়া চারটি টমটম গ্যারেজ সনাক্ত করা হয়। ওইসব গ্যারেজে মিটার থাকলেও তিনফেজ মিটারের ব্যবহৃত নিউট্রাল ছাড়াও অতিরিক্ত একটি নিউট্রাল লাইন বৈদ্যুতিক খুটি থেকে টমটম গ্যারেজে সংযোজন করা হয়।

এছাড়াও তিনফেজ মিটার বাইপাস করে অবৈধ বিদ্যুৎ সংযোগ নেয়া হয়। অনুমোদিত ৪ কিলোওয়াট লোডের বিপরীতে ১৫ কিলোওয়াট লোড ব্যবহার করে এক গ্রাহক। অপর এক গ্রাহক ৬ কিলোওয়াট লোডের বিপরীতে ৯ কিলোওয়াট লোড ব্যবহার করেছেন। অভিযানকালে এসব অবৈধ সংযোগ দেখে চকরিয়া পৌরসভার মাস্টার পাড়ার আলফাজের সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে তাকে আটক করা হয়। পরে তার কাছ থেকে ৫ লাখ ২৩ হাজার ৯০৮ টাকা জরিমানা আদায় করা হয়।

এছাড়া ভরামুহুরীর সুমন, বাটাখালীর মো. নাসির উদ্দিন, হাসপাতাল পাড়ার মো. আবুল হোসাইনের গ্যারেজের অবৈধ বিদ্যুৎ সংযোগ লাইন বিচ্ছিন্ন করা হয়। তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে লিখিতভাবে অবহিত করা হয়।

উল্লেখ্য, প্রকৌশলী ফয়জুল আলীম আলো ইতিমধ্যে পদন্নোতি পেয়ে চট্টগ্রামে বদলি হয়েছেন। বৃহস্পতিবার ছিল চকরিয়ায় তার শেষ কর্মদিবস।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *